১০ রানে ৫ উইকেটের আশায় তাইজুল!

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-09-05 20:21:39 BdST

bdnews24

সারাদিনে বাংলাদেশ নিতে পেরেছে ৫ উইকেট। আফগানিস্তান তুলে ফেলেছে ২৭১ রান। তবে তাইজুল ইসলামের মতে, দ্বিতীয় দিনে ১০ রানের মধ্যেও বাকি ৫ উইকেট তুলে নিতে পারে বাংলাদেশ!

চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিন শেষে বাংলাদেশ দলের প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন তাইজুল। পরের দিনে দলের লক্ষ্য প্রসঙ্গে এই বাঁহাতি স্পিনার বললেন, “আমরা যদি ১০ রানে ৫ উইকেট ফেলে দিতে পারি, তাহলে তো আলহামদুলিল্লাহ, তাই না?”

প্রথম দিনে বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে উজ্জ্বল ছিলেন তাইজুলই। আফগানিস্তানের দুই ওপেনারকে ফিরিয়েছেন। দেশের হয়ে দ্রুততম ১০০ টেস্ট উইকেটের রেকর্ড গড়েছেন। দারুণ কিছুর আশা তিনি করতেই পারেন।

ক্রিকেটে চমক জাগানিয়া অনেক কিছুই হয়। তাইজুলের চাওয়া তাই পূরণ হতেই পারে। কিন্তু এসব ঘটনা দেখা যায় কালেভদ্রে। এমন কিছুর আশা বা স্বপ্ন হয়তো অনেকেই দেখেন, কিন্তু অস্বাভাবিক ব্যাপার বলেই প্রকাশ্যে বলতে বা ঘোষণা দিতে দেখা যায় না কাউকে।

তাইজুলের কথা তাই মৃদু সোরগোল তুলল সংবাদ সম্মেলন কক্ষে। তাইজুল নিজেও কথাটি বলছিলেন খানিক হাসি নিয়ে। মজা করেও বলতে পারেন!

সেটি নিশ্চিত হতেই আবার জিজ্ঞেস করা হলো, ১০ রানে ৫ উইকেট নিতে তো ‘মিরাকল’ হতে হবে!

তাইজুলের কথা বুঝিয়ে দিল, মজা করে নয়, সত্যিই বলেছেন। নিজের কথার ব্যাখ্যাও দিলেন তিনি।

“ক্রিকেটে মিরাকল যে নেই, তা কিন্তু না। বা কখনও হয়নি, তা নয়। হতেই পারে। এটা অস্বাভাবিক কিছু না। নাঈম আজকে দুই বলে দুই উইকেট (এক ওভারে দুই উইকেট) পায়নি? ভালো ভালো ব্যাটসম্যান ছিল, দুজনই আউট হয়ে গেছে।”

“নাঈম যে দ্বিতীয় উইকেটটি পেল, ওর বল তো আচমকা নিচু হয়ে গেছে। দেখেছেন মনে হয়। তো এরকম বল হতেই পারে ২-৩টা। তাই আশা ছাড়ছি না।”

সংবাদ সম্মেলনের শুরুর দিকেও অবশ্য তাইজুলের একটি কথা ছড়িয়েছিল বিস্ময়। প্রথম দিনে ৫ উইকেটে ২৭১ রান তুলে ফেলেছে আফগানিস্তান, শেষ ইনিংসে ব্যাট করতে হবে বাংলাদেশকে। শঙ্কিত হওয়ার অনেক কারণই আছে। কিন্তু তাইজুল মনে করেন না, আফগানরা খুব বেশি রান করেছে।

“আমার কাছে মনে হয় রানটা কমই হয়েছে। বোলাররা অনেক ভালো বল করেছে।”

যথারীতি তার উত্তরও এতটা অবাক করেছে সবাইকে যে আবার প্রশ্ন করে নিশ্চিত হয়েছে। প্রথম দিনে প্রতিপক্ষের রান কি বাংলাদেশের প্রত্যাশার বাইরে যায়নি? তাইজুল আবার ব্যাখ্যা করলেন।

“না, প্রত্যাশার বাইরে যায়নি। উইকেট এখন মুখস্থ উইকেট হয়ে গেছে। উইকেটে যদি মাঝে মাঝে টার্ন করত ও মাঝে মাঝে সোজা যেত, তাহলে হয়ত উইকেটের সংখ্যা বেশি থাকত। এখন উইকেটের যে অবস্থা, তাতে বল একই রকম হচ্ছে। তাই ওরা মুখস্থের মতো খেলছে।”

বিস্ময়, খটকা, ধাঁধা, সবই লাগার কথা তাইজুলের কথায়। তবে এসব ভাবনা থেকে যদি আত্মবিশ্বাসের রসদ খুঁজে নেয় দল, সেটিই হতে পারে একমাত্র ইতিবাচক দিক!


ট্যাগ:  বাংলাদেশ  বাংলাদেশ-আফগানিস্তান  তাইজুল