পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

আইপিএলের বাকি অংশ ইংল্যান্ডে আয়োজনের প্রস্তাব

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-07 01:12:58 BdST

bdnews24

ভারতে ভয়াবহ কোভিড পরিস্থিতিতে মাঝপথে স্থগিত হয়ে যাওয়া আইপিএল আবার মাঠে গড়ানো নিয়ে রয়েছে অনিশ্চয়তা। তবে টুর্নামেন্টটির বাকি ম্যাচগুলো আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছে ইংল্যান্ডের কয়েকটি কাউন্টি ক্লাব।

ক্রিকেট ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফোর বৃহস্পতিবারের প্রতিবেদনে বলা হয়, এমসিসি, সারে ও ওয়ারউইকশায়ার এজন্য ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) কাছে চিঠি লিখেছে। তাদের মাঠে আইপিএলের ম্যাচ আয়োজনের প্রস্তাব ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে দেওয়ার জন্য ইসিবির কাছে লিখেছে তারা। ক্লাব তিনটির ঘরের মাঠ যথাক্রমে লর্ডস, দা ওভাল ও এজবাস্টন। সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয়ার্ধে দুই সপ্তাহের মধ্যে টুর্নামেন্ট শেষ করার পরিকল্পনা তাদের।

প্রস্তাবটি গৃহীত হলে আরেক কাউন্টি ক্লাব ল্যাঙ্কাশায়ারের ঘরের মাঠ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডেও ম্যাচ আয়োজন করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যদিও ল্যাঙ্কাশায়ার স্পষ্ট করে জানিয়েছে, চিঠি সম্পর্কে তারা অবগত, তবে সেখানে তাদের স্বাক্ষর ছিল না।

স্থগিত ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টটি শুধু শেষ করাই তাদের ভাবনার মুখ্য বিষয় নয়। কাউন্টি ক্লাবগুলোর যুক্তি, আইপিএল হলে সেরা ছন্দে থেকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যেতে পারবেন বিশ্বের শীর্ষ ক্রিকেটাররা। ভারতে কোভিড পরিস্থিতিতে বিশ্বকাপ সংযুক্ত আরব আমিরাতে সরিয়ে নেওয়ার সম্ভাবনা আছে। সেক্ষেত্রে আইপিএল ইংল্যান্ডে হলে আমিরাতের উইকেটগুলোও তাজা থাকবে বলে ক্লাবগুলোর মত।

টুর্নামেন্টের জৈব-সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে কয়েক জন আক্রান্ত হওয়ার পর গত মঙ্গলবার স্থগিত করা হয় আইপিএলের এবারের আসর। বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানান, স্থগিত আসর নতুন করে শুরুর সম্ভাব্য সময় বা ভেন্যু, কিছু নিয়েই তারা এখনও ভাবতে শুরু করেননি।

আইপিএলের গত আসরের পুরোটাই হয়েছিল আরব আমিরাতে।

স্থগিত টুর্নামেন্টটি আয়োজন করতে হলে বেশ কিছু চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে কাউন্টি ক্লাবগুলোকে। কোয়ারেন্টিন আইন মেনে সারা বিশ্ব থেকে খেলোয়াড় নিয়ে আসা হবে কঠিন। ওই সময়ে টেস্ট সিরিজ খেলতে ইংল্যান্ডে থাকার কথা ভারত দলের। দুই দলের টেস্ট সিরিজ শেষ হবে ১৪ সেপ্টেম্বর। এরপর বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সফরে যাওয়ার কথা ইংল্যান্ডের। বেশিরভাগ দলই এই সময়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিয়ে ব্যস্ত থাকবে।

সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয়ার্ধে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তুলনামূলক ব্যস্ততা কম থাকবে। কাউন্টি দলগুলো তাই মনে করছে, এই সময়ে ইংল্যান্ডে আইপিএল আয়োজন হবে উপযুক্ত সময়।