চবি ডিন নির্বাচন: আওয়ামী লীগ সমর্থকরাই জয়ী

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-02-16 20:21:26 BdST

bdnews24
ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আটটি অনুষদের ডিন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থক শিক্ষকদের ‘হলুদ প্যানেল’ চারটিতে এবং বাকি চারটি পদে এই প্যানেলেরই বিদ্রোহী প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন।

রোববার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ক্যাম্পাসের ব্যবসায় অনুষদ মিলনায়তনে নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শেষে নির্বাচন কমিশনার ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্টার কে এম নূর আহমেদ ফলাফল ঘোষণা করেন।

কলা ও মানববিদ্যা অনুষদে ১৪৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন হলুদ দলের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মহীবুল আজিজ। তার প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. আবু নছর আব্দুল মাবুদ পেয়েছেন ২৭ ভোট।

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদে হলুদ দলের বিদ্রোহী প্রার্থী মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক সালামত উল্লা ভূঁইয়া ৪৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. আবদুল্লাহ মামুন পেয়েছেন ২৮ ভোট।

জীব বিজ্ঞান অনুষদে হলুদ দলের প্রার্থী ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক কামরুল হাসান ৮০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। অন্য দিকে হলুদ দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. অলক পাল পেয়েছেন ২৮ ভোট।

ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদে নির্বাচিত হয়েছেন হলুদ দলের বিদ্রোহী প্রার্থী কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. রাশেদ মোস্তফা ১৯ ভোট পেয়ে। তার প্রতিদ্বন্দ্বী হলুদ দলের প্রার্থী একই বিভাগের অধ্যাপক মো খাইরুল ইসলাম পেয়েছেন ১৬ ভোট।

বিজ্ঞান অনুষদে হলুদ দলের বিদ্রোহী প্রার্থী পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. নাসিম হাসান ৩৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইনস্টিটিউট অব ফরেস্টি এন্ড এনভায়রন মেন্টাল সায়েন্সের অধ্যাপক ড মো. সফিউল আলম পেয়েছেন ৩১ ভোট।

সমাজবিজ্ঞান অনুষদে কোন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় হলুদ দলের অধ্যাপক ড. মুস্তাফিজুর রহমান বিনা প্রতিদ্বন্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

মেরিন সায়েন্স অ্যান্ড ফিশারিজ অনুষদে হলুদ দল থেকে ফিশারিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. রাশেদ-উন-নবী ১২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

আইন অনুষদে হলুদ দলের বিদ্রোহী প্রার্থী আইন বিভাগের অধ্যাপক এবিএম আবু নোমান ১৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিষ্ট্রার (প্রশাসন) ও ডিন নির্বাচনের প্রিজাইডিং অফিসার মো. ইউসুফ বলেন, ডিন নির্বাচনে আটটি অনুষদে মোট ৬১৮ জন ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৫৯৬ জন শিক্ষক।