অভুক্ত দিনমজুরের ঘরে মধ্যরাতে চাল-ডাল নিয়ে প্রশাসন

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-03-30 16:19:23 BdST

bdnews24
করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে মানুষকে ঘরে রাখার চেষ্টায় সবচেয়ে বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া এসব মানুষ। ঢাকার কড়াইল বস্তির এসব বাসিন্দার মতো অনেকেই হয়ে পড়েছে কর্মহীন।

করোনাভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে মানুষজনকে ঘরে রাখার চেষ্টার মধ্যে কর্মহীন হয়ে অভুক্ত থাকা দিনমজুর পরিবারের ফোন পেয়ে মধ্যরাতে তাদের ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়েছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন।

রোববার গভীর রাতে নগরীর বায়েজিদ বোস্তামি থানার খাজা গরিবে নেওয়াজ লেনের ওই পরিবারকে বাসায় খাবার পৌঁছে দেয়া হয়।

দরিদ্র ওই দম্পতির চার সন্তান আছে জানিয়ে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ছয়জনের পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিটির সাতদিন ধরে কোনো কাজ নেই। তাই আয়ও নেই।

“এ অবস্থায় তাদের ঘরে থাকা খাবার ফুরিয়ে যায়। গতকাল (রোববার) দুপুর থেকে চার সন্তান খাবারের জন্য কান্নাকাটি করছিল। রোববার রাতে ওই ঘরে চুলা জ্বলেনি। রাতে তাদের কারওই খাওয়া হয়নি। মানমর্যাদার ভয়ে তারা প্রতিবেশিদের কাছেও কিছু চাননি।”

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম বলেন, “এরকম পরিস্থিতিতে নিরুপায় হয়ে ওই গৃহিনী রাত ১০টার দিকে ‘৩৩৩’ নম্বরে ফোন দিয়ে বিষয়টি জানান।”

জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনারদের (ভূমি) কোনো সহয়োগিতা প্রয়োজন হলে ‘৩৩৩’ নম্বরটিতে ফোন করে সহায়তা চাওয়া যায়।

তৌহিদুল ইসলাম জানান, ফোন পাওয়ার পরই জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন নির্দেশ দেন ওই বাসায় গিয়ে খাবার পৌঁছে দিতে।

এরপরই রাত ১১টার দিকে জেলা প্রশাসনের ত্রাণ ও পুনর্বাসন শাখার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ওই বাসায় গিয়ে হাজির হন।

ওই পরিবারকে ২০ কেজি চাল, চার কেজি চিড়া, দুই কেজি ডাল, দুই কেজি লবণ, দুই কেজি চিনি, দুই লিটার সয়াবিন তেল ও এক কেজি নুডুলসসহ মোট ৩৩ কেজি খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়।

অত রাতে খাবার পেয়ে পরিবারটি খুব খুশি হয় এবং জেলা প্রশাসন ও প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ দেন বলেও জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম।