পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

নতুন অর্জনের আশায় মহামারীকালে প্রথম সফরে বাংলাদেশ

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-02-23 18:16:47 BdST

সফরের আগে ক্যাম্প বা অনুশীলন নেই। প্রথাগত মিডিয়া সেশনও নেই। বিদায় বেলায় বিমানবন্দরে ক্রিকেটারদের কাছাকাছি যাওয়াও কঠিন সংবাদকর্মীদের। সবই মহমারীকালিন বাস্তবতা। গত কয়েক মাসে এরকম অনেক কিছুর সঙ্গেই পরিচয় হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের। অপেক্ষা এবার নতুন অভিজ্ঞতার, মহামারীকালে প্রথম সফর! সেই সফর এমন দেশে, দ্বিপাক্ষিক লড়াইয়ে যেখানে কখনোই জয়ের স্বাদ পায়নি বাংলাদেশ।

তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির সিরিজ খেলতে মঙ্গলবার বিকেলে নিউ জিল্যান্ডের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছে বাংলাদেশ দল।

কিউইদের বিপক্ষে এর আগে তাদের দেশে তিন সংস্করণ মিলিয়ে ২৬ ম্যাচ খেলে একটিতেও জিততে পারেনি বাংলাদেশ। এবার যাওয়ার আগে বিমানবন্দরে ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল ছোট্ট করে বলে গেলেন, অধরাকে তারা ধরতে চান এই দফায়।

“নিউ জিল্যান্ডের কন্ডিশন বরাবরই আমাদের জন্য কঠিন। তবে অসম্ভব কিছুই না। নিউ জিল্যান্ডে আমরা যা কোনোদিন অর্জন করতে পারিনি, চেষ্টা করব এবার যেন সেটা বদল করতে পারি। আমরা আশাবাদী।”

নিউ জিল্যান্ডে বরাবরই বাংলাদেশের বড় প্রতিপক্ষ সেখানকার কন্ডিশন। প্রচণ্ড বাতাস ও তীব্র শীতে জবুথবু দল মাঠের লড়াইয়েই পিছিয়ে পড়েছে বারবার। তবে এবার মাঠে নামার আগেই অপেক্ষায় কঠিন আরেকটি পরীক্ষা, যেটির নাম কোয়ারেন্টিন।

সফরের শর্ত অনুযায়ী তিন দফা কোভিড পরীক্ষায় নেগেটিভ হয়ে বিমানে চেপেছে বাংলাদেশের ৩৫ সদস্যের বহর। তাদের প্রথম গন্তব্য ক্রাইস্টচার্চ। সেখানে পৌঁছানোর পর আবার কোভিড পরীক্ষায় নেগেটিভ হওয়া সাপেক্ষে শুরু হবে কোয়ারেন্টিন। দলের ঠিকানা হবে ক্রাইস্টচার্চের অদূরে লিংকন ইউনিভার্সিটি হাই-পারফরম্যান্স সেন্টারে। সেখানেই কোয়ারেন্টিন দুই সপ্তাহের।

কোভিডকালে দেশে জৈব-সুরক্ষা বলয়ের অভিজ্ঞতা হয়েছে ক্রিকেটারদের। তবে বিদেশ সফরে কোয়ারেন্টিনে থাকা এবারই প্রথম। ১৪ দিনের প্রথম ৭ দিনই মূল পরীক্ষা। এসময় ঘরবন্দি থাকতে হবে সবাইকে। পরস্পরের সঙ্গে মেশার সুযোগ নেই। ঘরের দরজায় খাবার দিয়ে যাওয়া হবে। সেখান থেকে নিয়ে খেতে হবে। রুম-টয়লেট-কাপড় পরিষ্কার, গোছগোছ, সবকিছুই করতে হবে নিজেকে।

অষ্টম দিন থেকে জিম ও সীমিত পরিসরে অনুশীলনের সুযোগ থাকবে। কয়েকজনের গ্রুপে ভাগ হয়ে নিজেদের ঝালিয়ে নিতে পারবেন ক্রিকেটাররা।

