রুট-বার্নসের সেঞ্চুরিতে ইংল্যান্ডের লড়াই

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-12-01 14:01:59 BdST

bdnews24

১৪ ইনিংস পর সেঞ্চুরির দেখা পেলেন জো রুট। রোরি বার্নস তুলে নিলেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। দুজনের বড় জুটিতে ইংল্যান্ড কাটালো শুরুর বিপর্যয়। চা বিরতির পর দুই উইকেট তুলে নিয়ে লড়াইয়ে ফিরলো নিউ জিল্যান্ড। বৃষ্টিতে খেলা দ্রুত শেষ হওয়ার আগে হ্যামিল্টন টেস্টের তৃতীয় দিনে ব্যাটে-বলে হলো লড়াই হলো চমৎকার।

সেডন পার্কে রোববার ৫ উইকেটে ২৬৯ রান নিয়ে দিন শেষ করেছে ইংল্যান্ড। ৫ উইকেট হাতে রেখে ১০৬ রানে পিছিয়ে রয়েছে সফরকারীরা। রুট অপরাজিত ১১৪ রানে। সঙ্গী অলি পোপের সংগ্রহ ৪।

২ উইকেটে ৩৯ রান নিয়ে দিন শুরু করা ইংল্যান্ডকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যায় রুট ও বার্নসের জুটি। দুজন মিলে তৃতীয় উইকেটে যোগ করেন ১৭৭ রান।

দুই ব্যাটসম্যানই ইনিংস গড়েছেন ধীরেসুস্থে। নিউ জিল্যান্ড বোলারদেরকে খুব একটা সুযোগ দেননি কেউই। ৯৭ বলে ফিফটি স্পর্শ করেন বার্নস। পঞ্চাশ ছুঁতে রুট খেলেন ১৪৫ বল। ২ উইকেটে ১৪২ রান নিয়ে লাঞ্চ বিরতিতে যায় ইংল্যান্ড।

বিরতির পরও দুই ব্যাটসম্যানের জুটি এগিয়েছে দারুণ স্বচ্ছন্দে। ফিল্ডারের ভুলে আগের দিন দুইবার জীবন পাওয়া বার্নস এদিনও ব্যক্তিগত ৮৭ রানে বেঁচে গেছেন রান-আউট থেকে।

সুযোগ কাজে লাগিয়ে এরপর সেঞ্চুরি তুলে নিতে ভুল করেননি বার্নস। নিল ওয়েগনারের বলে ফাইন লেগ দিয়ে বের করা সিঙ্গেলে স্পর্শ করেন তিন অঙ্ক।

দুই বল পর অবশ্য সেই রান-আউট হয়েই মাঠ ছেড়েছেন। ডাবল নেওয়ার চেষ্টায় ছিলেন, কিন্তু জিত রাভালের দ্রুতগতির থ্রো ধরে বার্নস ক্রিজে পৌঁছানোর আগেই স্টাম্প ভেঙে দেন বিজে ওয়াটলিং। ২০৯ বলে ১৫টি চারে ১০১ রান করে ফেরেন বার্নস।

বেন স্টোকসের সাথে রুটের জুটিতে এরপর আসে আরও ৪৪ রান। নতুন বলে সাউদির দারুণ এক ডেলিভারিতে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে স্টোকস করেন ২৬ রান।

ধীর ব্যাটিং করা রুট অবশ্য সেঞ্চুরিতে পৌঁছান ওয়েগনারকে টানা দুই চার মেরে। ২৫৯ বলে পান শতকের দেখা। টেস্টে এটিই তার সবচেয়ে ধীরগতির সেঞ্চুরি। ফেব্রুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সেঞ্চুরির পর মাঝের ১৪ ইনিংসে আর তিন অঙ্ক ছুঁতে পারেননি ইংল্যান্ড অধিনায়ক।

অভিষিক্ত ব্যাটসম্যান জ্যাক ক্রলি বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারেননি রুটকে। ওয়েগনারের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে করেন ১ রান।

দিনের খেলার আরও প্রায় ১০ ওভার বাকি থাকতে বৃষ্টি হানা দেয় সেডন পার্কে। মিনিট পনেরো পর বৃষ্টি থামলেও দিনের খেলা আর মাঠে গড়ায়নি আম্পায়ারদের সিদ্ধান্তে।

২৬ ওভারে ৩ মেডেনসহ ৬৩ রান খরচায় ২ উইকেট নিয়েছেন টিম সাউদি। ওয়েগনার ও ম্যাট হেনরির শিকার একটি করে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নিউ জিল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৩৭৫

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৯৯.৪ ওভারে ২৬৯/৫ (বার্নস ১০১, সিবলি ৪, ডেনলি ৪, রুট ১১৪*, স্টোকস ২৬, ক্রলি ১, পোপ ৪*; সাউদি ২৬-৩-৬৩-২, হেনরি ২১.৪-৫-৫৬-১, ওয়েগনার ২৩-৩-৭৬-১, মিচেল ১২-৪-২৮-০, স্যান্টনার ১৭-৪-৩২-০)


ট্যাগ:  ইংল্যান্ড  ম্যাচ রিপোর্ট  নিউ জিল্যান্ড  টেস্ট