দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে ইতিহাসে রহমত

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-09-05 16:16:57 BdST

bdnews24

অফ স্টাম্পের বাইরের নিরীহ বলটি ব্যাটের কানা ছুঁয়ে এলো ভেতরে। স্টাম্প ভাঙার শব্দ, নাকি হৃদয় ভাঙার আওয়াজ? ঠিক আগের টেস্টে এভাবেই হৃদয় ভাঙার যন্ত্রণায় পুড়েছিলেন রহমত শাহ। হাতছানি দিয়েও মিলিয়ে গিয়েছিল সেঞ্চুরি। তবে সেই হতাশা পেছনে ফেললেন পরের টেস্টেই। সেঞ্চুরিতে নিজের নাম খোদাই করে নিলেন আফগানিস্তানের ক্রিকেট ইতিহাসে। 

আফগানিস্তানকে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি উপহার দিলেন রহমত। বাংলাদেশের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিনের শেষ সেশনে ২৬ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান ছুঁলেন এই মাইলফলক। গড়লেন এমন কীর্তি, তার কাছ থেকে যা কখনোই কেড়ে নিতে পারবে না কেউ। নিজেদের তৃতীয় টেস্টে আফগানিস্তান পেল প্রথম সেঞ্চুরিয়ান।

যেভাবে ব্যাট করেছেন, সেঞ্চুরিটি প্রাপ্যই ছিল রহমতের। উইকেটে গিয়েছিলেন ম্যাচের প্রথম ঘণ্টায়। আফগানিস্তান তখন হারিয়েছে প্রথম উইকেট। বাংলাদেশের স্পিনের সামনে তাদের মনে হচ্ছিল নড়বড়ে।

ছোট্ট একটি জুটির পর আফগানিস্তান হারায় ইব্রাহিম জাদরানকেও। সেখান থেকেই দলকে টেনে নেন রহমত। সঙ্গী পান আরেক অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান আসগর আফগানকে।

বাংলাদেশের স্পিনে শুরুতে যখন ভুগছিলেন আফগানরা, রহমত ছিলেন পুরো অন্য চেহারায়। একটুর জন্যও তার ব্যাটিংয়ে দেখা যায়নি অস্বস্তি। স্পিনে তার টেকনিক, পায়ের কাজ ছিল প্রায় নিখুঁত। কোনো তাড়াহুড়ো করেননি। ঝুঁকির পথে হাঁটেননি একটুও।

তার দৃঢ়তায় অধৈর্য্য হয়ে এক পর্যায়ে মাঝেমধ্যেই আলগা বল শুরু করেন বাংলাদেশের স্পিনাররা। রহমত ফায়দা নিয়েছেন সেসবের।

নব্বই পেরিয়ে অবশ্য আগের টেস্টের মতোই দম বন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা হয়েছিল আরেকবার। আসগরের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হয়েই যাচ্ছিলেন প্রায়, যদি ফিল্ডার সরাসরি থ্রো লাগাতে পারতেন স্টাম্পে। কিন্তু দিনটি ছিল রহমতের। তাই পেয়ে গেছেন রক্ষা।

ইতিহাস গড়ার মুহূর্তটি এসেছে চা-বিরতির পর দ্বিতীয় ওভারে। নাঈম হাসানকে কাট করে ছুঁয়ে ফেলেন তিন অঙ্ক। ১৮৬ বলে সেঞ্চুরি।

এমন একটি কীর্তি গড়ার উদযাপন যেমন বাঁধনহারা হওয়ার কথা, তেমন কিছুই অবশ্য দেখা গেল না রহমতের উদযাপনে। ঠিক তার ব্যাটিংয়ের মতোই পরিশীলিত!

তবে সেঞ্চুরির পরই হয়তো আলগা হয়ে গেল মানসিকতা। নড়বড়ে হলো মনোযোগ। সেঞ্চুরির পরের বলেই তাই খেললেন আলসে এক ড্রাইভ। আউট হয়ে গেলেন ১০২ রান করে।

ইনিংসটি আরও বড় করার সুযোগ তাতে হারালেন। সেসব হয়তো শিখবেন সময়ের সঙ্গে। ইতিহাস গড়ার দিনটিতে আক্ষেপ থাকার কথা সামান্যই!


ট্যাগ:  বাংলাদেশ-আফগানিস্তান  আফগানিস্তান  রহমত