পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

হাসান-আফ্রিদির তোপে বিধ্বস্ত জিম্বাবুয়ের ব্যাটিং

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-04-29 21:59:30 BdST

bdnews24
জিম্বাবুয়ের আরেকটি উইকেট নিয়ে পাকিস্তান দলের উদযাপন। ছবি: পাকিস্তান ক্রিকেট

ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে আগে ব্যাট করার সুবিধা কাজে লাগাতে পারলেন না জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানরা। হাসান আলি ও শাহিন শাহ আফ্রিদির বোলিং তোপে স্বাগতিকরা গুটিয়ে গেল দুই সেশনেই। পরে আবিদ আলি ও ইমরান বাটের ব্যাটে দৃঢ় ভিত পেল পাকিস্তান।

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে প্রথম টেস্টের প্রথম দিন বৃহস্পতিবার জিম্বাবুয়ে প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে গেছে ১৭৬ রানে। পাকিস্তান দিন শেষ করেছে বিনা উইকেটে ১০৩ রান তুলে। ফিফটি করে খেলছেন আবিদ। পঞ্চাশ ছোঁয়ার অপেক্ষায় আছেন বাট।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা জিম্বাবুয়ের বেশিরভাগ ব্যাটসম্যানই আউট হন বাজে শট খেলে। পঞ্চাশ ছাড়াতে পারে কেবল তাদের একটি জুটি। সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন অভিষিক্ত রয় কাইয়া।

হাসান ও আফ্রিদি দুজনই নেন ৪টি করে উইকেট।

টেস্ট শুরুর আগের দিনই বড় এক ধাক্কা খায় জিম্বাবুয়ে। চোট থেকে পুরোপুরি সেরে না ওঠায় এই ম্যাচে খেলতে পারছেন না অধিনায়ক শন উইলিয়ামস। নিজের শেষ পাঁচ টেস্ট ইনিংসে যিনি সেঞ্চুরি করেছেন তিনটি।

কাইয়ার সঙ্গে এ দিন টেস্ট অভিষেক হয়েছে জিম্বাবুয়ের আরও দুজনের-ব্যাটসম্যান মিল্টন শুম্বা ও পেসার রিচার্ড এনগারাভা। পাকিস্তানের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের স্বাদ পেয়েছেন অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার সাজিদ খান।

স্বাগতিকরা উইকেট হারায় দ্বিতীয় ওভারেই। হাসানের বলে বোল্ড হয়ে যান কেভিন কাসুজা। আফ্রিদির কিছুটা বাড়তি বাউন্সে দ্বিতীয় স্লিপে ধরা পড়েন আরেক ওপেনার প্রিন্স মাসভাউরে।

থিতু হয়ে ফেরেন তারিসাই মুসাকান্দা। বাঁহাতি স্পিনার নুমান আলির বল ব্যাট-প্যাডের মাঝে ফাঁক রেখে ডিফেন্স করার চেষ্টায় বোল্ড হন তিনি। হাসানের অফ স্টাম্পের বাইরের বলে আলগা শটে স্লিপে ক্যাচ দেন এই ম্যাচের অধিনায়ক ও দলের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন টেইলর।

তখন ৩০ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ভীষণ বিপদে জিম্বাবুয়ে। সেই ধাক্কা সামাল দেয় তারা দুই অভিষিক্ত কাইয়া ও শুম্বার ব্যাটে। লাঞ্চের আগে এই দুজন আর কোনো বিপদ হতে দেননি।

বিরতির পর দারুণ জমে গিয়েছিল তাদের জুটি। কিন্তু অযথা নন স্ট্রাইক থেকে একটি রানের জন্য ছুটে রান আউটে কাটা পড়েন শুম্বা। ৫০ বলে ৫টি চারে তিনি করেন ২৭ রান। ভাঙে ৫৯ রানের জুটি। ফিফটি থেকে ২ রান দূরে থাকতে হাসানের দুর্দান্ত ইয়র্কারে এলবিডব্লিউ হন কাইয়া। ৯৪ বলে ৭টি চারে গড়া তার ৪৮ রানের ইনিংসটি।

এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে চা বিরতির আগেই শেষ হয় জিম্বাবুয়ের ইনিংস। হাসানের অফ স্টাম্পের বাইরের বলে ব্যাট চালিয়ে স্লিপে ক্যাচ দেন কিপার-ব্যাটসম্যান রেজিস চাকাভা। শেষ তিনটি উইকেট নেন আফ্রিদি। ৪৭ বলে ৪টি চারে ২৮ রানে অপরাজিত ছিলেন ডোনাল্ড টিরিপানো।

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতে সাবধানী ছিলেন আবিদ ও বাট। লেগ স্টাম্পে প্রচুর বল করে নতুন বলে তাদের চেপে ধরার সুযোগ হাতছাড়া করে জিম্বাবুয়ে। থিতু হয়ে যাওয়ার পর শট খেলতে শুরু করেন দুই ব্যাটসম্যানই। কঠিন কিছু সুযোগ এসেছিল কিন্তু সেগুলো কাজে লাগাতে পারেনি স্বাগতিকরা।

৯৫ বলে ১০ চারে ৫৬ রানে ব্যাট করছেন আবিদ। ৮৮ বলে ৪টি চারে ৪৩ রানে অপরাজিত আছেন বাট।

এই ম্যাচ দিয়ে ইতিহাস গড়েছেন জিম্বাবুয়ের আম্পায়ার ল্যাংটন রুসির। প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ আফ্রিকান হিসেবে টেস্ট ম্যাচে আম্পায়ারিং করছেন তিনি। তার সঙ্গে অন-ফিল্ড আম্পায়ার হিসেবে আছেন দক্ষিণ আফ্রিকার মারাইস ইরাসমাস।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংস: ৫৯.১ ওভারে ১৭৬ (মাসভাউরে ১১, কাসুজা ০, মুসাকান্দা ১৪, টেইলর ৫, শুম্বা ২৭, কাইয়া ৪৮, চাকাভা ১৯, টিরিপানো ২৮, চিসোরো ৯, মুজারাবানি ১৪, এনগারাভা ১; আফ্রিদি ১৫.১-৫-৪৩-৪, হাসান ১৫-২-৫৩-৪, নুমান ১১-১,-২৯-১, ফাহিম ৭-৩-১৪-০, সাজিদ ১১-১-৩৭-০)

পাকিস্তান ১ম ইনিংস: ৩০ ওভারে ১০৩/০ (বাট ৪৩*, আবিদ ৫৬*; মুজারাবানি ৯-২-২০-০, এনগারাভা ৯-২-৩২-০, চিসোরো ৬-১-১৭-০, টিরিপানো ৬-১-৩৩-০)।