পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

‘সবচেয়ে আগ্রাসী ও সফল’ অধিনায়ক কোহলির বিদায়ে স্তুতির জোয়ার

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-01-16 11:54:33 BdST

শুরুতে বিস্ময়, চমক, বিশ্বাস-অবিশ্বাসের দোলা। বিরাট কোহলি টেস্ট নেতৃত্ব ছেড়ে দেবেন এখনই, অনেকের ভাবনার সীমানায় ছিল না হয়তো। প্রাথমিক ধাক্কা কেটে যাওয়ার পর বয়ে যেতে থাকে স্তুতির জোয়ার। ভারতের সফলতম টেস্ট অধিনায়কের নেতৃত্বের অধ্যায় শেষে বর্তমান-সাবেক ক্রিকেটাররা মেতে উঠলেন বন্দনায়।

শুধু ভারতীয় ক্রিকেট নয়, ক্রিকেটবিশ্বকে নাড়িয়ে দেওয়া ঘোষণাটি দেন কোহলি শনিবার। দক্ষিণ আফ্রিকায় সিরিজ হেরে যাওয়ার পরদিন জানিয়ে দেন, নেতৃত্বের ইতি সেখানেই।

গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দিয়ে তিনি বিদায় জানান ২০ ওভারের ক্রিকেটের নেতৃত্বকে। এই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে তাকে সরিয়ে দেওয়া হয় ওয়ানডের নেতৃত্ব থেকে। এবার টেস্টেও ছেড়ে দিলেন দায়িত্ব। আইপিএল দলে ছেড়েছেন আগেই। সব মিলিয়ে কোহলির নামের পাশে এখন আর ‘অধিনায়ক’ শব্দটি নেই কোথাও।

নেতৃত্বের দীর্ঘ পথচলায় বড় কোনো ট্রফি তিনি জিততে পারেননি। তবে স্মরণীয় সব জয় দলকে এনে দিয়েছেন। অধিনায়ক হিসেবে ছাপ রেখেছেন। বিদায়বেলায় তার নেতৃত্বের সেই নানা দিক উঠে এলো সবার কথায়।

ওয়ানডেতে নেতৃত্বের বদলের প্রক্রিয়া নিয়ে যোগাযোগে ঘাটতির অভিযোগ, পাল্টাপাল্টি বক্তব্য মিলিয়ে সৌরভ গাঙ্গুলির সঙ্গে কোহলির সম্পর্ক নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটে কানাঘুষা চলছে বেশ। টুইটারে ভারতীয় বোর্ডের প্রধান জানিয়ে দিলেন, নেতৃত্ব ছাড়ার পেছনে বোর্ডের ভূমিকা নেই।

“বিরাটের নেতৃত্বে ভারতীয় ক্রিকেট সব সংস্করণেই বড় পদক্ষেপে এগিয়ে গেছে। এই সিদ্ধান্ত তার ব্যক্তিগত ও বিসিসিআই সেটিকে সম্মান করে প্রবলভাবে। ভবিষ্যতে এই দলের নতুন উচ্চতায় ওঠার পথে সে গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে থাকবে। দুর্দান্ত একজন ক্রিকেটার… ওয়েল ডান।”

অধিনায়ক না থাকলেও কোহলি যে মাঠে সর্বোচ্চটা উজাড় করে দেবেন, সেটি তুলে ধরলেন কিংবদন্তি শচিন টেন্ডুলকার।

“অধিনায়ক হিসেবে সফল অধ্যায়ের জন্য অভিনন্দন। তুমি সবসময় দলের জন্য শতভাগ দিয়েছো এবং সবসময়ই দেবে। তোমার ভবিষ্যতের জন্য শুভ কামনা।”

ভিভ রিচার্ডস অনেকবারই বলেছেন, তিনি কোহলির বড় ভক্ত। এই ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তির মতে, বিশ্ব ক্রিকেটের সেরা অধিনায়কদের একজন হয়ে থাকবেন কোহলি।

“ভারতের অধিনায়ক হিসেবে দুর্দান্ত সময়ের জন্য অভিনন্দন বিরাট কোহলি। এখনও পর্যন্ত যা অর্জন করেছো, তাতে তুমি গর্বিত হতে পারো এবং নিশ্চিতভাবেই, বিশ্ব ক্রিকেটের সেরা অধিনায়কদের মধ্যে থাকবে তোমার নাম।”

