পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

প্রয়োজনে নিজেকে একাদশের বাইরে রাখতেও রাজি মর্গ্যান

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-20 02:27:16 BdST

bdnews24

নেতৃত্বে সময়টা খারাপ যাচ্ছে না ওয়েন মর্গ্যানের। তবে ব্যাট হাতে একদমই অচেনা তিনি। তাই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইংল্যান্ড একাদশে তার জায়গা পাওয়া নিয়ে চলছে নানা জল্পনা। তবে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান অকপটেই জানিয়ে দিলেন, প্রয়োজনে নিজেকে একাদশের বাইরে রাখতেও প্রস্তুত তিনি।

চলতি বছর টি-টোয়েন্টিতে হাসছে না মর্গ্যানের ব্যাট। এই সংস্করণে এবছর এখন পর্যন্ত ৩৫ ইনিংসে ব্যাটিং করে তার গড় মাত্র ১৬.৬৩। সর্বোচ্চ ইনিংস অপরাজিত ৪৭ রান। এবারের আইপিএলে সংযুক্ত আরব আমিরাত অংশে ৯ ইনিংসে দুই অঙ্কে যেতে পারেন কেবল একবার!

তবে অধিনায়কত্বে চিরচেনা রূপেই আছেন মর্গ্যান। আইপিএলের এবারের আসরে শুরুতে বেশ ধুঁকেছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। ভারতে হওয়া অংশে ৭ ম্যাচে কেবল দুটিতে জিততে পারে তারা।

আমিরাতে হওয়া দ্বিতীয় অংশে ঘুরে দাঁড়ায় মর্গ্যানের নেতৃত্বাধীন কলকাতা। পরের ৭ ম্যাচের ৫টি জিতে প্লে অফ নিশ্চিত করে। এলিমিনেটর, কোয়ালিফায়ার উতরে জায়গা করে নেয় ফাইনালে। সম্ভাবনা জাগায় ২০১৪ সালের পর প্রথম শিরোপা ঘরে তোলার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চেন্নাই সুপার কিংসের কাছে হেরে স্বপ্ন ভাঙে দলটির।

মর্গ্যানের নেতৃত্বেই ২০১৯ সালে প্রথম বিশ্বকাপ শিরোপা জেতে ইংল্যান্ড। এবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পুনরুদ্ধারের ছক কষছে তারা। কিন্তু এর আগে ব্যাট হাতে তার বাজে ফর্ম তুলছে নানা প্রশ্ন। ইংলিশ অধিনায়ক জানিয়ে দিলেন, নিজের ভাবনা।

“আমি যেটা সবসময়ই বলি, এমন বিকল্প (নিজেকে একাদশের বাইরে রাখা) সবসময়ই খোলা আছে। দলের বিশ্বকাপ জয়ের পথে দাঁড়াতে যাচ্ছি না আমি। রান করতে পারছি না, তবে আমার অধিনায়কত্ব ভালোই হচ্ছে। তাই, উত্তর হচ্ছে হ্যাঁ (একাদশের বাইরে থাকতে রাজি)।”

মূলত মিডল-অর্ডারে ব্যাটিং করে থাকেন মর্গ্যান। মাঝে মধ্যে খেলতে হয় নিচেও। এসব পজিশনে দলের প্রয়োজনে খেলতে হয় ঝুঁকি নিয়ে। তার বিশ্বাস, বাজে সময়ে থেকে বেরিয়ে আসবেন তিনি।

“বোলার না হওয়া, কিছুটা বয়স্ক হওয়া এবং মাঠে তেমন অবদান না রাখতে পারলেও (আইপিএলে) অধিনায়কত্ব উপভোগ করেছি…ব্যাটিংয়ের ক্ষেত্রে, যদি আমি প্রতিটি খারাপ সময় থেকে বেরিয়ে না আসতাম, তাহলে আমি এখানে থাকতাম না।”

“টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ধরন ও যেখানে আমি ব্যাট করি, আমাকে সবসময়ই ঝুঁকিপূর্ণ পথই বেছে নিতে হবে এবং আমি সেটা মেনেও নিয়েছি। যেটার সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে, এই দায়িত্বের ধরনই এমন। যদি দলের নির্দেশনা থাকে, তাহলে আমি ঝুঁকি নিয়েই খেলা চালিয়ে যাব।”

আগামী শনিবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বিশ্বকাপের চলতি আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে ইংল্যান্ড।