লিটনের সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের বড় রান

  • সিলেট থেকে আরিফুল ইসলাম রনি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-03-01 17:09:25 BdST

bdnews24

ছক্কার শটে বল যখন উড়ছে, লিটন দাস তখন উইকেটে কাতরাচ্ছেন! পায়ে ক্র্যাম্প নিয়ে খুঁড়িয়ে মাঠ ছাড়লেন এই ওপেনার। তবে তার আগেই দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে দলকে দাঁড় করিয়ে গেছেন শক্ত ভিতে। পরের ব্যাটসম্যানদের সৌজন্যে বাংলাদেশ পেয়েছে প্রত্যাশিত বড় স্কোর।

ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে রোববার সিলেটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩২১ রান করেছে বাংলাদেশ।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের এটি সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। ২০০৯ সালে বুলাওয়ায়োতে ৩২০ ছিল আগের সর্বোচ্চ।

১০৫ বলে ১২৬ রানের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলে লিটন মাঠ ছাড়েন পায়ে টান লাগায়।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল বাংলাদেশ। অনুমিতভাবেই উইকেটের ঘাস ছেটে ফেলা হয় অনেকটা। সবুজের খানিকটা ছোঁয়া অবশ্য ছিল উইকেটে। তাতে ব্যাটিংয়ের জন্য ভালো হয়েছে আরও, বল এসেছে ব্যাটে।

দুই ওপেনারের শুরু ছিল দুই রকম। প্রথম ওভারেই দারুণ টাইমিংয়ে চার মেরে শুরু করেন লিটন। এগিয়ে যান অনায়াসে। তাকে ন্যূনতম ভোগাতে পারেনি কোনো বোলার। তামিমের ব্যাটিংয়ে ছিল অস্বস্তি। আত্মবিশ্বাসের অভাব ছিল স্পষ্ট। ধুঁকেছেন প্রান্ত বদলাতে।

পাওয়ার প্লের ১০ ওভার শেষে তামিমের রান ছিল ৩১ বলে ১৫। উদ্বোধনী জুটির পঞ্চাশ আসে একাদশ ওভারে।

তামিমের ভোগান্তি শেষ করেছেন অভিষিক্ত অফ স্পিনার ওয়েসলি মাধেভেরে। ৪৩ বলে ২৪ করে এলবিডব্লিউ হয়ে তামিম ফিরেছেন দলের একমাত্র রিভিউ নষ্ট করে।

দলের ইনিংস গতি পায় পরের জুটিতে। ওয়ানডেতে ফেরার ইনিংসে শান্ত ছিলেন আত্মবিশ্বাসী। লিটন তো ততক্ষণে জমে গেছেন। উইকেটে দুজনের বোঝাপড়া ছিল দারুণ। এক-দুই এসেছে ক্রমাগত। আলগা বল পেয়েছে সাজা। মাধেভেরেকে বেরিয়ে এসেছে ছক্কায় উড়িয়েছেন শান্ত, ডেনাল্ড টিরিপানোকে হুক করে।

৭৭ বলে ৮০ রানের জুটি থেমেছে আম্পায়ারের ভুলে। ইমপ্যাক্ট ছিল অফ স্টাম্পের বেশ বাইরে, তবু এলবিডব্লিউ দেন আম্পায়ার। ছিল না কোনো রিভিউ। ৩৮ বলে শান্তর রান ছিল ২৯।

লিটন ৪৫ বলে ছুঁয়েছিলেন ফিফটি। শতরান ছুঁতে লেগেছে ৯৫ বল। ডনাল্ড টিরিপানোকে ফ্লিকে বাউন্ডারিতে পাঠিয়ে পা রাখেন কাঙ্ক্ষিত ঠিকানায়।

৩৪ ওয়ানডেতে লিটনের এটি দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে চোখধাঁধানো সেই ইনিংসের পর আবার স্বাদ পেলেন শতরানের।

সেঞ্চুরির পর হয়ে উঠছিলেন আরও ভয়ঙ্কর। টিরিপোনোর এক ওভারে আদায় করেন তিনটি বাউন্ডারি। মাধেভেরেকে ৯০ মিটার লম্বা ছক্কায় আছড়ে ফেলেন বাইরে। ওই শট খেলতে গিয়ে পায়ে লাগে টান।

মুশফিকুর রহিম ফিরে যান এর আগেই। নিরীহ এক ডেলিভারি গ্লাইড করতে গিয়ে ক্যাচ দিয়েছেন উইকেটের পেছনে।

তবে দলকে পথ হারাতে দেয়নি মাহমুদউল্লাহ ও মোহাম্মদ মিঠুনের জুটি। ৬৮ রান যোগ করেছেন দুজন ৫৭ বলে। ২৮ বলে ৩২ এসেছে মাহমুদউল্লাহর ব্যাট থেকে, পঞ্চম ওয়ানডে ফিফটিতে ৪১ বলে ৫০ মিঠুন।

ঝড়ো ব্যাটিংয়ে শেষটা করেন মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন। ক্রিস এমপোফুর করা শেষ ওভারে তিন ছক্কাসহ ১৫ বলে অপরাজিত ২৮ করেছেন লম্বা চোট কাটিয়ে ফেরা অলরাউন্ডার। শেষ ১০ ওভারে বাংলাদেশ তুলেছে ৯৪ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ৩২১/৬ (তামিম ২৪, লিটন ১২৬ (আহত অবসর), শান্ত ২৯, মুশফিক ১৯, মাহমুদউল্লাহ ৩২, মিঠুন ৫০, সাইফ ২৮*, মিরাজ ৭, মাশরাফি ০*; এমপোফু ১০-০-৬৮-২, মুম্বা ৮-০-৪৫-১, মাধেভেরে ৮-০-৪৮-১, টিরিপানো ৭-০-৫৬-১, রাজা ১০-০-৫৬-০, মুটুমবোদজি ৭-০-৪৭-১)।


ট্যাগ:  বাংলাদেশ  ম্যাচ রিপোর্ট  লিটন  ওয়ানডে  বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