শ্রীলঙ্কায় আরও আগে যাওয়ার ভাবনায় বিসিবি

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-08-15 18:56:05 BdST

bdnews24

করোনাভাইরাসের এই কঠিন সময়ে ক্রিকেটারদের ক্যাম্পের জন্য ‘জীবাণুমক্ত’ পরিবেশ তৈরি করা সহজ নয়। অনেক কিছুই এখানে জড়িয়ে, যা বিসিবির হাতে নেই। তাই ঝুঁকি কমাতে, দেশে ক্যাম্প সংক্ষেপ করে শ্রীলঙ্কায় বেশি সময় থেকে ক্যাম্প করার পরামর্শ দিয়েছেন বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান।

প্রাথমিক ভাবনা অনুযায়ী, আগামী ২৩ সেপ্টেম্বরের দিকে জাতীয় দল ও এইচপি দলের শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার কথা। ২৪ অক্টোবর শুরু হবে মুমিনুল হকদের তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। সে সময় নিজেদের সিরিজে চলে যাবে এইচপি দল।

সফরের আগে সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে দেশের মাটিতে ১০-১২ দিন অনুশীলনের ভাবনার কথা জানিয়েছিলেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান। শনিবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জাতীয় শোক দিবসে দরিদ্রদের মধ্যে খাবার বিতরণের পর বিসিবি প্রধান জানান, দেশে ক্যাম্পের সময়টা কমিয়ে আনার পক্ষে তিনি।

“আমরা দেশের মাটিতে খেলা শুরু করছি না, কিন্তু শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার কথা বলছি। কেন? কারণ একটাই। আমরা গত কিছু দিন আগ পর্যন্ত জানি শ্রীলঙ্কা ও নিউ জিল্যান্ড নিরাপদ…শ্রীলঙ্কায় গত কয়েক মাস ধরে কোনো নতুন পজিটিভ পাওয়া যাচ্ছে না দেখে আমাদের মনে হয়েছে, খেলা যদি শুরু করতে হয় তাহলে ওখানে যাওয়াই নিরাপদ। সেই জন্য আমরা প্রথমে শ্রীলঙ্কাকে বেছে নিয়েছি।”

“এখানে ঝুঁকি আছে…সেই জন্য আমি ওদের বলেছি, যত অনুশীলন প্রয়োজন সেটা এখানে কমিয়ে শ্রীলঙ্কায় নিয়ে যেতে। এখানে ক্যাম্প সংক্ষেপ করে যদি আমরা শ্রীলঙ্কায় যাই, যেহেতু সেখানে ধরা পড়ছে না তাই ধরে নিতে পারি, আমাদের চেয়ে ওদের অবস্থা অনেক নিরাপদ। অন্তত এই মুহূর্তে। এজন্য ওখানে বেশি সময় থেকে, বেশি সময় ধরে যদি ক্যাম্প করি, সেটা ভালো হবে।”

ঈদের আগে থেকে শুরু হয়েছে বিসিবির তত্ত্বাবধানে একক অনুশীলন। ধীরে ধীরে বাড়ছে ক্রিকেটারের সংখ্যা। এখান থেকে সামনের চ্যালেঞ্জের প্রাথমিক একটা ধারণা পেয়েছেন নাজমুল হাসান।

“একক অনুশীলন যারা করছে ওদের কারো পরীক্ষা করানো হয়নি। মাঠে অনেকে কাজ করেছে, আরও অনেকেই আছে। এদের কারো পরীক্ষা করানো হয়নি। সুতরাং এরা যে নিরাপদ তা কিন্তু বলা যাচ্ছে না। জাতীয় দলের ক্যাম্প শুরু হলে ওদের যে হোটেলে রাখব, সেই হোটেলের সবাইকে তো আমরা পরীক্ষা করাতে পারব না। হাউসকিপিং, খাবার-দাবারের দায়িত্বে কে বা কারা থাকবে তা তো আমরা জানি না।”

তিন ধাপে ক্রিকেটারদের পরীক্ষা করাবে বিসিবি। ক্যাম্পের জন্য হোটেল কিংবা কোনো বাসায় কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে ক্রিকেটারদের। বিসিবি সভাপতি জানালেন, সম্ভাব্য সব কিছুর জন্যই প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। 

“ওরা তো বাড়িতে থাকতেই যার যার পরীক্ষা করিয়ে আসবে। আমাদের বলে দেওয়া ল্যাব থেকে পরীক্ষা করাতে হবে, যেখানে-সেখানে করলে হবে না। আমরাই করাব তবে বাসা থেকে করে আসতে হবে। আশা করি, সবাই নেগেটিভ হবে। যারা নেগেটিভ তাদেরকে আমরা ক্যাম্পে ডাকব।”

“ক্যাম্পে আসার পরপর আমরা আরেকবার করোনাভাইরাস পরীক্ষা করাব। এর তিন দিন পর আবার করাব। মোট তিনটা পরীক্ষা হবে। এখানে আসার পথেও করোনা আক্রান্ত হতে পারে। যতটুকু সম্ভব স্ট্রিক্ট হব।“

“এমন একটা হোটেল কিংবা বাসা চাই যেখানে বাইরের কেউ নেই। ফাইভ স্টার হোটেলে যেতে হলে একটা দুইটা ফ্লোর পুরোপুরি ওদের জন্য আলাদা থাকতে হবে। ওখানে বাইরের কোনো ক্লিনার, কেউ ঢুকতে পারবে না। ওই দুই ফ্লোরের ক্লিনার উপরেও যেতে পারবে না নিচেও নামতে পারবে না। আইসোলেশন যেভাবে করতে হয় সেভাবে করতে হবে। হোটেল না পেলে বাসা দেখতে হবে।”


ট্যাগ:  বাংলাদেশ  বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজ