পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

হাসানের তোপে তিন দিনেই জিতল পাকিস্তান

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-01 19:36:51 BdST

bdnews24
ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করেছেন হাসান আলি। ছবি: পিসিবি

প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত বোলিংয়ের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও আলো ছড়ালেন হাসান আলি। ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে জিম্বাবুয়েকে গুঁড়িয়ে দিলেন দেড়শর নিচে। ফাওয়াদ আলমের দারুণ ব্যাটিংয়ে আড়াইশ রানের লিড পাওয়া পাকিস্তান ম্যাচ জিতে নিল তিন দিনেই।

হারারে স্পোর্টস ক্লাবে সিরিজের প্রথম টেস্টে শনিবার জিম্বাবুয়েকে ইনিংস ও ১১৬ রানে হারিয়ে দুই ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেছে বাবর আজমের দল। লাল বলের ক্রিকেটে এই প্রথম দলটিকে ইনিংস ব্যবধানে হারাল পাকিস্তান।

প্রথম ইনিংসে জিম্বাবুয়ের ১৭৬ রানের জবাবে পাকিস্তান করে ৪২৬ রান। ২৫০ রান পিছিয়ে থাকা স্বাগতিকদের দ্বিতীয় ইনিংস থেমে যায় ১৩৪ রানে।

দলকে বড় জয় এনে দেওয়ার নায়ক হাসান। প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেট নেওয়া এই পেসার এবার নিলেন ৩৬ রানে পাঁচটি। টেস্টে ইনিংসে তার আগের সেরা ছিল ৪৫/৫।

মন্থর উইকেটে হাসানের তোপে জিম্বাবুয়ের কেউই ছুঁতে পারেননি পঞ্চাশ। ত্রিশই পার করেছেন কেবল একজন। ওপেনিংয়ে নামা তারিসাই মুসাকান্দা করেন ইনিংসের সর্বোচ্চ ৪৩ রান।

৬ উইকেটে ৩৭৪ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করা পাকিস্তানের ইনিংস টিকে মাত্র ১৩ ওভার। দিনের পঞ্চম ওভারে পরপর দুই বলে হাসান ও নুমান আলিকে ফিরিয়ে দেন ব্লেসিং মুজারাবানি।

শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে জিম্বাবুয়ের এই পেসারের বলে কট বিহাইন্ড হন ফাওয়াদ। ২০ চারে ১৪০ রান করেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

ব্যাটিংয়ে নেমে কেভিন কাসুজ ও মুসাকান্দের ব্যাটে ভালো শুরুর আভাস ছিল। দুই ওপেনার আস্থার সঙ্গে খেলতে থাকেন। কিন্তু লাঞ্চ বিরতির একটু পরই প্রতিপক্ষ শিবিরে আঘাত হানেন হাসান; কাসুজাকে এলবিডব্লিউ করে ফিরিয়ে দেন তিনি।

এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে স্বাগতিকরা। মিল্টন শুম্বাকে টিকতে দেননি নুমান। থিতু হওয়া মুসাকান্দা কাটা পড়েন রান আউটে। পরের ওভারেই ফাহিম আশরাফের শিকার রয় কাইয়া।

দ্রুত রান তোলার চেষ্টায় থাকা ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেইলরকে ফিরিয়ে দেন নুমান। ১১৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে চা বিরতিতে যায় জিম্বাবুয়ে।

এরপর ধস নামান হাসান। শেষের চার উইকেট নিয়ে তিনি পূর্ণ করেন নিজের পাঁচ উইকেট। মোট ৯ উইকেট নিয়ে জিতে নেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার।

আগামী শুক্রবার সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট হবে এই মাঠেই।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংস: ১৭৬

পাকিস্তান ১ম ইনিংস: (আগের দিন ৩৭৪/৬) ১৩৩ ওভারে ৪২৬ (ফাওয়াদ ১৪০, হাসান ৩০, নুমান ০, সাজিদ ৭, আফ্রিদি ৪*; মুজারাবানি ৩১-৮-৭৩-৪, এনগারাভা ২৯-৪-১০৪-২, চিসোরো ৩৪-৭-৮৯-১, টিরিপানো ২৩-৬-৮৯-৩, শুম্বা ৯-৩-২৯-০, কাইয়া ৭-০-৩৮-০)।

জিম্বাবুয়ে ২য় ইনিংস: ৪৬.২ ওভারে ১৩৪ (কাসুজা ২৮, মুসাকান্দা ৪৩, শুম্বা ৪, টেইলর ২৯, কাইয়া ০, চাকাভা ১৪*, টিরিপানো ২, চিসোরো ০, মুজারাবানি ২, এনগারাভা ৫, মাসভাউরে আহত অবসর; আফ্রিদি ১১-১-৩৫-০, হাসান ১২.২-২-৩৬-৫, ফাহিম ১০-২-২২-১, নুমান ৯-১-২৭-২, সাজিদ ৪-০-৭-০)।

ফল: পাকিস্তান ইনিংস ও ১১৬ রানে জয়ী।

সিরিজ: ২ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে পাকিস্তান।

ম্যান অব দা ম্যাচ: হাসান আলি।