গোলাপি বলের টেস্টে নানা রঙের ছটা, রোমাঞ্চিত সৌরভ

  • কলকাতা থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-11-20 18:57:34 BdST

bdnews24

এক মুহূর্ত যেন অবসর নেই সৌরভ গাঙ্গুলীর। ভারতের মাটিতে হতে যাওয়া প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট উদ্বোধনের সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে ব্যস্ততা। এরই মধ্যে এলেন ম্যাচের ভেন্যু ইডেন গার্ডেন্সে। জানালেন, বাংলাদেশ ও ভারতের গোলাপি বলের ম্যাচ নিয়ে নিজের রোমাঞ্চের কথা।

শচীন টেন্ডুলকারের দ্বিতীয় শেষ টেস্ট হয়েছিল এই মাঠে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে নিজেদের ইতিহাসের সেরা ব্যাটসম্যানের সেই ম্যাচ দেখতে হাজির হয়েছিলেন স্রেফ হাজার বিশেক দর্শক।

দিবা-রাত্রির টেস্ট ঘিরে কলকাতায় দর্শকদের মধ্যে প্রবল উৎসাহ। এরই মধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে প্রথম চার দিনের সব টিকেট! ইন্দোরে আগের টেস্টে বাংলাদেশ হেরেছে তিন দিনে। কলকাতায় বোলাররা পাবেন আরও বেশি সুবিধা, ম্যাচ শেষ হতে পারে আরও কম সময়ে। তবুও আগ্রহের কমতি নেই।  

গোলাপি বলের ম্যাচকে ঘিরে যেন গোলাপি রঙে সেজেছে কলকাতা। গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি স্থানে জ্বলছে গোলাপি বাতি, কোথাও করা হয়েছে গোলাপি রং। স্টেডিয়ামের স্তম্ভ ঢেকে দেওয়া হয়েছে একই রংয়ের কাপড় দিয়ে।

ম্যাচকে ঘিরে ইডেনে চলছে বিশাল কর্মযজ্ঞ। চারপাশে উৎসব মুখর পরিবেশ। শুরু থেকে দিবা-রাত্রির টেস্টের বড় সমর্থক গাঙ্গুলী। বিসিসিআই প্রধান হওয়ার পর প্রথম সিরিজেই নিজের দলকে রাজি করান গোলাপি বলে টেস্ট খেলতে। তার প্রস্তাবে রাজি হয় বাংলাদেশও, যারা এর আগে ফিরিয়ে দিয়েছিল নিউ জিল্যান্ডকে।

গোলাপি বলের ক্রিকেট সাড়া ফেলবে, অনুমান করতে পারছিলেন গাঙ্গুলী। তবে এতোটা হবে ভাবেননি তিনিও। প্রথম চার দিনের সব টিকেট যে বিক্রি হয়ে যাবে, বুঝতে পারেননি তিনিও।

 “আমি রোমাঞ্চিত। চার দিনের সব টিকেট বিক্রি হযে গেছে। শেষ কবে আমরা দেখেছি, কোনো টেস্টে চার দিনের সব টিকেট বিক্রি হয়ে গেছে?”

টেস্টে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। থাকবেন কলকাতার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। ঘণ্টা বাজিয়ে তারা শুরু করবেন ভারতের মাটিতে প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট। বিমান থেকে ঝাঁপ দিয়ে দুই জন প্যারাট্রুপার মাঠে দুই অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও মুমিনুল হকের হাতে তুলে দিবেন গোলাপি বল।

এমন অসংখ্য আয়োজন আর চমকে ভরা থাকবে ইডেন টেস্টের প্রথম দিন।

লাঞ্চের সময়ে শচীন, গাভাস্কার, কপিল, রাহুল, অনিল সবার উপস্থিতিতে একটা টক শো হবে। চা-বিরতির সময় গলফ কার্টে করে সাবেক অধিনায়করা মাঠ প্রদক্ষিণ করবেন। মিউজিক পারফরম্যান্স থাকবে।”

“দিন শেষে সবার জন্য ফেলিসিটেশন থাকবে। রুনা লায়লার পারফরম্যান্স, জিৎ গাঙ্গুলীর পারফরম্যান্স, সৌমেন্দ্র, সৌরজিতের পারফরম্যান্স, প্রচুর ফাংশন থাকবে।”

অতিথিদের তালিকা বেশ লম্বা। ভারতের বিপক্ষে অভিষেক টেস্টের বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা পেয়েছেন আমন্ত্রণ। বাংলাদেশ ও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অনেকেই আছেন অতিথির তালিকায়। ভারতের অনেক সাবেক অধিনায়ক, ক্রিকেটার পেয়েছেন আমন্ত্রণ পত্র। টেনিস খেলোয়াড় সানিয়া মির্জা, বক্সার মেরি কমের মতো অন্য খেলার তারকারাও পেয়েছেন আমন্ত্রণ।

নিজের হাতে যতটুকু আছে, সাধ্য মতো করছেন গাঙ্গুলী। মাঠে খেলা তো আর তার হাতে নেই। তাই মাঠের খেলা কেমন হবে সেই প্রশ্নে থাকলেন নীরব। উৎসবমুখর একটা টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখতে দায়িত্ব দিলেন বাংলাদেশ ও ভারতের ক্রিকেটারদের। মাঠে ম্যাড়মেড়ে ক্রিকেট হলে যে বৃথা যাবে সব আয়োজন।


ট্যাগ:  বাংলাদেশ  সৌরভ  বাংলাদেশ-ভারত সিরিজ