ওয়ালশের বীরত্ব ও কটরেলের ছক্কায় উইন্ডিজের নাটকীয় জয়

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-01-10 11:30:44 BdST

রোমাঞ্চ ও উত্তেজনা যেন প্রতিটি বলে। শেষ ওভারের একেকটি বল মেলে ধরল নাটকীয়তার নতুন রূপ। ফুল টসে রান নেই, ইয়র্কারে সিঙ্গেল। পরপর দুই বলে রান আউট হতে হতেও না হওয়া। পঞ্চম বলে ছক্কায় সবকিছুর অবসান। নয় নম্বরে নেমে হেইডেন ওয়ালশের বীরোচিত ব্যাটিং যে মঞ্চ তৈরি করে দিয়েছিল, সেখানেই দারুণ ছক্কায় শেষাঙ্কের নায়ক শেলডন কটরেল। আইরিশদের হৃদয় ভেঙে ক্যারিবিয়ানদের জয়।

রুদ্ধশ্বাস উত্তেজনার দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ১ বল বাকি রেখে ১ উইকেটের জয়ে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয় নিশ্চিত করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তিন ম্যাচে সিরিজের প্রথমটিতে ক্যারিবিয়ানরা জিতেছিল সহজেই।

বারবাডোজে বৃস্পতিবার ২৩৭ রানের পুঁজি নিয়ে আইরিশরা লড়েছে নিজেদের উজাড় করে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পেরে ওঠেনি ক্যারিবিয়ান লেজের দৃঢ়তায়।

দায় আছে আইরিশদেরও। চাপের সময়টায় তারা পারেনি নিজেদের ধরে রাখতে। শেষ ওভারে পারেনি দুইবার রান আউটের সুযোগ কাজে লাগাতে।

লেগ স্পিনার ওয়ালশ যখন ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজ তখন ধুঁকছিল ১৪৮ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে। একপাশ আগলে লোয়ার অর্ডারদের নিয়ে লড়াই করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান ওয়ালশ।

শেষ ৩ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রয়োজন ছিল ১৫ রান, উইকেট ২টি। মার্ক অ্যাডায়ারকে পরপর দুটি বাউন্ডারিতে সমীকরণ সহজ করে দেন আলজারি জোসেফ। কিন্তু পরের বলেই আউট হয়ে যান জোসেফ।

৪৯তম ওভারে অফ স্পিনার অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইন দেন কেবল ১ রান। শেষ ওভারে প্রয়োজন পড়ে ৫ রান। বোলার সেই অ্যাডায়ার। প্রথম বলে রান নিতে পারেননি ওয়ালশ, দ্বিতীয় বলে নেন সিঙ্গেল। তৃতীয় বলে চরম নাটকীয়তা রান আউট নিয়ে।

বোলিং প্রান্তে অ্যাডায়ার যখন বেলস ফেলে দেন, ব্যাটসম্যান কটরেল তখন ক্রিজের ধারেকাছে ছিলেন না। কিন্তু একটা পর্যায়ে অ্যাডায়ারের হাত থেকে ফসকে যায় বল। বেলস ভাঙার মুহূর্তে বল তার হাতে ছিল কিনা, প্রায় ৫ মিনিট নানা ভাবে রিপ্লে দেখেও নিশ্চিত হতে পারেননি তৃতীয় আম্পায়ার। বেঁচে যান কটরেল।

পরের বলে দুই ব্যাটসম্যান প্রায় এক প্রান্তেই চলে গিয়েছিলেন। ফেরার চেষ্টায় উইকেটে পড়ে যান কটরেল। কিন্তু এবার ফিল্ডারের থ্রো ধরতেই পারেননি অ্যাডায়ার। পরের বলে কাভারের ওপর দিয়ে ছক্কা মেরে উল্লাসে মাতেন কটরেল।

নয় নম্বরে নামা ওয়ালশ অপরাজিত থেকে যান ৪৬ রানে। তবে ওয়ালশ বা কটরেল নন, টানা দুই ম্যাচে ম্যান অব দা ম্যাচ আলজারি জোসেফ। তার বোলিং ফিগার আগের ম্যাচের হুবুহু, ১০-১-৩২-৪। সঙ্গে এবার দশে নেমে খেলেছেন ১৬ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস।

কেনসিংটন ওভালে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা আইরিশদের হয়ে একমাত্র ফিফটি করেছেন পল স্টার্লিং। ৭ চার ও ১ ছক্কায় ওই ওপেনার করেছেন ৭৯ বলে ৬৩।

মিডল অর্ডারে উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড, সিমি সিং থিতু হয়েও পারেননি বড় স্কোর গড়তে। কেভিন ও’ব্রায়েসের আগ্রাসী ব্যাটিং থেমে যায় ২৬ বলে ৩১ করে। আইরিশরা পারেনি আড়াইশ করতে।

তবে পেরেছে তারা লড়াই করতে। ২৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। মিডল অর্ডারে নিকোলাস পুরান ও কাইরন পোলার্ড সহজাত ব্যাটিংয়ে ম্যাচে ফেরান ক্যারিবিয়ানদের। ৪৪ বলে ৫২ রান আসে পুরানের ব্যাট থেকে, ৪ ছক্কায় ৩২ বলে ৪০ পোলার্ড।

তবে এই দুজনকেসহ ৭ রানের মধ্যে ৩ উইকেট নিয়ে আবার ম্যাচ নিজেদের দিকে টেনে নেয় আয়ারল্যান্ড। সেখান থেকেই শুরু ক্যারিবিয়ানদের লেজের লড়াই।

অষ্টম জুটিতে ক্যারি পিয়ের ও ওয়ালশ যোগ করেন ৫২ রান। নবম উইকেটে ওয়ালশ ও জোসেফের জুটিতে আসে ৩২।

তার পর শেষ জুটির সেই নাটকীয়তা। সেখানে শেষ হাসি ক্যারিবিয়ানদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আয়ারল্যান্ড: ৫০ ওভারে ২৩৭/৯ (স্টার্লিং ৬৩, ডেলানি ১৪, বালবার্নি ১০, পোর্টারফিল্ড ২৯, ও’ব্রায়েন ৩১, টাকার ১, সিমি ৩৪, অ্যাডায়ার ১৩, ম্যাকব্রাইন ৮, ম্যাককার্থি ১৭*, র‍্যানকিন ৪*, কটরেল ১০-০-৫১-৩, শেফার্ড ১০-১-৩৯-০, পিয়ের ১০-০-৫০-১, জোসেফ ১০-১-৩২-৪, পোলার্ড ২-০-১৫-০, ওয়ালশ ৮-০-৪৭-০)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ৪৯.৫ ওভারে ২৪২/৯ (হোপ ২৫, লুইস ৭, হেটমায়ার ৭, কিং ০, পুরান ৫২, পোলার্ড ৪০, শেফার্ড ৮, পিয়ের ১৮, ওয়ালশ ৪৬*, জোসেফ ১৬, কটরেল ৭*; ম্যাকব্রাইন ১০-০-৩৭-২, ম্যাককার্থি ১০-১-২৮-২, র‍্যানকিন ১০-০-৩৬-১ অ্যাডায়ার ৭.৫-০-৫১-১, সিমি ১০-০-৪৮-৩, ডেলানি ২-০-৩৩-০)।

ফল: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: ৩ ম্যাচের সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২-০তে এগিয়ে

ম্যান অব দা ম্যাচ: আলজারি জোসেফ


ট্যাগ:  আয়ারল্যান্ড  ওয়েস্ট ইন্ডিজ  কটরেল  ওয়ালশ