পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

ম্যাচ পরিস্থিতিতে মুমিনুল-মুশফিকদের অনুশীলন

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-09-24 19:05:24 BdST

শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে অনিশ্চয়তার মাঝে নিজেদের প্রস্তুতিতে নতুন মাত্রা এনেছে বাংলাদেশ। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচ পরিস্থিতিতে অনুশীলন করেছেন মুমিনুল হক, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিমরা। 

গত মার্চের পর থেকে ক্রিকেটের বাইরে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে লম্বা বিরতিতে স্কিলে খানিকটা মরচে পড়ে যাওয়ার শঙ্কা অনেকের। কার কি অবস্থা, ম্যাচের একটা কল্পিত পরিস্থিতি দিয়ে বুঝে নিতে চাইলেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

সবার আগে নেট পান তামিম ইকবাল ও সাদমান ইসলাম এবং মোহাম্মদ মিঠুন ও ইয়াসির আলি চৌধুরি। দুই জুটির জন্য ছিল দুই রকম চ্যালেঞ্জ, ভিন্ন বোলার সেট।

দুই বাঁহাতি ওপেনারের নেটে ছিলেন তাসকিন আহমেদ ও মাহমুদুল হাসান। পরে আসেন দুই অফ স্পিনার মাহমুদউল্লাহ ও নাঈম হাসান।

শুরুতেই সাদমানকে একবার বোল্ড করা তাসকিন একটু ভুগছিলেন লাইন নিয়ে। একবার লাইন পেয়ে যাওয়ার পর অবশ্য বাকিটা সময় বেশ ভালো বল করেছেন তিনি। তরুণ পেসার হাসান শুরু থেকে বল করেছেন দারুণ লাইন-লেংথে। গতিও ছিল বেশ ভালো।

যথারীতি তামিম ছিলেন সাবলীল। ব্যাট করেছেন আস্থার সঙ্গে। একটু ভুগছিলেন সাদমান।

দুই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মিঠুন ও ইয়াসির শুরুতে সামলান রুবেল হোসেন, আল আমিন হোসেন ও সৌম্য সরকারকে। রুবেলের বাড়তি বাউন্স মাঝে মধ্যেই পরীক্ষায় ফেলেছে তাদের।

পরে বোলিংয়ে আসেন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ও মিরাজ। বোলিং অ্যাকশনে বেশ পরিবর্তন আনা তাইজুল ছিলেন সাবধানী। গতি ছিল বেশ কম। বেশ ফ্লাইট দিয়েছেন, বাড়তি বাউন্স পেয়েছেন। মূলত একটা লাইন-লেংথে বল করে যাওয়ার দিকেই ছিল তার নজর। মিরাজের বোলিংয়ে ছিল ছন্দে ফেরার আভাস। 

এরপর ব্যাটিংয়ে আসেন মুমিনুল ও নাজমুল হোসেন শান্ত এবং মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ। শুরুতে দুই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান খেলেন হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমানকে। অন্য সেটে মুশফিক-মাহমুদউল্লাহকে সে সময় বোলিং করছিলেন রুবেল ও খালেদ। একটু পরেই অবশ্য নেট বদল করেন মুস্তাফিজ ও রুবেল।

বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে বল কিছুটা বাইরে করতে দেখা গেছে মুস্তাফিজকে। ডানহাতি ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে বল ভেতরে ঢোকানোর যে চেষ্টা করছেন বাঁহাতি এই পেসার, সফল হওয়ার আভাস মিলেছে এদিন। দুই নেটেই হাসান ছিলেন দুর্দান্ত।

সবশেষ ব্যাটিংয়ে আসেন ইমরুল কায়েস ও সৌম্য সরকার এবং লিটন দাস ও মোসাদ্দেক হোসেন। ঘুরে ফিরে প্রায় সব বোলাররা বোলিং করেন তাদের। এই পর্ব শেষে ড্রেসিং রুমের সামনে লম্বা সময় ধরে খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলেন ডমিঙ্গো।