বোলারদের দাপটের পর উইলিয়ামসনের ফিফটি

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-11-22 14:39:28 BdST

বেন স্টোকস ক্রিজে থাকায় বড় সংগ্রহের আশা বেঁচে ছিল ইংল্যান্ডের। কিন্তু দারুণ বোলিংয়ে ইংলিশদের ইনিংস খুব বেশি দীর্ঘায়িত হতে দেননি নিউ জিল্যান্ড পেসাররা। তবে বোলিংয়ের সেই দাপট ব্যাটিংয়ে থাকেনি। টপ অর্ডারের ব্যর্থতার দিনে দলকে কিছুটা টেনেছেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

৪ উইকেটে ১৪৪ রান নিয়ে মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে নিউ জিল্যান্ড। ৬ উইকেট হাতে রেখে তারা পিছিয়ে ২০৯ রানে। হেনরি নিকোলস অপরাজিত আছেন ২৬ রানে, সঙ্গী বিজে ওয়াটলিংয়ের সংগ্রহ ৬। এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৫৩ রানে অলআউট হয় ইংল্যান্ড।

৪ উইকেটে ২৪১ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করা ইংলিশদেরকে এদিন প্রথম কয়েক ওভার ভালোভাবেই টেনে নিচ্ছিলেন স্টোকস ও অলি পোপ। কিন্তু কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের পরিবর্তে বোলিংয়ে এসে বড় ধাক্কা দেন টিম সাউদি। ফিরিয়ে দেন সেঞ্চুরির পথে থাকা স্টোকসকে।

অফস্টাম্পের বাইরের বলে স্লিপে এই অলরাউন্ডারের দারুণ এক ক্যাচ নেন রস টেইলর। ১৪৬ বলে ১২টি চারে স্টোকস করেন ৯১ রান।

নিজের পরের ওভারে টানা দুই বলে ২৯ রান করা পোপ এবং নতুন ব্যাটসম্যান স্যাম কারানকে ফেরান সাউদি। জোফরা আর্চারকে ফিরিয়ে ইংল্যান্ডকে আরও চাপে ফেলে দেন ট্রেন্ট বোল্ট।

জ্যাক লিচকে সঙ্গী করে নবম উইকেটে প্রতিরোধ গড়েন জস বাটলার। তাদের জুটিতে স্কোরবোর্ডে যোগ হয় ৫২ রান। ১৯৬৯ রান নিয়ে টেস্ট শুরু করা বাটলার এই জুটি গড়ার পথেই স্পর্শ করেন ২০০০ রানের মাইলফলক।

ছবি: আইসিসি

ছবি: আইসিসি

ফিফটির পথে থাকা বাটলারকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন নিল ওয়াগনার। পরের ওভারে স্টুয়ার্ট ব্রডকে বোল্ড করে ইংল্যান্ডকে গুটিয়ে দেয়ার কাজটিও করেন এই পেসার।

১৮ রানে অপরাজিত থাকেন লিচ। ৩২ ওভারে ৭ মেডেনসহ ৮৮ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন সাউদি। ওয়াগনারের শিকার তিনটি।

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ওপেনার টম ল্যাথামকে হারায় কিউইরা। অধিনায়ক উইলিয়ামসনের সাথে মিলে দ্বিতীয় উইকেটে ৫৪ রানের জুটি গড়েন আরেক ওপেনার জিত রাভাল। কিন্তু ব্যক্তিগত ১৯ রানে লিচকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যাচ দেন জো ডেনলির হাতে।

উইলিয়ামসনকে বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারেননি টেইলর। তৃতীয় উইকেটে ৩৪ রানের জুটি গড়ার পর ব্যক্তিগত ২৫ রানে স্টোকসের বলে আউট হন অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান। ক্যারিয়ারের ৩১তম ফিফটি পাবার পরই আউট হন উইলিয়ামসন। ৮৫ বলে সাতটি চারে ৫১ রান করা কিউই অধিনায়ককে ফেরান কারান।

শেষ বিকেলের বাকি সময়টা নিরাপদে কাটিয়ে দেন নিকোলস ও ওয়াটলিং।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: (আগের দিন ২৪১/৪) ১২৪ ওভারে ৩৫৩ (বার্নস ৫২, সিবলি ২২, ডেনলি ৭৪, রুট ২, স্টোকস ৯১, পোপ ২৯, বাটলার ৪৩, কারান ০, আর্চার ৪, লিচ ১৮*, ব্রড ১; বোল্ট ৩১-৬-৯৭-১, সাউদি ৩২-৭-৮৮-৪, ডি গ্র্যান্ডহোম ২৩-৫-৪১-২, ওয়াগনার ৩২-৭-৯০-৩, স্যান্টনার ৬-১-২৪-০)

নিউ জিল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৫১ ওভারে ১৪৪/৪ (রাভাল ১৯, ল্যাথাম ৮, উইলিয়ামসন ৫১, টেইলর ২৫, নিকোলস ২৬*, ওয়াটলিং ৬*; ব্রড ১০-৪-২০-০, আর্চার ১৪-৪-৪০-০, কারান ১০-৪-২৮-২, লিচ ১২-১-২৯-১, স্টোকস ৪-০-১৬-১, রুট ১-০-২-০)


ট্যাগ:  ইংল্যান্ড  নিউ জিল্যান্ড  টেস্ট  ম্যাচ রিপোর্ট