৪০ জয় নিয়ে ভারতের সফলতম টেস্ট অধিনায়ক কোহলি। বিশ্ব ক্রিকেটেই তার চেয়ে বেশি টেস্ট জয়ী অধিনায়ক আছেন আর কেবল তিনজন। দেশের বাইরে তার ১৬ টেস্ট জয়ও ভারতের রেকর্ড। অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট সিরিজ জয়ী প্রথম এশিয়ান অধিনায়ক তিনি। তার নেতৃত্বে ভারত টেস্ট সিরিজ জিতেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কায়। ইংল্যান্ডেও সবশেষ সিরিজে এগিয়ে আছে ২-১ ব্যবধানে, যেটিতে একটি টেস্ট বাকি আছে।

ভারতীয় গ্রেট যুবরাজ সিং মনে করিয়ে দিলেন অধিনায়ক কোহলির অর্জনে সমৃদ্ধ ক্যারিয়ারের কথা।

“কিং কোহলির এই ভ্রমণ দারুণ স্মরণীয়। তুমি যা অর্জন করেছো, খুব কম জনই তা পারে! নিজের সেরাটা দিয়েছো এবং প্রতিবারই খেলেছো চ্যাম্পিয়নের মতো। ক্রমে আরও শক্তিশালী হয়ে ওঠো। এগিয়ে যাও এবং আরও ওপরে ওঠো।”

আরেক ভারতীয় গ্রেট বিরেন্দর শেবাগ বললেন, পরিসংখ্যানই ফুটিয়ে তুলছে কোহলির শ্রেষ্ঠত্ব।

“ভারতের টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে অসাধারণ ক্যারিয়ারের জন্য অভিনন্দন বিরাট কোহলি। পরিসংখ্যান মিথ্যা বলে না। সে শুধু ভারতের সফলতম টেস্ট অধিনায়কই নয়, বিশ্বের সফলদেরও একজন। গর্ব করতেই পারো তুমি এবং ব্যাট হাতে তোমার দাপট দেখতে মুখিয়ে আছি।”

কোহলি যখন নেতৃত্ব পেলেন, ভারত তখন টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে ছিল তলানির দিকে। সেই দল র‌্যাঙ্কিং শীর্ষে ওঠে কোহলির নেতৃত্বে। সাবেক পেসার ইরফান পাঠান বললেন কোহলির সার্বিক প্রভাবের কথা।

“যখনই টেস্টে ভারতীয় অধিনায়কদের প্রসঙ্গ উঠবে, বিরাট কোহলির নাম থাকবে ওপরের দিকে। সেটা স্রেফ ফলাফলের কারণে নয়, অধিনায়ক হিসেবে যে প্রভাব তিনি রেখেছেন, সেই কারণেও।”

দেশের বাইরে ভারতীয় ক্রিকেটের বাস্তবতা বদলের কৃতিত্ব কোহলিকে দিলেন সাবেক ওপেনার ওয়াসিম জাফর।

“বিরাট যখন টেস্ট অধিনায়কের দায়িত্ব নিল, দেশের বাইরে ভারতের একটি টেস্ট জয় ছিল বড় অর্জন। এখন ভারত দেশের বাইরে টেস্ট সিরিজ হারলে সেটা অঘটন। ভারতীয় ক্রিকেটকে সে এতটাই এগিয়ে নিয়ে গেছে এবং এটাই হয়ে থাকবে তার উত্তরাধিকার। সফল অধ্যায়ের জন্য অভিনন্দন।”

অধিনায়ক কোহলির এই সফলযাত্রায় কোচ হিসেবে বেশির সময় সঙ্গী ছিলেন যিনি, সেই রবি শাস্ত্রীর কথায় স্তুতির পাশাপাশি খানিকটা ফুটে উঠল বিষাদের ছোঁয়াও।

“বিরাট, মাথা উঁচু করে বিদায় নিতে পারো তুমি। অধিনায়ক হিসেবে তোমার যা অর্জন, খুব কম মানুষেরই তা আছে। অবশ্যই ভারতের সবচেয়ে আগ্রাসী ও সবচেয়ে সফল। আমাদের জন্য আজকের দিনটি দুঃখের, কারণ আমরা একত্রে দলটি গড়ে তুলেছিলাম।”