পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

দলের প্রয়োজনে ১১ নম্বরে ব্যাটিংয়েও সমস্যা নেই সাকিবের

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-29 20:29:53 BdST

জাতীয় দলে সাকিব আল হাসানের ব্যাটিং পজিশন নিয়ে আলোচনা-গবেষণা-বিতর্ক চলে বিস্তর। এবার কৌতূহলের পালা ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের দলে তার পজিশন নিয়ে। মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে এবার কোন পজিশনে ব্যাট করবেন, সেটি অবশ্য এখনই খোলাসা করলেন না ঐতিহ্যবাহী দলটির অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়া এই অলরাউন্ডার। তবে জানিয়ে দিলেন, আপত্তি নেই কোনো পজিশনে খেলতেই।

জাতীয় দলে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে আপাতত তিনি ব্যাট করছেন তিন নম্বরে। ক্যারিয়ারের বেশির ভাগ সময় যদিও তাকে দেখা গেছে মিডল অর্ডারে। তবে ২০১৮ সালের শুরু থেকে ওয়ানডেতে তিন নম্বরে নিয়মিত হয়ে সাফল্য পেতে থাকেন। পরে ২০১৯ বিশ্বকাপে অসাধারণ পারফরম্যান্স দেখান এই পজিশনেই।

এরপর এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এই বছরের শুরুতে আবার যখন ফেরেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে তাকে চার নম্বরে খেলায় দল। কিন্তু ওই সিরিজে ও পরে নিউ জিল্যান্ড সফরে তিন নম্বরে কেউ ভালো করতে না পারায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সদ্য সমাপ্ত সিরিজে আবার সাকিবকেই তিনে তুলে আনা হয়।

সাকিব নিজেও নানা সময়ে বলেছেন, সাদা বলের ক্রিকেটে তার পছন্দ তিন নম্বর। টি-টোয়েন্টিতেও এই পজিশনেই স্বচ্ছন্দের কথা জানিয়েছেন নানা সময়ে। যদিও চন্দিকা হাথুরুসিংহে কোচ থাকার সময় এই সংস্করণে তিনে ব্যাট করা নিয়ে সাকিব ও কোচের মতবিরোধের কথা শোনা যায়।

জাতীয় দলে ২০ ওভারের ক্রিকেটে সবশেষ খেলেছেন তিন নম্বরেই। এবার ঢাকা লিগ হতে যাচ্ছে টি-টোয়েন্টি সংস্করণেই।

এবারের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব দল।

এবারের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব দল।

তার ব্যাটিং পজিশন তাই বরাবরই আলোচনার কেন্দ্রে। এবার ঢাকা লিগের আগেও যথারীতি এলো এই প্রসঙ্গ। রাজধানীর একটি হোটেলে শনিবার মোহামেডানের জার্সি উন্মোচন অনুষ্ঠানে তার কাছে জানতে চাওয়া হলো ব্যাটিং পজিশন নিয়ে। সাকিব জিইয়ে রাখলেন কৌতূহল।

“দেখা যাক, দলের সবার সঙ্গে আলাপ করে দলের জন্য যেটা ভালো হয়… আমার কাছে সবসময় একটা ব্যাপার গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়, দলের জন্য যেটা করা যায় ও যেটা করলে দলের ভালো হয়, সেটাই করা। তো সেটার জন্য তিন-চার-পাঁচ-ছয় বা ১১ নম্বর হলেও সমস্যা নেই।”

সাকিব এবার ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলবেন ৫ বছর পর। সবশেষ ২০১৬ সালে খেলেছিলেন তিনি আবাহনী লিমিটেডের হয়ে। এবার খেলবেন আবাহনীর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহামেডানের হয়ে। দায়িত্ব পেয়েছেন নেতৃত্বের। লিগে নিজেদের লক্ষ্যের কথা জানালেন মোহামেডান অধিনায়ক।

“ লক্ষ্য তো অবশ্যই থাকবে যেন সবার থেকে ওপরে থাকতে পারি আমরা। তবে যেহেতু অনেক লম্বা লিগ, এখানে ম্যাচ ধরে এগোনোই ভালো। প্রথম লক্ষ্য হওয়া উচিত প্রথম ম্যাচ জয়। যদি ভালোভাবে শুরু করতে পারি… যেহেতু ব্যাক টু ব্যাক ম্যাচ, টি-টোয়েন্টিতে মোমেন্টাম খুব গুরুত্বপূর্ণ। চেষ্টা থাকবে যেন প্রথম ম্যাচ থেকে মোমেন্টাম পেতে পারি এবং ধরে রাখতে পারি।”

মোহামেডানের ঐতিহ্য দারুণ সমৃদ্ধ হলেও সাফল্যের দিক থেকে দলটি এখন অতীতের কঙ্কাল। ক্রিকেট তো বটেই, দেশের ক্রীড়াঙ্গনের সব খেলায়ই তাদের দুর্দশা চলছে অনেক দিন ধরে। তবে সম্প্রতি ক্লাবের নতুন কমিটি দায়িত্ব নিয়েছে। এবার চিত্র বদলানোর আশা সাকিবের কণ্ঠে।

“ অবশ্যই মোহামেডানের মতো ক্লাবের জন্য এটা হতাশার ব্যাপার। তবে আমি নিশ্চিত, নতুন কমিটিতে যারা এসেছেন, তারা সাধ্যমতো চেষ্টা করবেন এবছর থেকে যেন মোহামেডান ক্লাব এমন হতে পারে যে প্রতি বছর ট্রফি আনবে। শুধু ক্রিকেটে নয়, অন্য খেলায়ও।”

আগামী সোমবার থেকেই শুরু হচ্ছে ঢাকা লিগের খেলা। ১২ দলের আসরে একদিনেই হবে ৬টি করে ম্যাচ।