ফরহাদ রেজার ৬ উইকেট, রাজ্জাকের ৪

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-11-12 16:47:47 BdST

bdnews24

সকালে সুইং বোলিংয়ের দুর্দান্ত প্রদর্শনী মেলে ধরলেন ফরহাদ রেজা। দুপুরে স্পিন ভেল্কি দেখালেন আব্দুর রাজ্জাক। কিন্তু বিকেলে আর ঝলক দেখাতে পারলেন না কেউ। রোমাঞ্চের আভাস থাকলেও তাই শেষ পর্যন্ত জমে উঠল না লড়াই।

বৃষ্টি ভাসিয়ে নিয়েছিলে প্রথম দুই দিনের প্রায় পুরোটা। পরের দুই দিনে দাপট দেখালেন বোলাররা, তবে জিততে পারল না কোনো দল। ড্র হয়েছে মিরপুরে খুলনা ও রাজশাহীর জাতীয় লিগের ম্যাচ।

মঙ্গলবার ম্যাচের শেষ দিন সকালে ফরহাদ রেজা নেন ৬ উইকেট। প্রথম ইনিংসে ২০১ রানে অলআউট হয় খুলনা।

৫০ রানে পিছিয়ে থাকা রাজশাহী ধুঁকছিল শুরুতে। তবে ওপেনার অভিষেক মিত্রর ফিফটি ও লোয়ার-মিডল অর্ডারদের দৃঢ়তায় ড্র করতে পেরেছে তারা। রান ছিল ৭ উইকেটে ১৯১।

আগের দিন রুবেল হোসেন ৭ উইকেট নিয়ে রাজশাহীর প্রথম ইনিংস শেষ করে দিয়েছিলেন ১৫১ রানে। খুলনা দিন শেষ করেছিল ৪ উইকেটে ১৫৪ রান নিয়ে।

শেষ দিন সকালে লিড আর খুব বেশি বাড়াতে পারেনি তারা। দারুণ বোলিংয়ে ফরহাদ রেজা নেন বাকি ৬ উইকেটের সবকটি।

আগের দিনের অপরাজিত ব্যাটসম্যান নাহিদুল ইসলাম এক প্রান্ত আগলে রাখেন। আরেক প্রান্তে দাঁড়াতে পারেননি কেউ।

আগের দিন ১১ ওভার বোলিং করে উইকেটশূন্য ছিলেন ফরহাদ। এ দিন ৯.১ ওভারের টানা স্পেলে ২৫ রান নেন ৬ উইকেট।

পিছিয়ে থাকা দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামা রাজশাহী শুরুতে হোঁচট খায় আবার। তরুণ পেসার আব্দুল হালিম দ্রুত ফিরিয়ে দেন মিজানুর রহমান ও জুনায়েদ সিদ্দিককে।

অভিষেক ও ফরহাদ হোসেন মিলে চেষ্টা করেছিলেন প্রতিরোধ গড়ার। ফরহাদকে ফিরিয়ে ৪০ রানের জুটি ভাঙেন রাজ্জাক।

সাব্বির রহমান শুরুটা ভালো করলেও থেমে যান নাহিদুল ইসলামের অফ স্পিনে নুরুল হাসান সোহানের দুর্দান্ত স্টাম্পিংয়ের শিকার হয়ে। ফরহাদ রেজাকে বোল্ড করে দেন রাজ্জাক। ম্যাচে তখন দারুণ উত্তেজনা।

রাজশাহী ৫ উইকেট হারিয়ে এগিয়ে ছিল কেবল ৩৯ রানে। দিনের খেলার তখনও বাকি অন্তত ৫০ ওভার। দ্রুত আর ২-১টি উইকেট ডেকে আনতে পারত তাদের পতন। তা হতে দেননি অভিষেক ও মুক্তার আলি।

প্রায় তিন ঘণ্টা উইকেটে কাটিয়ে অভিষেক ৫১ রানে বোল্ড হন রাজ্জাকের বলে। এই বাঁহাতি স্পিনারকেই উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যাচ দেওয়ার আগে মুক্তার করেন ৩৯ রান। তবে তার আগে ড্র অনেকটা নিশ্চিত করে দিয়ে যান দুজন।

এরপর সানজামুল ইসলাম ও শাকির হোসেনের জুটি উইকেটে কাটিয়ে দেয় ১৫ ওভার। নির্ধারিত সময়ের ১ ঘণ্টা আগেই ড্র মেনে নেয় দুই দল।

ম্যাচ ড্র হলেও শিরোপা জয়ের পথে অনেকটা এগিয়ে গেল খুলনা। লিগের বাকি আর এক রাউন্ড, খুলনার পয়েন্ট ২৯.৯৬। ঢাকা বিভাগ দুইয়ে আছে ২৪.১ পয়েন্ট নিয়ে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

রাজশাহী ১ম ইনিংস: ১৫১

খুলনা ১ম ইনিংস: ৭৩.১ ওভারে ২০১ (আগের দিন ১৫৪/৪) ( সোহান ৯, নাহিদুল ৩৩*, জিয়াউর ৬, মইনুল ৮, রাজ্জাক ০, রুবেল ২, হালিম ০; ফরহাদ রেজা ২০.১-৩-৪৮-৬, মোহর ১৭-২-৪০-২, সুজন ১১-০-৩৯-০, মুক্তার ১৪-৩-৪০-২, সানজামুল ১১-৩-৩১-০)।

রাজশাহী ২য় ইনিংস: ৬১ ওভারে ১৯১/৭ (অভিষেক ৫১, মিজানুর ৫, জুনায়েদ ০, ফরহাদ হোসেন ২৮ সাব্বির ২৫, ফরহাদ রেজা ১, মুক্তার ৩৯, সানজামুল ২৩*, শাকির ১৭*; রুবেল ৯-০-৩৫-০, হালিম ১০-০-৩৬-২, রাজ্জাক ২৬-৩-৬৯-৪, নাহিদুল ১১-৩-৩২-১, মইনুল ২-০-৫-০, রবি ৩-১-১৪-০)।

ফল: ম্যাচ ড্র

ম্যান অব দা ম্যাচ: রুবেল হোসেন


ট্যাগ:  বাংলাদেশ  রাজ্জাক  ফরহাদ রেজা  জাতীয় লিগ