বাংলাদেশকে হারানোর পথের সন্ধানে জিম্বাবুয়ে

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-03-08 16:29:48 BdST

bdnews24

বাংলাদেশকে হারানোর পথের সন্ধানে মরিয়া জিম্বাবুয়ে। শন উইলিয়ামস মনে করছেন, ব্যর্থতার বৃত্ত ভাঙার জন্য সেরা সংস্করণ এবার সামনে; মৌলিক ব্যাপারগুলো উন্নতি করে নির্ভয় ক্রিকেট খেলতে পারলে একটা পথ বের হয়ে যেতে পারে।

২০১০ সালের পর থেকে ওয়ানডেতে বাংলাদেশে স্বাগতিকদের কোনো ম্যাচে হারাতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। সে তুলনায় টি-টোয়েন্টিতে রেকর্ড বেশ ভালো। দুই দেশের ১১ ম্যাচের চারটিতে জিতেছে তারা, এর তিনটিই এসেছে বাংলাদেশে।
 
মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সোমবার শুরু হবে দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। সফরে কোনো জয় না পাওয়া দলকে উজ্জ্বীবিত রাখার কাজটা বেশ কঠিন। ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক উইলিয়ামস জানালেন, অতীত ধরে পড়ে না থেকে নতুন শুরুর দিকে তাকিয়ে জিম্বাবুয়ে।
 
“অন্য দুই সংস্করণ এখন অতীত। আমাদের পূর্ণ মনোযোগ টি-টোয়েন্টিতে। দলের সঙ্গে আলোচনায় আমি ওয়ানডের প্রসঙ্গই তুলিনি। নেট সেশনে ছেলেদের যথেষ্ট শক্তিশালী মনে হয়েছে। সবার ভাবনা পরিস্কার। তবে খেলার মৌলিক দিকগুলো সামলাতে হবে আমাদের। ওয়ানডেতে মৌলিক জায়গাগুলোয় আমরা ছিলাম খুবই দুর্বল।”
 
“নেটে যদিও কোনো চাপ ছিল না, তবে আজকে সবাইকে খুব ভালো মনে হয়েছে। আমি আত্মবিশ্বাসী যে টি-টোয়েন্টিতে যদি স্বাধীনতা নিয়ে খেলা যায়, তাতে আমরা চিত্র বদলে দিতে পারব।”
 
সফরে বোলিং একদমই ভালো হয়নি জিম্বাবুয়ের। টেস্টে ১৫৪ ওভার বল করে নিতে পেরেছে কেবল ৬ উইকেট। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ তিন ম্যাচেই করেছে তিনশ ছাড়ানো রান। সিরিজে স্বাগতিকদের ব্যাট থেকে এসেছে চারটি সেঞ্চুরি। কোনো ম্যাচেই প্রতিপক্ষের ১০ উইকেট নিতে পারেনি জিম্বাবুয়ের বোলাররা।
 
শুধু বোলিংকে কাঠগড়ায় তুলছেন না উইলিয়ামস। এই বাঁহাতি অলরাউন্ডার মনে করেন, ব্যাটিং ও ফিল্ডিংও নিজেদের মান অনুযায়ী করতে পারেননি তারা।
 
“শুধু বোলিং নয়, আমাদের ব্যাটিং, ফিল্ডিং সবই ধুঁকছে। যেটি বললাম, মৌলিক দিকগুলোয় আমরা ভালো করতে পারিনি। ছোট ছোট ব্যাপারগুলোই বড় পার্থক্য গড়ে দেয়। আমরা এখানে নিজেদের হতাশ করেছি। এসব নিয়ে সবার সঙ্গে আমি কথা বলেছি, আমরা কাজ করছি। এখানে আমি কোনো ছাড় দিতে দিতে চাই না এবং শৃঙ্খলা ফিরে আসতে দেখতে চাই।”

 ইনিংস ব্যবধানে একমাত্র টেস্ট হারার পর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশড হয়েছে জিম্বাবুয়ে। উইলিয়ামস মনে করেন, স্কিল পার্থক্য গড়ে দিয়েছে দুই দলের মধ্যে।
 
“আমাদের স্কিল ভালো ছিল না। আবারও বলছি, মৌলিক জায়গাগুলোয় আমরা খুবই বাজে ছিলাম। ওয়ানডেতে দুটি নতুন বলে দুই প্রান্ত থেকে বোলিং, আমরা উইকেট নিতে পারিনি। প্রথম ১০ ওভারে ওদের উড়ন্ত সূচনার পর মাঝের ওভারগুলোতে স্পিনারদের জন্য রাশ টেনে ধরা কঠিন ছিল। আবার, স্পিনাররা যেহেতু মাঝে উইকেট নিতে পারেনি, শেষ দিকে পেসারদের কাজ হয়ে পড়েছে কঠিন। নতুন বলে তাই আমাদের উন্নতি করতে হবে এবং দ্রুত করতে হবে।”


ট্যাগ:  জিম্বাবুয়ে  বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ  উইলিয়ামস