২২ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

ধারের টাকা ফেরত দিতে গিয়ে ‘ধর্ষণের শিকার’ নারী, আটক ৫

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-06-14 22:59:16 BdST

bdnews24

চট্টগ্রামে ধারের টাকা ফেরত দিতে গিয়ে এক নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কর্ণফুলী থানা জুলধা এলাকার ইটভাটায় আটকে রেখে ওই নারীকে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

কর্ণফুলী থানার ওসি আলমগীর মাহমুদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, বুধবার রাতে ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর বৃহস্পতিবার থানায় গিয়ে মামলা করেন ২৬ বছর বয়সী ওই নারী।

এরপর শুক্রবার ভোর পর্যন্ত কর্ণফুলী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পাঁচ জনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তার পাঁচজন হলেন- মো. ইলিয়াছ (৩২), জনাব আলী ওরফে চঙ্কু (৩০), ইউনুচ (২৫), কামাল উদ্দিন (২৮) এবং সেকান্দর (৩৩)।  তাদের মধ্যে জনাব আলী জুলধা ইউনিয়নের এবং অন্য চারজন চরলক্ষ্যা ইউনিয়নের বাসিন্দা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা সবাই ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেছে বলে ওসি আলমগীরের ভাষ্য।   

তিনি বলেন, ধার নেওয়া টাকা ফেরত দিতে বুধবার রাতে ইলিয়াছের সাথে দেখা করতে যান ওই নারী।

“ব্রিজঘাট এলাকা থেকে মিথ্যা বলে তাকে একটি অটোরিকশায় তুলে জুলধা ইউনিয়নের শুক্কুর ব্রিক ফিল্ডের পরিত্যক্ত একটি ঘরে নিয়ে যাওয়া হয়। পথে ওই অটোরিকশায় আরো তিনজন উঠে পড়ে।”

ইটভাটার পরিত্যক্ত কক্ষে ইলিয়াছসহ পাঁচজন মিলে রাত ৩টা পর্যন্ত আটকে রেখে ওই নারীকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ করা হয়েছে মামলায়। পরে তাকে সেখানে ফেলে রেখেই ওই পাঁচজন পালিয়ে যায়।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, নগরীর পাথরঘাটার বাসিন্দা ওই নারী গৃহকর্মীর কাজ করেন। গত ২১ মে শহর থেকে মইজ্জ্যারটেক যাওয়ার পথে অসুস্থ হয়ে পড়লে ইলিয়াছ তাকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান।

এরপর থেকে ইলিয়াছ তার খোঁজখবর নিতেন। তারা একে অন্যকে ‘ভাই-বোন’ সম্বোধন করতেন।

পরিচয়ের কয়েকদিন পর ইলিয়াছের কাছ থেকে আটশ টাকা ধার নেন ওই নারী। সেই টাকা ফেরত দিতেই তিনি ইলিয়াছের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন বলে জানান ওসি।

তিনি বলেন, ওই নারীকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।