টেইলর-ডি গ্র্যান্ডহোমের ঝড়ে নিউ জিল্যান্ডের জয়

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-09-02 00:49:12 BdST

bdnews24
ছবি: আইসিসি

দুর্দান্ত এক ইনিংস খেললেন কুসল মেন্ডিস। প্রথম তিন ওভারে দারুণ বোলিং করলেন লাসিথ মালিঙ্গা। কিন্তু তাদেরকে ছাপিয়ে গেলেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ও রস টেইলর। দলের বিপর্যয়ে দুজনের ঝড়ো এক জুটি পাল্টে দিল ম্যাচের মোড়। জয় দিয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু করল নিউ জিল্যান্ড।

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে শ্রীলঙ্কাকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে নিউ জিল্যান্ড। এগিয়ে গেছে তিন ম্যাচের সিরিজে।

পাল্লেকেলেতে রোববার ২০ ওভারে শ্রীলঙ্কা তুলেছিল ৪ উইকেটে ১৭৪ রান। নিউ জিল্যান্ড জিতে যায় তিন বল বাকি থাকতে।

টস জয়ী শ্রীলঙ্কাকে উড়ন্ত শুরু এনে দেন মেন্ডিস। কেন উইলিয়ামসনের বিশ্রামে এই সিরিজে নেতৃত্ব পাওয়া টিম সাউদি যদিও দারুণ বোলিং করেছেন। কিন্তু নিউ জিল্যান্ডের অন্য পেসারদের পেয়ে বসেন মেন্ডিস।

আরেক ওপেনার কুসল পেরেরা বিদায় নেন ১১ বলে ১০ রান করে। তিনে নেমে ১০ রান করতে আভিশকা ফার্নান্দো খেলেন ১৭ বল। মেন্ডিসের সৌজন্যে তবু শ্রীলঙ্কার রান বাড়তে থাকে দ্রুত।

৮ চার ও ২ ছক্কায় ৫৩ বলে ক্যারিয়ার সেরা ৭৯ রান করে আউট হন মেন্ডিস। চারে নেমে নিরোশান ডিকভেলা ৩৩ করেন ২৫ বলে। শেষ দিকে ১২ বলে ১৭ রানে অপরাজিত থাকেন দাসুন শানাকা। তিন বল খেলার সুযোগ পেয়ে দুটি ছক্কায় ১৫ রান করেন ইসুরু উদানা।

চ্যালেঞ্জিং রান তাড়ায় নিউ জিল্যান্ডের শুরুটা ছিল বাজে। দুর্দান্ত এক ইয়র্কারে অধিনায়ক মালিঙ্গা প্রথম ওভারেই বোল্ড করে দেন কলিন মানরোকে।

মার্টিন গাপটিল থামেন ১১ বলে ১০ রান করে। তিনে নামা টিম সাইফার্ট যখন ২১ বলে ১৫ রান করে আউট হলেন, অষ্টম ওভারে নিউ জিল্যান্ডের রান তখন ৩ উইকেটে ৩৯।

ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন পেয়ে চারে নামা ডি গ্র্যান্ডহোম ও টেইলর পাল্টে দেন চিত্র। আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে দুজনের জুটিতে ৭৯ রান আসে কেবল ৩৮ বলে।

জুটি ভাঙতে আবার আক্রমণে ফিরতে হয় মালিঙ্গাকে। আরেকটি দুর্দান্ত ইয়র্কারে লঙ্কান অধিনায়ক বোল্ড করে দেন ২৮ বলে ৪৪ রান করা ডি গ্র্যান্ডহোমকে।

এই উইকেট নিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে শীর্ষ উইকেটশিকারি হয়ে গেছেন মালিঙ্গা। ৯৯ উইকেট নিয়ে ছাড়িয়ে যান শহীদ আফ্রিদিকে, সাবেক পাকিস্তানি এই ক্রিকেটারের উইকেট ৯৮টি।

টেইলর এরপর আরও কিছুক্ষণ টেনেছেন দলকে। ২৯ বলে ৪৮ করে তিনি ফেরেন অভিষিক্ত ভানিদু হাসারাঙ্গার বলে।

ম্যাচে তখনও ছিল উত্তেজনা। শেষ ২ ওভারে নিউ জিল্যান্ডের প্রয়োজন ছিল ১৮ রান। তখনও বাকি মালিঙ্গার একটি ওভার। প্রথম ৩ ওভারে দিয়েছিলেন কেবল ৮ রান। কিন্তু শেষ ওভারে তিনিই করে ফেলেন গড়বড়।

প্রথম বলেই ওয়াইড ও বাই মিলিয়ে ৫ রান পেয়ে যায় নিউ জিল্যান্ড। উত্তেজনা অনেকটা শেষ তখনই। ওই ওভারে একটি ছক্কাও মেরে দেন ড্যারিল মিচেল। শেষ হয়ে যায় সব রোমাঞ্চ।

১৯ বলে ২৫ রানে অপরাজিত থেকে যান মিচেল, ৮ বলে অপরাজিত ১৪ স্যান্টনার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা: ২০ ওভারে ১৭৪/৪ (কুসল মেন্ডিস ৭৯, কুসল পেরেরা ১১, আভিশকা ১০, ডিকভেলা ৩৩, শানাকা ১৭*, উদানা ১৫*; সাউদি ৪-০-২০-২, র‍্যান্স ৪-০-৫৮-০, কুগেলেইন ২-০-১৭-০, স্যান্টনার ৪-০-২২-১, সোধি ৩-০-২৩-০, ডি গ্র্যান্ডহোম ৩-০-৩২-০)।

নিউ জিল্যান্ড: ১৯.৩ ওভারে ১৭৫/৫ (গাপটিল ১১, মানরো ০, সাইফার্ট ১৫, ডি গ্র্যান্ডহোম ৪৪, টেইলর ৪৮, মিচেল ২৫*, স্যান্টনার ১৭*; মালিঙ্গা ৪-০-২৩-২, দনাঞ্জয়া ৩-০-৩০-১, জয়াসুরিয়া ১-০-১০-০, উদানা ৩.৩-০-৩৮-০, রাজিথা ৪-০-৪৪-০, হাসারাঙ্গা ৪-০-২১-২)।

ফল: নিউ জিল্যান্ড ৫ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: রস টেইলর


ট্যাগ:  ডি গ্র্যান্ডহোম  শ্রীলঙ্কা  নিউ জিল্যান্ড  টেইলর