প্রভাত ফেরীর গানে আর শ্রদ্ধার ফুলে চট্টগ্রামে ভাষা শহীদদের স্মরণ

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-02-21 20:49:38 BdST

bdnews24
একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানান সর্বস্তরের মানুষ। ছবি: সুমন বাবু

ভোর থেকে প্রভাত ফেরীর গান আর শ্রদ্ধার ফুল নিয়ে বন্দর নগরী চট্টগ্রামের সব শ্রেণি-পেশার মানুষ শহীদ মিনারে জড়ো হয়ে স্মরণ করেছেন ভাষা শহীদদের।

দিনের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর শুক্রবার সকালেও ছিল নগরীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শহীদ মিনারমুখী নানা বয়সী মানুষের স্রোত ।

রাজনৈতিক দল, সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ, ছাত্র ও যুব সংগঠন, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠন দলে দলে এসে ভাষা শহীদদের উদ্দেশে ফুলেল শ্রদ্ধা জানায়।

এছাড়া দিনভর বিভিন্ন সংগঠন আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রদর্শনীসহ নানা আয়োজনে দিনটি পালন করেছে।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ ও উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ, উত্তর-দক্ষিণ ও মহানগর বিএনপি, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, ছাত্রদল, সিপিবি, ওয়ার্কার্স পার্টি, জাতীয় পার্টি, জাসদ, বাসদসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়। 

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানান বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের সহকারি হাই কমিশনার অনিন্দ্য ব্যানার্জী।

এছাড়া চট্টগ্রাম জেলা যুব ইউনিয়ন, ছাত্র ইউনিয়ন, যুবমৈত্রী, ছাত্রমৈত্রীর নেতাকর্মীরাও শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়।

দক্ষিণ জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক মন্ত্রী জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলার যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আব্বাছ, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য শেখ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ও ইদ্রিস মিয়া।

মহানগর শ্রমিক লীগের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহবুবুল হক চৌধুরী এটলী, শ্রমিক নেতা আবুল হোসেন আবু, আবদুল মতিন মাস্টারসহ নেতা শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

সিপিবির পক্ষে জেলা সাধারণ সম্পাদক অশোক সাহা, জেলার সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নুরুচ্ছাফা ভুঁইয়া, ফরিদুল ইসলাম, মছিউদদোলাসহ নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক শরীফ চৌহানের নেতৃত্বে কুলদীপ বড়ুয়া, মোক্তার আহমদ, শামসুল আলম ও সুপায়ন বড়ুয়ার নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা ফুল দেন।

মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে চশমা হিলে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন মহিলা লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নীলু নাগের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন সহ-সভাপতি মমতাজ খান, যুগ্ম সম্পাদক মালেকা চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক খুরশিদা বেগম, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য হাসিনা আক্তার টুনু, রোকসানা আক্তার, হুরে আরা বিউটি প্রমুখ।

এর আগে সকালে তারা শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

চিটাগাং উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির পক্ষে ভাইস প্রেসিডেন্ট রেখা আলম চৌধুরী, পরিচালক রেবেকা নাসরীন, মোস্তারি মোর্শেদ স্মৃতি, ফেরদৌস ইয়াসমিন খানম ও সাবিনা কাইয়্যুমসহ নেতৃবৃন্দ শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডের পক্ষে কমান্ডার মোজাফফর আহমদ ও সহকারী কমান্ডার সাধন চন্দ্র বিশ্বাসসহ নেতারা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সকালে ভাষা শহীদদের স্মরণে বেদিতে ফুল দেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরিণ আখতার।

এরপর বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু চত্বরের সামনে 'ভাষা আদালন ও বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে শিরিণ আখতার বলেন, ভাষা আন্দোলন হচ্ছে বাঙালির স্বাধীনতা আন্দোলনের সূচনা পাঠ। ভাষা আন্দোলনে আত্মত্যাগর মধ্য দিয় বাঙালি জাতি ভাষা-সংস্কৃতি ও পরিচয়ের উপলব্ধি নবজাগরণর সূচনা করছিল।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড অ্যানিমেল সাইন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. গৌতম বুদ্ধ দাশের নেতৃত্বে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা প্রথম প্রহরে ক্যাম্পাসে শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) ক্যাম্পাসে সকালে প্রভাত ফেরীর আয়োজন করা হয়। চুয়েট ক্যাম্পাসের শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

সেখানে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি চুয়েট ভিসি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, একুশের মহান চেতনাকে তরুণ প্রজন্মের বুকে ধারণ করতে হবে। বাংলা ভাষার ব্যবহারের প্রতি দায়িত্বশীল হতে হবে।

পুরকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. রবিউল আলমের সভাপতিত্বে আলোচনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. মইনুল ইসলাম, যন্ত্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দিন আহম্মদ, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী ও ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক।

বেসরকারি প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় উপাচার্য সমাজবিজ্ঞানী ড. অনুপম সেন বলেন, ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান রাষ্ট্রের অভ্যুদয়ের পরে বাংলা ভাষা ষড়যন্ত্র কবলিত হলে শুরু হয় ভাষা আন্দোলন।

“সেদিন মাতৃভাষার সম্মান রক্ষার্থে বাংলা মায়ের বীর সন্তানেরা বুকের তাজা রক্তে রঞ্জিত করেছিলেন ঢাকার রাজপথ এবং আত্মাহুতি দিয়েছিলেন। তাই এই দিনটি বাঙালির ইতিহাসে একটি অনন্য ও অসাধারণ দিন।”

আলোচনায় অংশ নেন বিশ্ববিদ্যালয়টির ট্রেজারার প্রফেসর একেএম তফজল হক, ব্যবসা-শিক্ষা অনুষদের প্রফেসর অমল ভূষণ নাগ, কলা ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহীত উল আলম, প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. তৌফিক সাঈদ, ব্যবসা-শিক্ষা অনুষদের সহকারী ডিন মঈনুল হক প্রমুখ।

নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানোর মিছিলে ছিল সাংস্কৃতিক সংগঠন উদীচী, প্রমা আবৃত্তি সংগঠন ও বোধন আবৃত্তি পরিষদ।

চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ ও সরকারি হাজী মুহম্মদ মহসিন কলেজ, বাংলাদেশ ইন্ডিপেন্ডেন্টে ইউনিভার্সিটি এবং ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা নিজ ক্যাম্পাসে শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে।