পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

গুমোট দিনে কিউই পেস আর কোহলির ঝলক

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-06-20 00:32:45 BdST

প্রথম দিনে ছিল বৃষ্টি, দ্বিতীয় দিনে মেঘলা আকাশ আর গুমোট চারপাশ। বিরূপ প্রকৃতির মধ্যেই বিদ্যুচ্চমকের দেখা গেল কিউই পেস আক্রমণ আর বিরাট কোহলির আলো। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে খেলা যতটুকু হলো, লড়াই তাতেই হলো জমজমাট।

প্রথম দিন বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ার পর সাউথ্যাম্পটনে শনিবার খেলা হলো ৬৪.৪ ওভার। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা ভারতের রান ৩ উইকেটে ১৪৬।

ব্যাটিং প্রতিকূল কন্ডিশনে ভারতকে ভালো শুরু এনে দেন রোহিত শর্মা ও শুবমান গিল। লাঞ্চের আগে-পরে মিলিয়ে দ্রুত তিন উইকেটে দারুণভাবে ম্যাচে ফেরে নিউ জিল্যান্ড। এরপর প্রতিরোধ গড়েন কোহলি ও অজিঙ্কা রাহানে।

কোহলি দিনশেষে অপরাজিত ৪৪ রানে। ভারতীয় অধিনায়কের ১২৪ বলের ইনিংসে চার ১টি। সেই একমাত্র বাউন্ডারিও তার প্রথম স্কোরিং। চতুর্থ বলে সেই বাউন্ডারির পর ১২০ বলে আর চার পাননি, এতেই ফুটে ওঠে কতটা লড়াই করে টিকে আছেন তিনি।

সবুজের ছোঁয়া থাকা উইকেটে মেঘলা আকাশের নিচে টস জিতে বোলিংয়ে নামে নিউ জিল্যান্ড। কিন্তু পাঁচ পেসারের পেস আক্রমণ সুবিধা করতে পারেনি শুরুতে। উইকেট ও কন্ডিশন কাজে লাগানোর অতি উত্তেজনায়ই কিনা, লাইন-লেংথে যথেষ্ট ধারাবাহিক হতে পারেননি তারা।

রোহিত ও গিল শুরু করেন সাবধানে। ষষ্ঠ ওভারে আসে প্রথম বাউন্ডারি। এরপর বাউন্ডারি আসতে থাকে নিয়মিতই। ২০ ওভার নিরাপদেই কাটিয়ে দেন দুজন।

অভিজ্ঞ পেসারদের ব্যর্থতার সময়ে দারুণ বোলিং করছিলেন যিনি, সেই কাইল জেমিসন নিউ জিল্যান্ডকে এনে দেন প্রথম উইকেট। লেট আউট সুইঙ্গারে রোহিত বিদায় নেন ৬ চারে ৩৪ রান করে। দ্বিতীয় স্লিপে ডানদিকে ঝাঁপিয়ে দুর্দান্ত ক্যাচ নেন টিম সাউদি। থামে ৬২ রানের উদ্বোধনী জুটি।

নিল ওয়্যাগনার আক্রমণে আসেন ২৪ ওভারের পর। নিজেকে জানান দিতে সময় নেননি মোটেও। প্রথম ওভারেই ফিরিয়ে দেন গিলকে (২৮)।

কোহলি উইকেটে যাওয়ার পরপরই দারুণ এক কাভার ড্রাইভে বাউন্ডারিত শুরু করেন। আরেক প্রান্তে চেতেশ্বর পুজারার শুরুটাও হয় নিজের মতো। প্রথম রানের দেখা পান ৩৬ বল খেলে!

এত সতর্ক ব্যাটিংয়েও অবশ্য লম্বা সময় টিকতে পারেননি পুজারা। বোল্ট দ্বিতীয় স্পেলে ফিরেই ভেতরে ঢোকা দারুণ ডেলিভারিতে এলবিডব্লিউ করে দেন তাকে (৫৪ বলে ৮)। ভারতের রান তখন ৩ উইকেটে ৮৮।

কোহলি আর রাহানে এরপর আর বাড়তে দেননি ভারতের বিপদ। কোহলি বাউন্ডারি আর না পেলেও পুরো সময়ই ছিলেন নিয়ন্ত্রিত। ডিফেন্স, বল ছাড়া আর সুযোগ পেলে শট খেলা, সব মিলিয়ে কিউই পেসারদের দারুণ সামাল দেন তিনি।

রাহানে শুরুতে বেশ কিছুক্ষণ নড়বড়ে থাকলেও সময়ের সঙ্গে হয়ে ওঠেন আত্মবিশ্বাসী। ৪ বাউন্ডারিতে তিনি অপরাজিত ২৯ রানে। কোহলির সঙ্গে তার অবিচ্ছিন্ন জুটির রান ৫৮।

কিউইদের সেরা বোলার ছিলেন সবচেয়ে অনভিজ্ঞ জেমিসন। ১২ ওভারের ৯টিই মেডেন নেন তিনি, ভারতীয়দের অস্বস্তিতেও ফেলেন তিনিই বেশি।

আলোকস্বল্পতায় দুই দফায় খেলা বন্ধ হওয়ার পর এক পর্যায়ে আর শুরু হতেই পারেনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

ভারত ১ম ইনিংস: ৬৪.৪ ওভারে ১৪৬/৩ (রোহিত ৩৪, গিল ২৮, পুজারা ৮, কোহলি ৪৪*, রাহানে ২৯*; সাউদি ১৭-৪-৪৭-০, বোল্ট ১২.৪-২-৩২-১, জেমিসন ১২-৯-১৪-১, ডি গ্র্যান্ডহোম ১১-৬-২৩-০, ওয়্যাগনার ১০-৩-২৮-১)।