নিউ জিল্যান্ডে একটি সুবিধা অবশ্য আছে, ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনের পর কোভিড নেগেটিভ হওয়া সাপেক্ষে একদম মুক্ত জীবন কাটানো যাবে। ক্রিকেট বিশ্বের অন্য কোথাও এই সুযোগ আপাতত আর নেই।

সফরের আগে বাংলাদেশের প্রস্তুতি খুব আদর্শ হয়নি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের পর খুব বেশি সময় ছিল না, নিউ জিল্যান্ডে গিয়েও ঘরবন্দি থাকতে হবে, সব মিলিয়ে তাই দেশে কোনো ক্যাম্প হয়নি। তবে নিউ জিল্যান্ডে কোয়ারেন্টিন শেষে কুইন্সটাউনে ৫ দিনের ক্যাম্প করবে দল। স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেটোরি দলের সঙ্গে যোগ দেবেন সেখানে। ওই ক্যাম্প হবে প্রস্তুতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

সফর শুরুর সময় মানসিকভাবেও খুব চাঙা থাকার কথা নয় ক্রিকেটারদের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে অপ্রত্যাশিত রেশ কিছুটা রয়ে গেছে এখনও। এরপর সাকিব আল হাসানের আইপিএল খেলা নিয়ে বিতর্ক, সামনে চুক্তিতে নতুন ধারার সংযুক্তি, এসব নিয়েই সরগরম ছিল দেশের ক্রিকেট। ক্রিকেটারদের মনোজগতেও এগুলো নাড়া দেওয়ার কথা।

যাওয়ার আগে অবশ্য সৌম্য সরকার বিমানবন্দরে বলে গেলেন, মানসিকভাবে সবাই ভালো অবস্থায়ই আছেন। জয় খরা কাটানোর আশা তার কণ্ঠেও।

“অবশ্যই ভালো কিছু হবে। সবাই যেভাবে মানসিকভাবে ফিট হয়েছে বা মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়েছে, নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে আশা করি ভালো কিছুই হবে।”

“ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডেতে আমরা ভালো করেছি। নিউ জিল্যান্ডেও ওয়ানডে সিরিজ আছে। আশা করি ভালো ফল নিয়ে ফিরতে পারব। (কখনোই জিততে না পারা) সেখানে যে ধারা আছে, সেটা যেন আমরা ভাঙতে পারি, জিতে যেন ফিরতে পারি, সেই আশা থাকবে।”

তৃতীয় সন্তান জন্মের সময় স্ত্রীর পাশে থাকতে এই সফর থেকে ছুটি পেয়েছেন সাকিব আর হাসান। পরিবারের সঙ্গে তিনি এখন আছেন যুক্তরাষ্ট্রে।

দলের সঙ্গে এবার পর্যবেক্ষক হিসেবে যাচ্ছেন বিসিবি পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। দলের সঙ্গে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের ‘কমিউনিকেশন গ্যাপ’ মেটাতে্ এখন থেকে প্রতি সফরেই এরকম একজন বোর্ড পরিচালককে পাঠানো হবে।

সফরে ওয়ানডে সিরিজের ম্যাচ তিনটি হবে ২০, ২৩ ও ২৬ মার্চ। আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগের অংশ এটি। টি-টোয়েন্টি সিরিজের তিন ম্যাচ ২৮, ৩০ মার্চ ও ১ এপ্রিল।

নিউ জিল্যান্ড সফরের বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, মোসাদ্দেক হোসেন, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন কুমার দাস, মাহমুদউল্লাহ, আফিফ হোসেন, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম শেখ, তাসকিন আহমেদ, আল আমিন হোসেন, শরিফুল ইসলাম, হাসান মাহমুদ, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেন, মেহেদি হাসান, নাসুম আহমেদ।