লিটনকে ছাড়িয়ে ৮০০ পেরিয়ে সাইফ-নাইম

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-04-23 23:52:40 BdST

দেশের ক্রিকেটে সাইফ হাসানের পরিচিতি বয়সভিত্তিক ক্রিকেট থেকে। তবে দারুণ টেম্পারামেন্টের কারণে তার সম্ভাবনা বেশি মনে করা হচ্ছিল বড় দৈর্ঘ্যের ক্রিকেটে। সেই সাইফ রেকর্ড গড়লেন ঘরোয়া ক্রিকেটের একদিনের সংস্করণে। সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারীদের তালিকায় সাইফের ঠিক পরেই আছেন তার অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সঙ্গী মোহাম্মদ নাইম। পেছনে পড়ে গেছেন লিটন দাস।

মঙ্গলবার শেষ হওয়া এবারের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাবের ওপেনার সাইফ করেছেন ৮১৪ রান। লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর এই প্রথম এক মৌসুমে ৮০০ রান করতে পারলেন কেউ।

তবে সাইফ একাই নন, এবার আটশর সীমানা ছুঁয়েছেন নাঈমও। সমান ১৬ ম্যাচ খেলে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের ওপেনার করেছেন ৮০৭ রান।

লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর এক মৌসুমে সবচেয়ে বেশি রানের আগের রেকর্ডটি ছিল লিটনের। ২০১৭ সালে আবাহনী লিমিটেডের হয়ে ৭৫২ রান করেছিলেন লিটন।

সাইফ ও নাঈম, দুজনই এবার করেছেন তিনটি করে সেঞ্চুরি। দুটি ইনিংসে বেশি অপরাজিত থাকায় ব্যাটিং গড়ে নাঈমের (৫৩.৮০) চেয়ে এগিয়ে সাইফ (৬২.৬১)। তবে সহজাত আগ্রাসী ব্যাটসম্যান নাঈমের স্ট্রাইক রেট (৯৪.৩৮) সাইফের চেয়ে (৭৯.৩৩) অনেক বেশি।

২০ বছর বয়সী সাইফ ও ১৯ বছর বয়সী নাঈমের রেকর্ড গড়া মৌসুম বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্যও দারুণ সুখবর। সাইফকে তো সম্ভাবনাময় হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে বেশ আগে থেকেই। নাঈম গত মৌসুমে প্রথমবার প্রিমিয়ার লিগ খেলেই করেছিলেন ১২ ম্যাচে ৫৫৬ রান। উন্নতির ধারাবাহিকতায় এবার ছাড়িয়ে গেলেন নিজেকে।

শুধু এই দুই তরুণই নন, লিটনের রানকে টপকে গেছেন এবার অভিজ্ঞ এক ক্রিকেটারও। শেষ দিনের আগে সবচেয়ে বেশি রানের তালিকায় সাইফের সঙ্গে যৌথভাবে শীর্ষে ছিলেন রকিবুল হাসান। তবে শেষ ম্যাচে সাইফ যেখানে করেছেন ফিফটি, নাঈম করেছেন সেঞ্চুরি, সেখানে রকিবুল ফিরেছেন ২২ রানেই। দুর্দান্ত মৌসুমে তার অভিযান থেমেছে ৭৮১ রানে। ১টি সেঞ্চুরি করলেও মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান রকিবুলের ফিফটি ছিল ৮টি। গড় ৬০.০৭, তবে চোখে পড়ার মতো ছিল এবার তার স্ট্রাইক রেট, ৯৬.০৬!

এবার সাতশর বেশি রান করেছেন আরও একজন। ৫৬.৫৩ গড়ে ৭৩৫ রান করেছেন আবাহনীর জহুরুল ইসলাম।

গত মৌসুমেও সাতশর বেশি রান করেছিলেন চার ব্যাটসম্যান। তবে তাদের কেউ ছাড়াতে পারেননি সাড়ে সাতশ। লিটনের ৭৫২ রানের রেকর্ড ভাঙার হাতছানি থাকলেও নাজমুল হোসেন শান্ত চার সেঞ্চুরিতে থেমেছিলেন ৭৪৯ রানে।

সাতশ রানের মাইলফলক ছোঁয়া প্রথম ব্যাটসম্যান ছিলেন রনি তালুকদার। ২০১৪-১৫ মৌসুমে প্রাইম দোলেশ্বরের হয়ে করেছিলেন ৭১৪ রান। একাধিকবার সাতশ ছোঁয়া একমাত্র ব্যাটসম্যান রকিবুল। এবারের আগে ২০১৬-১৭ মৌসুমেও দেখা পেয়েছিলেন এই মাইলফলকের।

লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ৭০০ রান

ব্যাটসম্যান

ইনিংস

রান

সর্বোচ্চ

গড়

স্ট্রাইক রেট

১০০/৫০

মৌসুম

সাইফ হাসান

১৬

৮১৪

১৪৮*

৬২.৬১

৭৯.৩৩

৩/৪

২০১৮-১৯

মোহাম্মদ নাঈম

১৬

৮০৭

১৩৬

৫৩.৮০

৯৪.৩৮

৩/৫

২০১৮-১৯

রকিবুল হাসান

১৬

৭৮১

১০২

৬০.০৭

৯৬.০৬

১/৮

২০১৮-১৯

লিটন দাস

১৪

৭৫২

১৩৬

৫৩.৭১

১০৮.৯৮

২/৫

২০১৬-১৭

নাজমুল হোসেন শান্ত

১৬

৭৪৯

১৫০*

৫৭.৬১

৯৭.৫২

৪/২

২০১৭-১৮

এনামুল হক

১৬

৭৪৪

১২৮

৪৯.৬০

৮৯.৫৩

২/৪

২০১৭-১৮

জহুরুল ইসলাম

১৫

৭৩৫

১৩০

৫৬.৫৩

৭৭.৭৭

৩/৩

২০১৮-১৯

নাঈম ইসলাম

১৬

৭২০

১১৬*

৫৫.৩৮

৮৭.৩৭

১/৬

২০১৭-১৮

রকিবুল হাসান

১৬

৭১৯

১০০

৬৫.৩৬

৭২.৩৩

১/৫

২০১৬-১৭

রনি তালুকদার

১৬

৭১৪

১৩২*

৫১.০০

৮৩.১১

২/৩

২০১৪-১৫

তামিম ইকবাল

১৬

৭১৪

১৪২

৪৭.৬০

৯০.৭২

২/৪

২০১৬-১৭

ফজলে মাহমুদ রাব্বি

১৬

৭০৮

১২০*

৪৭.২০

৭৩.৪৪

২/৩

২০১৭-১৮

আব্দুল মজিদ

১৬

৭০৬

১১৮

৪৪.১২

৮৪.৬৫

২/৫

২০১৬-১৭

 


ট্যাগ:  বাংলাদেশ  নাঈম  সাইফ  ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