পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

কারণ না জানিয়ে বাদ দেওয়ায় কষ্ট লেগেছে ওয়ার্নারের

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-13 20:29:31 BdST

bdnews24

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে দারুণ সফল ডেভিড ওয়ার্নার। আইপিএলে দলটির সর্বোচ্চ রান বাঁহাতি এই ওপেনারের। তার নেতৃত্বেই প্রথম ও সবশেষ শিরোপা জিতেছে হায়দরাবাদ। এবার সময়টা অবশ্য ভালো কাটেনি। নেতৃত্ব হারানোর পর একাদশেও জায়গা হারান তিনি। সেই হতাশা তো আছেই, তবে অস্ট্রেলিয়ান তারকার বেশি খারাপ লেগেছে নেতৃত্ব বা দল থেকে তাকে বাদ দেওয়ার কারণ না জানানোয়।

ওয়ার্নারের নেতৃত্বে ২০১৬ সালে আইপিএল শিরোপা জিতেছিল হায়দরাবাদ। এখন পর্যন্ত দলটির হয়ে ৯৫ ম্যাচ খেলে ২ সেঞ্চুরিতে তার রান ৪ হাজার ১৪। গড় ৪৯.৫৫, স্ট্রাইক রেট ১৪২.৫৯। কিন্তু এবারের আসরে তার পারফরম্যান্স ছিল বেশ বাজে। স্থগিত হওয়ার আগে প্রথম ধাপে ৬ ম্যাচ খেলে করেছিলেন ২ ফিফটি।

মন্থর ব্যাটিংয়ের জন্য পড়েছিলেন সমালোচনার মুখে। দ্বিতীয়ভাগে খেলা ২ ম্যাচের একটিতে খুলতে পারেননি রানের খাতা, আরেকটিতে করেন কেবল ২। আসরে ৮ ম্যাচ খেলা ওয়ার্নারের রান ১৯৫, গড় ২৪.৩৭ ও স্ট্রাইক রেট ১০৭.৭৩।

প্রথম ছয় ম্যাচ পরই তাকে সরিয়ে দেওয়া হয় নেতৃত্ব থেকে। যেখানে মাত্র একটি ম্যাচ জিতেছিল হায়দরাবাদ। পরে জায়গা হারান একাদশেও। কেন উইলিয়ামসের নেতৃত্বেও ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি দলটি, শেষ ৮ ম্যাচে জিতে স্রেফ দুইটিতে।

নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার সময় কিংবা দল থেকে বাদ পড়ার সময় ওয়ার্নারকে জানানো হয়নি কিছুই। স্পোর্টস টুডের সঙ্গে আলাপকালে তার কণ্ঠে হতাশা ছিল কারণ না ব্যাখ্যা করা নিয়েই।

“দেখুন, (অধিনায়কত্ব হারানোর কারণ নিয়ে) আমি শতভাগ নিশ্চিত নই। ট্রেভর বেলিস, ভিভিএস লক্ষ্মণ, টম মুডি ও মুরালির (মুত্তিয়া মুরলিধরন) প্রতি অত্যন্ত শ্রদ্ধা রেখে বলছি, যখন কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, তখন এটি সর্বসম্মত হতে হবে। কিন্তু এখানে জানা যায় না, কে একজন খেলোয়াড়কে নিতে চায়, কে চায় না। দিনশেষে কেবল জানিয়ে দেওয়া হয় যে সে খেলছে না।”

“আমার জন্য হতাশাজনক হলো, কেন আমাকে অধিনায়ক থেকে বাদ দেওয়া হয়েছিল সেটা ব্যাখ্যা করা হয়নি। আমি মনে করি, যদি ফর্ম বিবেচনায় নেওয়া হয় তাহলে এটা হবে কঠিন। কারণ আমার মনে হয়, অতীতে যা কিছু করেছি তাতে সামনের পথচলায় কিছুটা হলেও সম্মান প্রাপ্য, বিশেষ করে যখন এই ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে একশ ম্যাচ (৯৫টি) খেলেছি।”

তবে কারোর প্রতি ক্ষোভ নেই ওয়ার্নারের। জানালেন, এসব ভুলে আইপিএলের পরের আসরেও তিনি খেলতে চান হায়দরাবাদের হয়েই।

“আমার চারটি ম্যাচ খারাপ হয়েছে, যেখানে দুটিতে রান আউট হয়েছি, চেন্নাইয়ের মন্থর উইকেটে। এরপর এমন আচরণ হজম করা কঠিন। তবে আমি মনে করি না, কখনও কারণ জানতে পারব, তাই সামনে এগিয়ে যেতে হবে। আরেকটি নিলাম আসছে, সেদিকে তাকানোর সময়। সানরাইজার্সের প্রতিনিধিত্ব করা এখনও আমার বড় চাওয়া; কিন্তু সিদ্ধান্তটা মালিকের। আর ফ্রাঞ্চাইজি এখন কী ভাবনায় এগোতে চায়।”