পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

বাংলাদেশের ‘চমকের’ প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে নিউ জিল্যান্ড

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-03-19 10:06:46 BdST

bdnews24
নিউ জিল্যান্ডের কোচ গ্যারি স্টিড।

তরুণ ও অচেনা পেসারদের দিয়ে নিউ জিল্যান্ডকে চমকে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। তবে এই যুগে কী আর কাউকে আড়াল করে রাখা যায়! নিউ জিল্যান্ড কোচ গ্যারি স্টিড জানিয়ে দিলেন, বাংলাদেশের স্কোয়াডের সবার খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ করেই তারা নামছেন মাঠের লড়াইয়ে।

নিউ জিল্যান্ডে কিউইদের বিপক্ষে কোনো সংস্করণেই কখনও জয়ের স্বাদ পায়নি বাংলাদেশ। সেই ধারা কাটাতে এবার ভিন্ন কিছু করতে চায় দল। ডানেডিনে বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ কোচ ডমিঙ্গো বলেন, “আমাদের বেশ কজন তরুণ ফাস্ট বোলার উঠে আসছে, নিউ জিল্যান্ড হয়তো ওদের আগে সেভাবে দেখেনি। আমার ধারণা, তারা হয়তো এই পেসারদের দেখার আশাও করছে না। কিন্তু ওরা দারুণ সম্ভাবনাময়।”

বাংলাদেশ কোচের কথা পৌঁছে যায় নিউ জিল্যান্ড কোচ স্টিডের কানেও। এখনও পর্যন্ত দারুণ সফল এই কোচ জানান, পেশাদার যে কোনো দলের মতোই তারা নিজেদের কাজ সেরে রেখেছেন।

“তাদের হাতে থাকা সব বিকল্প আমরা খুঁজে দেখেছি এবং আমাদের সবটুকু কাজ করে রেখেছি। বাংলাদেশ ক্রমশ উন্নতির পথে থাকা একটি দল এবং মনে হচ্ছে, দলের গভীরতা তাদেরও বাড়ছে। আমরা তাদের হালকাভাবে নেব না। আমার মনে হয়, গত তিন-চার বছরে ওরা আগের চেয়ে বেশ ভালো মানিয়ে নিতে শিখেছে।”

নিউ জিল্যান্ডের শক্তির গভীরতা গত কিছুদিনে বেশ স্পষ্ট বোঝা গেছে। বিভিন্ন সংস্করণে অনেকের চোট ও ক্রিকেটারদের ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে খেলানোর পরও দলের সাফল্য ঈর্ষণীয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতেও তাদের হয়ে ওয়ানডে অভিষেক হবে তিন জনের, দুই ব্যাটসম্যান ডেভন কনওয়ে, উইল ইয়াং ও পেস বোলিং অলরাউন্ডার ড্যারিল মিচেল।

মূলত অন্যদের চোটের কারণেই সুযোগ পাচ্ছেন এই তিন জন। কেন উইলিয়ামসন না থাকায় কনওয়ের অভিষেক নিশ্চিত ছিল মোটামুটি আগেই। পরে রস টেইলর প্রথম ওয়ানডে থেকে ছিটকে যাওয়ায় তার জায়গায় খেলবেন ইয়াং।

জন্মভূমি দক্ষিণ আফ্রিকা ছেড়ে নিউ জিল্যান্ডে আসার পর স্বপ্ন পূরণের অভিযানে ঠিক পথেই আছেন কনওয়ে। এর মধ্যেই কিউইদের হয়ে ১১টি টি-টোয়েন্টি খেলে পারফর্ম করেছেন দুর্দান্ত। ২৯ বছর বয়সী বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের গড় সেখানে ৫২.২৮, স্ট্রাইক রেট ১৪৫.২৩। ২৮ বছর বয়সী ইয়াং এর মধ্যেই খেলেছেন ২টি টেস্ট।

এই দুজনের প্রতিভা ও সামর্থ্যে দলের আস্থার কথা বললেন কোচ স্টিড।

“কেন ও রসের মতো দুজনের বিকল্প হয় না। কিন্তু ডেভন ও উইল যে সুযোগটি পাচ্ছে, ওদের জন্য তা রোমাঞ্চকর। তারা দুজনই দারুণ ক্রিকেটার। ঘরোয়া ক্রিকেটে আমরা তা দেখেছি, আন্তর্জাতিক পর্যায়েও। দুজনই সুযোগের জন্য অনেক অপেক্ষা করেছে, মুখিয়ে থাকবে নামতে এবং আমি নিশ্চিত, নিজেদের সেরাটাই দেবে।”

মিচেলের সুযোগ এসেছে চোটের কারণে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম না থাকায়। ২৯ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার খেলে ফেলেছেন ৪টি টেস্ট ও ১২ টি-টোয়েন্টি। টেস্ট সেঞ্চুরির স্বাদও পেয়েছেন জানুয়ারিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে।

প্রথম ওয়ানডে শুরু শনিবার বাংলাদেশ সময় ভোর চারটায়।