কাজে গাফিলতি হলে ঠিকাদারের লাইসেন্স বাতিল: সুজন

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-08-10 20:49:44 BdST

সড়ক উন্নয়নের কাজে ঠিকাদারদের অনিয়ম-গাফিলতি পেলে লাইসেন্স বাতিল ও কালো তালিকাভুক্ত করতে বলেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (সিসিসি) প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

সোমবার সিসিসির প্রকৌশল বিভাগের সাথে এক সভায় তিনি এ নির্দেশনা দেন।

বিকেলে অস্থায়ী নগর ভবনে ওই বৈঠকে সুজন বলেন, “নগরীতে চলমান উন্নয়ন কাজে গতি বাড়াতে সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীদের মাঠে থেকে কাজ আদায় করতে হবে। ঠিকাদারগণ সঠিকভাবে কাজ করছেন কি না, গুণগতমান ঠিক আছে কি না, তা শতভাগ বুঝে নিতে হবে।

“সড়ক উন্নয়ন কাজে ঠিকাদারের অনিয়ম ও গাফিলতি পরিলক্ষিত হলে সাথে সাথে লাইসেন্স বাতিল ও কালো তালিকাভুক্ত করা হবে। খেয়াল রাখতে হবে, ওয়ার্ক অর্ডারে বর্ণিত সময়ের মধ্যেই ঠিকাদার কাজ সম্পন্ন করছে কি না।”

নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সংস্কারের ওপর জোর দিয়ে সুজন বলেন, “প্রকৌশলীরা হচ্ছেন এ শহর উন্নয়নের রূপকার। নগর উন্নয়নে আপনাদের অবদান অত্যধিক। সঠিক দায়িত্ব পালন ও শুদ্ধাচার জীবনযাপনের মধ্যে মানসিক শান্তি নিহিত রয়েছে। অন্যথায় নিজের মাঝে অপরাধ বোধ কাজ করবে। দায়িত্ব পালনে যে কোনো বাধা-বিপত্তিতে আমার সহযোগিতা থাকবে।

“কিন্তু নাগরিক সেবা দিতে গিয়ে যদি কেউ অনিয়মে জড়িয়ে পড়েন তাহলে এর জবাবদিহি করতে হবে। মনে রাখতে হবে হারামের মধ্যে আরাম নেই। এটা উপলব্ধি করে সততা ও নিষ্ঠার সাথে অর্পিত দায়িত্ব শেষ করতে হবে।”

তিনি বলেন, “এই বিভাগের কাজগুলোর সফলতা যেমন দৃশ্যমান তেমনি ভুলভ্রান্তিও জনগণের কাছে দৃশ্যমান। এ ভুলভ্রান্তিগুলো সংশোধন করে এগিয়ে যেতে হবে।”

যেসব সড়কে অবৈধ স্থাপনা, ট্রাক-বাস স্ট্যান্ড, অবৈধ গাড়ি পার্কিং আছে তা দ্রুত উচ্ছেদ ও আর্থিক জরিমানা করতে নির্দেশ দেন প্রশাসক।

বৈঠকে সিসিসির প্রধান প্রকৌশলী লেফটেন্যান্ট কর্নেল সোহেল আহমদ, একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোহাম্মদ আবু সালেহ, কামরুল ইসলাম ও আনোয়ার হোছাইনসহ প্রকৌশল বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে সকালে নগরীর সল্টগোলা, সদরঘাট, বারেক বিল্ডিং, নন্দনকানন ও টাইগারপাস এলাকায় সড়ক সংস্কার কাজ পরিদর্শন করেন প্রশাসক।

এ সময় সুজন বলেন, “জনদুর্ভোগ লাঘবে নগরীতে রাস্তাঘাট সংস্কার কাজ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করা হবে। এতে কোনো প্রকার গাফিলতি বা দীর্ঘসূত্রতা বরদাস্ত করা হবে না। যদি সড়ক উন্নয়ন কাজে কোনো অনিয়ম বা দুর্নীতি পরিলক্ষিত হয় তবে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

এ সময় সংস্কার কাজের গতি বাড়ানোর তাগাদা দেন তিনি।

এদিকে সিসিসির স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ) জাহানারা ফেরদৌস এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারুফা বেগম নেলীর নেতৃত্বে নগরীর স্টেশন রোডে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়।

অভিযানে স্টেশন রোডের রিয়াজউদ্দিন বাজার সংলগ্ন ফুট ওভারব্রীজের নিচ থেকে অবৈধ দোকানসহ আশপাশের ফুটপাত থেকে অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করে ফুটপাত ও ফুটওভারব্রীজের নিচের অংশ অবৈধ দখলমুক্ত করা হয়।

এর আগে শনিবার গভীর রাতে রিয়াজউদ্দিন বাজার এলাকা পরিদর্শন করেন প্রশাসক সুজন।