পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

৫ উইকেটের পর মাশরাফি বলছেন ‘রহস্য নেই’

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-12-14 23:32:52 BdST

bdnews24

বোলিংয়ে রহস্য কিছু নেই, সেটি স্পষ্টই। সেই চেনা লাইন-লেংথ, কিছু কাটার, ব্যাটসম্যান বুঝে ফিল্ডিং সাজানো আর সে অনুযায়ী বুদ্ধিদীপ্ত বোলিং। এই তো। কিন্তু দীর্ঘ বিরতি দিয়ে ফেরার পরপরই ক্যারিয়ারের প্রথম ৫ উইকেট, বিস্ময়ের উপকরণ তো যথেষ্টই মজুদ। মাশরাফি বিন মুর্তজা নিজে সায় দিচ্ছেন না সেই ভাবনায়। দেখছেন না আলাদা কোনো বিশেষত্বও।

গত মার্চের পর এই টুর্নামেন্ট দিয়েই ক্রিকেটে ফিরেছেন মাশরাফি। কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে এই আসরে তার খেলা নিয়ে ছিল অনিশ্চয়তা। নাম ছিল না প্লেয়ার্স ড্রাফটে। পরে ফিটনেস পরীক্ষায় উতরে, মাত্র দুই সেশন বোলিং অনুশীলন করে, লটারিতে দল পেয়ে গত ৮ ডিসেম্বর মাঠে নামেন প্রায় ৯ মাস পর।

প্রথম দুই ম্যাচেও যথেষ্ট কার্যকর ছিল তার বোলিং। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের পাশাপাশি নেন একটি করে উইকেট। চমকে দেন সোমবার প্রথম কোয়ালিফায়ারে। গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের বিপক্ষে নেন ৫ উইকেট।

৩৭ বছর পেরিয়ে, ১৬৫ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার পর প্রথম ৫ উইকেটের স্বাদ। সেটিও এমন দীর্ঘ বিরতির পরপরই, মাশরাফি আরও একবার চিনিয়েছেন নিজের জাত। ম্যান অব দা ম্যাচ হওয়ার পর জানতে চাওয়া হলো এমন সাফল্যের রহস্য। মাশরাফি বললেন, তিনি স্রেফ নিজের কাজটুকুই করে গেছেন।

“কোনো রহস্য নেই সাফল্যের। শুধু ভালো জায়গায় বল করে যাওয়া, এটাই। গত আট-নয় মাস ক্রিকেট খেলা সহজ ছিল না। আমার জন্য আদর্শ ছিল না। তবে দলের সিনিয়র ক্রিকেটাররা আমাকে অনেক আত্মবিশ্বাস দিয়েছে।”

“শুধু নিজের জায়গায় বল করে যাওয়া, এটাই আমি অনেক বছর ধরে করে আসছি। এটাই আত্মবিশ্বাসের একমাত্র কারণ বলা যায়। আমি ঠিক জায়গায় বল করে যেতে পারি। বাকি যা হওয়ার তা তো হবেই।”

শারীরিক ফিটনেস নিয়ে ধুঁকতে হয়েছে অনেক দিন। তবে মানসিক ফিটনেস তো বরাবরই তার বড় শক্তি! মাশরাফি জানালেন, মনের জোরেই তিনি ছুটে চলেছেন শত প্রতিকূলতা পেরিয়ে।

“ক্রিকেট মানসিকতার কথা। সময়টা কঠিন ছিল। করোনা পজেটিভ হওয়া সহজ ছিল না। আমি ফিট হওয়ার চেষ্টা করছিলাম, তখনই হ্যামস্ট্রিং চোটে পড়ি। সহজ ছিল না। তবে আমি লেগে ছিলাম। আত্মবিশ্বাস ছিল এই টুর্নামেন্টটা খেলতে পারব। আল্লাহর কাছে শুকরিয়া, এটাই হয়েছে। এরপর কিছু উইকেট পাওয়ায় নিজে আত্মবিশ্বাস পেয়েছি।”

মাশরাফির পারফরম্যান্সে কোয়ালিফায়ার জিতে ফাইনালে পা রেখেছে জেমকন খুলনা।