পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

হাসি ‘নেগেটিভ’, সাইফার্ট ‘পজিটিভ’

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-08 11:08:23 BdST

bdnews24
মাইক হাসি ও টিম সাইফার্ট।

কোভিড পজিটিভ হওয়ার কথা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশের পর নেগেটিভ হতে মাত্র তিন দিন সময় লাগল মাইক হাসির। নতুন করে জানা গেল, কলকাতা নাইট রাইডার্সের কিউই ব্যাটসম্যান টিম সাইফার্ট ও প্রসিধ কৃষ্ণার আক্রান্ত হওয়ার খবর।

চেন্নাই সুপার কিংসের প্রধান নির্বাহী কাসি বিশ্বনাথন শুক্রবার ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানান, তাদের ব্যাটিং কোচ হাসির পরীক্ষার ফল এসেছে নেগেটিভ।

সাবেক এই অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান অবশ্য এখনও চেন্নাইয়ের হোটেলেই কোয়ারেন্টিনে আছেন। অস্ট্রেলিয়ান বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবর, আরেকটি পরীক্ষায় নেগেটিভ হলেই মালদ্বীপে অস্ট্রেলিয়ার অন্য আইপিএল অভিযাত্রীদের সঙ্গে যোগ দিতে পারবেন হাসি।

ভারত থেকে এখন অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশ নিষিদ্ধ হওয়ায় আইপিএলের অস্ট্রেলিয়ানরা এখন আছেন মালদ্বীপে। সময় হলে সেখান থেকে উড়াল দেবেন দেশের পথে।

সাইফার্ট আক্রান্ত হওয়ার দুঃসংবাদ পেয়েছেন দেশের পথে উড়াল দেওয়ার ঠিক আগে। নিউ জিল্যান্ডের আরও বেশ কজনের সঙ্গে চার্টার্ড ফ্লাইটে ফেরার কথা ছিল এই কিপার-ব্যাটসম্যানের। কিন্তু যাত্রার আগে নিয়মিত দুটি পিসিআর পরীক্ষার দুটিতেই পজিটিভ হয়েছেন তিনি।

এই দুই পরীক্ষার আগে ১০ দিনের মধ্যে সাতটি পরীক্ষায় নেগেটিভ হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ সময়ে দুটি পরীক্ষায় আটকে গেলেন। তার মাঝারি ধরনের কিছু লক্ষন আছে বলে জানা গেছে নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটের বিবৃতিতে।

আপাতত আহমেদাবাদে আইসোলেশনে থাকবেন সাইফার্ট। পরে তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে যাওয়া হবে চেন্নাইয়ে, সেখানে হাসির মতোই চিকিৎসা দেওয়া হবে তার।

গত আইপিএলে যুক্তরাষ্ট্রের আলি খানের বদলি হিসেবে সাইফার্টকে দলে নেয় কলকাতা। পরে গত ফেব্রুয়ারিতে নিলামে তাকে নেয় আবার। যদিও এবার কোনো ম্যাচ তিনি খেলতে পারেননি।

কলকাতার চতুর্থ ক্রিকেটার হিসেবে প্রসিধের শরীরে শনাক্ত হয়েছে করোনাভাইরাস। ইএসপিএনক্রিকইনফো শনিবার জানিয়েছে, আইপিএলের জৈব-সুরক্ষা বলয় থেকে বেরুনোর সময় সব পরীক্ষায় উতরে যান এই পেসার। বেঙ্গালোরে নিজ বাসায় গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন তিনি।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল ও ইংল্যান্ড সিরিজের জন্য শুক্রবার ঘোষিত ভারত দলে রিজার্ভ হিসেবে আছেন প্রসিধ।

কলকাতার বরুন চক্রবর্তী ও সন্দিপ ওয়ারিয়ার আক্রান্ত হওয়ার মধ্য দিয়েই আইপিএলের জৈব-সুরক্ষা বলয়ে কোভিডের হানা দেওয়া শুরু। পরে একের পর এক আক্রান্ত হতে থাকায় গত মঙ্গলবার স্থগিত করা হয় আইপিএল।