পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

নতুন ভূমিকায় স্যামি, খেলোয়াড়ী জীবনের ইতি?

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-20 10:57:32 BdST

bdnews24

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) দল সেন্ট লুসিয়া জুকসের অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিয়ে নতুন দায়িত্ব নিয়েছেন ড্যারেন স্যামি। এবারের সিপিএলে জুকসের টি-টোয়েন্টি ‘ক্রিকেট পরামর্শক ও শুভেচ্ছা দূত’ হিসেবে কাজ করবেন এই অলরাউন্ডার।তাতে প্রশ্নও উঠে যাচ্ছে, স্যামির খেলোয়াড়ী জীবনের কি এখানেই শেষ?

প্রশ্নের মূল কারণ, সিপিএল ছাড়া আপাতত আর কোথাও খেলছিলেন না স্যামি। গত অগাস্ট-সেপ্টেম্বরে সিপিএলের পর আর কোনো ধরনের ক্রিকেটে দেখা যায়নি ৩৭ বছর বয়সী অলরাউন্ডারকে।

গত সিপিএলে স্যামির নেতৃত্বে ফাইনাল খেলে জুকস। তবে প্রশ্নবিদ্ধ ছিল স্যামির নিজের পারফরম্যান্স। গোটা আসরে ১২ ম্যাচে তিনি বোলিং করেছিলেন কেবল তিন ওভার, ব্যাটিংয়ে মুখোমুখি হয়েছিলেন মাত্র ৫১ বলের।

দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ী একমাত্র অধিনায়ক স্যামি বিশ্বজয়ে নেতৃত্ব দেওয়ার পরও তার ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ফাইনালের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে কোনো সংস্করণেই আর সুযোগ পাননি তিনি।

ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটেও এখন তার ভিন্ন ভূমিকা প্রকাশ্য হতে শুরু করেছে। পাকিস্তান সুপার লিগের দল পেশাওয়ার জালমির প্রধান কোচ তিনি। খেলোয়াড়ী জীবনের ইতি টানার ঘোষণা যদিও সরাসরি দেননি, তবে জুকসের নতুন দায়িত্ব নেওয়ার পর তার প্রতিক্রিয়ায় ইঙ্গিত তেমন কিছুরই।

“ সেন্ট লুসিয়া জুকসের শুরু থেকেই তাদের নেতৃত্ব দেওয়া ও অংশ হতে পারা দারুণ সন্তুষ্টির। সবাই বলে, সব ভালো কিছুরই শেষ আছে এবং এখানেও সেটা হচ্ছে, তবে আমি ও সেন্ট লুসিয়া জুকস সবসময়ই একই দল হয়ে থাকব।”

“ কোচিংয়ে নাম লেখানোর পর নিজের ভেতরে নতুন তাড়না উপলব্ধি করতে পারছি, যা আমাকে সুযোগ করে দিচ্ছে এখনও দলে অবদান রাখার এবং সিপিএল শিরোপা জয়ে ও ভবিষ্যতের তারকা খুঁজে বের করতে ভূমিকা রাখার।”

স্যামির খেলোয়াড়ী জীবনের সমাপ্তির আরও স্পষ্ট আভাস পাওয়া যায় জুকসের প্রধান কোচ অ্যান্ডি ফ্লাওয়ারের প্রতিক্রিয়ায়।

“ ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাদা বলের ক্রিকেট ও নেতৃত্বের আইকন, সেন্ট লুসিয়া জুকসের হৃৎস্পন্দন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন খেলা থেকে সরে দাঁড়ানোর। দুর্দান্ত একটি ক্যারিয়ার তার, যেখানে তিনি ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতেছেন এবং ছিলেন প্রেরণাদায়ী এক নেতা। এখন দূত হিসেবে, আমার সঙ্গে কোচিং ও মেন্টর হিসেবে আমরা চাই ড্যারেনের সঙ্গে বন্ধন ধরে রাখতে।”