বাংলাদেশে তো এটা বাদ দেওয়ার সময়: মুশফিক

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-02-24 21:42:03 BdST

bdnews24

টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম আট বছরে মুশফিকুর রহিমের সেঞ্চুরি ছিল মাত্র একটি। পরের সাত বছরে তার সেঞ্চুরির সংখ্যা ছয়টি। যার তিনটি আবার ডাবল। পরিসংখ্যান বলছে, ক্যারিয়ারের সেরা সময়ে আছেন মুশফিক। তবে তিনি তুলে ধরলেন বাংলাদেশের বাস্তবতা।

মুশফিকের টেস্ট অভিষেক ২০০৫ সালে। প্রথম সেঞ্চুরি পান ২০১০ সালে, চট্টগ্রামে ভারতের বিপক্ষে। ২০১৩ সালে নিজের দ্বিতীয় সেঞ্চুরিকে রূপ দেন ডাবলে। বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে গড়েন ডাবল সেঞ্চুরির কীর্তি, গলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলেন ২০০ রানের ইনিংস।

৩২ বছর বয়সী মুশফিক সোমবার পেয়েছেন ক্যারিয়ারের তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মিরপুর টেস্টে করেছেন অপরাজিত ২০৩ রান। একই দলের বিপক্ষে ২০১৮ সালের নভেম্বরে নিজেদের সবশেষ টেস্টেও ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি।

এই ক্যারিয়ার চিত্র বলছে, এখনই সেরা সময়ে আছেন মুশফিক। ২৮ থেকে ৩৪ বছর বয়সে ব্যাটসম্যানদের জন্য সেরা সময় বলেও মনে করা হয় ক্রিকেটে। তবে বাংলাদেশে তো তিরিশ পেরুনো মানেই শেষের দিকে এগিয়ে যাওয়া! মুশফিক তুলে ধরলেন সেটিই।

“বাংলাদেশে তো ভাই এই সময়টা বাদ দেওয়ার সময়, এটা সেরা সময় কখনও আমি ভাবি না। ব্যক্তিগতভাবে যদি জিজ্ঞেস করেন, একই সঙ্গে আমি মনে করি, বিশ্ব ক্রিকেটে যদি খেয়াল করে দেখেন, এই সময়টায় একজন ব্যাটসম্যান কিংবা বোলারের পরিপক্ব খেলোয়াড় হওয়া উচিত। কারণ, ১০-১২ বা ১৫ বছর খেলার পর যে সময়টা সবাই ব্যয় করেছে, আপনার এখন ফিরিয়ে দেওয়ার সময়, সেটা ধারাবাহিকভাবে।”

“এর আগেও বলেছি, প্রত্যেকটা ইনিংস আমার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এই সময়গুলো আমি আর ফিরে পাব না। আশা করছি, যতটুক করা যায়, একশ-দুইশ বা তিনশ, যেটাই হোক, যেন নট আউট থাকতে পারি। যেন আমার নিজের জন্যও ভালো হয়, দলের জন্যও।”


ট্যাগ:  বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে  মুশফিক