১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬

অপেক্ষা এখন ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, কার্ডিফ থেকে, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-05-26 21:32:17 BdST

bdnews24

অফিসিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচ দুটিকে কিভাবে নেওয়া উচিত, খানিকটা দ্বিধায় ছিল বাংলাদেশ দল। আয়ারল্যান্ডে দারুণ সফল একটি টুর্নামেন্ট খেলে এসেছে দল। প্রস্তুতি সেখানে খারাপ হয়নি। এখানে ম্যাচ খেলতে গিয়ে চোট হানা দেয় কিনা, সেই শঙ্কা ছিল। কিন্তু বিশ্বকাপের দেশে ম্যাচ অনুশীলনও গুরুত্বপূর্ণ। ভাবনা বা দুর্ভাবনায় জল ঢেলেছে বৃষ্টি। পরিত্যক্ত হয়েছে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ। বাংলাদেশ এখন অপেক্ষায় ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামার।

পিঠের পেশির চোট কাটিয়ে উঠলেও পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলার কথা ছিল না সাকিব আল হাসানের। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও ছিলেন অনিশ্চিত। তামিম ইকবালের খেলার কথা ছিল দুই ম্যাচের একটি। আয়ারল্যান্ড সিরিজের পর এখানে দুটি ম্যাচ খেলতে গিয়ে শরীর ও মনের ওপর চাপ পড়ে কিনা, এই ভাবনাও ছিল দলের। ম্যাচ এখন একটি হয়ে যাওয়ায় দলের চিন্তা-ভাবনাও মোটামুটি স্বচ্ছ হয়ে উঠছে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডসও জানালেন, ম্যাচটি না হওয়ায় খুব হতাশ তারা নন।

“ম্যাচ হলে অবশ্যই ভালো লাগত। বৃষ্টি নিয়ে কিছু করার নেই। তবে আমরা খুব একটা হতাশও নই। আয়ারল্যান্ডে সিরিজ খেলে এসেছি আমরা, দল বেশ ভালো অবস্থায় আছে। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে অনুশীলনের আরেকটি সুযোগ আমাদের আছে। সেদিকে তাকিয়ে আছি আমরা।”

একাদশে জায়গা নড়বড়ে কিংবা জায়গা পাওয়ার দাবি জানাতে পারেন, এমন ক্রিকেটারদের জন্য অবশ্য একটি ম্যাচ না হওয়া মানে একটি সুযোগ কমে যাওয়া। মোসাদ্দেক হোসেন যেমন একজন। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেললেও বিশ্বকাপে সেরা একাদশে জায়গা নিশ্চিত নয় তার।

প্রস্তুতি ম্যাচে যেহেতু দলের সবাই খেলতে পারবেন, ম্যাচ দুটি মোসাদ্দেকের জন্য সুযোগ ছিল নিজের দাবি আরও জোরালো করার। একটি সুযোগ কমে যাওয়ায় তাই তার হতাশ হওয়া স্বাভাবিক। তবে দলের প্রস্তুতিতে খুব একটা ঘাটতি থাকছে না, বিশ্বাস তার।

“একটু হতাশার (খেলা না হওয়া)। আমাদের প্রস্তুতি ছিল ম্যাচ খেলার মতোই। তবে বৃষ্টির ওপর কারও হাত নেই। খেলাটা হলে আমাদের জন্য ভালো হতো। এরপরও আমি বলব, আমাদের প্রস্তুতি ভালো হয়েছে। ভালো একটি সিরিজ খেলে এসেছি আমরা (আয়ারল্যান্ডে)। একটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে না হওয়ায় খুব বেশি হতাশার কিছু নেই। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ আছে, ওই ম্যাচ দিয়ে ভালো প্রস্তুতি নিয়ে আমরা বিশ্বকাপে মাঠে নামব।”

মোসাদ্দেক, সাব্বির রহমান, রুবেল হোসেনদের জন্য তাই হয়তো ভারতের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচটির দিকে তাকিয়ে থাকবেন কিছু করে দেখাতে। তবে কোচ রোডস জানালেন, বিশ্বকাপে বাংলাদেশের শুরুর সম্ভাব্য একাদশে প্রস্তুতি ম্যাচের পারফরম্যান্সের প্রভাব পড়বে সামান্যই।

“খেলা না হওয়া কোনো সমস্যা নয়। ভারতের বিপক্ষেও খেলা হোক বা না হোক, আমরা জানি কি করতে হবে। আমরা মোটামুটি পরিস্কার, বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আমাদের একাদশ কেমন হবে।”


ট্যাগ:  বাংলাদেশ  ক্রিকেট বিশ্বকাপ