উইলিয়ামসের সেঞ্চুরিতে জিম্বাবুয়ের রেকর্ড রান

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-01-27 22:01:53 BdST

bdnews24
ছবি: আইসিসি

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আগের টেস্টের প্রতিচ্ছবি ছিল প্রথম ঘণ্টার ব্যাটিংয়ে। ব্রেন্ডন টেইলর ক্রিজে যাওয়ার পর বদলে গেল জিম্বাবুয়ে। বাড়ল রানের গতি। শন উইলিয়ামস ও সিকান্দার রাজাও ওয়ানডে ঘরানার ব্যাটিংয়ে দ্রুত রান তুললেন। তাতে টেস্টের প্রথম দিনে নিজেদের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়ল স্বাগতিকরা।

দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনের খেলা শেষে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৩৫২ রান। এর আগে কোনো টেস্টে প্রথম দিনে দলটির সর্বোচ্চ ছিল ৮ উইকেটে ৩৪৪, ২০১৭ সালে কলম্বোয় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।

হারারেতেই প্রথম টেস্টের প্রথম দিন ২ উইকেটে ১৮৯ রান করেছিল জিম্বাবুয়ে। শেষ পর্যন্ত ইনিংসে ১৪৮ ওভারে থেমেছিল ৩৫৮ রানে। এবার সাড়ে তিনশ ছাড়িয়ে গেল প্রথম দিনেই। 

সেই ম্যাচে নেতৃত্বের অভিষেকে রান দেওয়ার সেঞ্চুরি করেছিলেন উইলিয়ামস। এবার ব্যাট হাতে দলকে পথ দেখালেন, খেললেন সেঞ্চুরি ইনিংস। টেস্টে যা তার দ্বিতীয়। ঝড় তুলে ফিফটি করেন টেইলর। অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার রাজাও চমৎকার ব্যাটিংয়ে তুলে নেন ফিফটি।

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ঘণ্টায় ১৩ ওভারে কেবল ২১ রান তোলে জিম্বাবুয়ে। পরের ঘণ্টার প্রথম ওভারে প্রিন্স মাসভাউরেকে ফিরিয়ে শুরুর জুটি ভাঙেন লাহিরু কুমারা।

গিয়েই ছক্কা-চার হাঁকান ক্রেইগ আরভিন। তবে যেতে পারেননি বেশিদূর। ফিরেন ১১ বলে ১২ রান করে।

ব্যক্তিগত ৭ রানে কিপারকে ক্যাচ দিয়েও আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে বেঁচে যান টেইলর। এরপর চড়াও হন বোলারদের ওপর; বিশেষ করে আগের টেস্টে পাঁচ উইকেট নেওয়া বাঁহাতি স্পিনার লাসিথ এম্বুলদেনিয়ার ওপর।

লাঞ্চের পর দারুণ এক ডেলিভারিতে কেভিন কাসুজাকে বোল্ড করে ৬৫ রানের জুটি ভাঙেন সুরঙ্গা লাকমল। পরে এলবিডব্লিউ করে থামান টেইলরকে। অভিজ্ঞ এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানের ৬২ মিনিট স্থায়ী ৬২ বলে খেলা ৬২ রানের ইনিংস গড়া ১০ চার ও এক ছক্কায়।

দ্রুত দুই উইকেট হারানো জিম্বাবুয়ে প্রতিরোধ গড়ে উইলিয়ামস ও রাজার ব্যাটে। ক্রিজে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরই ছক্কা হাঁকান অধিনায়ক। সেই শুরু, এরপর খেলে গেছেন শট। কখনও কখনও ঝুঁকিও নেন।

শুরুতে একটু সাবধানী ছিলেন রাজা। একটা কঠিন সুযোগও দেন। পরে তিনিও বড় শট খেলা শুরু করেন। দ্রুত এগোতে থাকে জিম্বাবুয়ে।

নিজের ১৯তম ওভারে রান দেওয়ার সেঞ্চুরি হয়ে যায় এম্বুলদেনিয়ার। বেশ খরুচে বোলিং করলেও তাকে আক্রমণে রেখে দেন লঙ্কান অধিনায়ক। এম্বুলদেনিয়াই ভাঙেন ১৫৯ রানের জুটি। বিদায় করেন চারটি চার ও দুই ছক্কায় ৯৯ বলে ৭২ রান করা রাজাকে।

সেঞ্চুরি ছোঁয়ার পর বেশিদূর যেতে পারেননি উইলিয়ামস। স্লগ সুইপ করার চেষ্টায় লাইন মিস করে হন বোল্ড। ১০ চার ও তিন ছক্কায় ১৩৭ বলে ফিরেন ১০৭ রান করে।

দিনের বাকি সময়টা টিনোটেন্ডা মুতুমবদজিকে নিয়ে কাটিয়ে দেন রেজিস চাকাভা। কিপার-ব্যাটসম্যান চাকাভা খেলছেন ৩১ রানে। মুতুমবদজির রান ১০। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংস: ৯০ ওভারে ৩৫১/৬ (মাসভাউরে ৯, কাসুজা ৩৮, আরভিন ১২, টেইলর ৬২, উইলিয়ামস ১০৭, রাজা ৭২, চাকাভা ৩১*, মুতুমবদজি ৯*; লাকমল ১৭-৬-৩১-২, বিশ্ব ১৪-১-৪৫-০, কুমারা ১৫-৩-৪৬-১, এম্বুলদেনিয়া ৩০-৩-১৫৩-১, ধনাঞ্জয়া ১৪-০-৬৭-২)


ট্যাগ:  ম্যাচ রিপোর্ট  শ্রীলঙ্কা  জিম্বাবুয়ে  উইলিয়ামস  টেস্ট