হাটহাজারীসহ চার উপজেলায় বিজিবি মোতায়েন হচ্ছে

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-09-19 02:35:55 BdST

bdnews24
চট্টগ্রামের হাটহাজারী বড় মাদ্রাসায় বুধবার আহমদ শফীর ছেলে আনাস মাদানিকে অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভের সময় ভাংচুর চালানো হয়। এরপর ওই মাদ্রাসার মহাপরিচালকের পদ ছাড়তে বাধ্য হওয়া হেফাজত আমির আহমদ শফী শুক্রবার সন্ধ্যায় মারা গেছেন।

হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফীর জানাজা ঘিরে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে চট্টগ্রামের হাটহাজারীসহ চার উপজেলায় বিজিবি মোতায়েন করা হচ্ছে।

শুক্রবার রাতে হাটহাজারী, পটিয়া, রাঙ্গুনিয়া ও ফটিকছড়ি উপজেলায় বিজিবি মোতায়েন চেয়ে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসকের দায়িত্বে থাকা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক ইয়াসমিন পারভিন তিবরীজি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব বরাবর চিঠি দিয়েছেন।

চিঠিতে হাটহাজারী উপজেলার জন্য চার প্লাটুন, বাকি তিন উপজেলার জন্য দুই প্লাটুন করে বিজিবি চাওয়া হয়েছে।

এছাড়া আইন শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীকে সহায়তার জন্য সাতজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অপর এক আদেশের মাধ্যমে।

হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন বিজিবি মোতায়েন করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে শনিবার সকাল থেকে বিজিবি মাঠে থাকবে।”

হাটহাজারীতে চারজন ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্বে থাকবেন বলেও জানান তিনি।

অপর তিন উপজেলায় তিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকার গেন্ডারিয়ার আজগর আলী হাসপাতালে মারা যান শাহ আহমদ শফী, যিনি দীর্ঘ দিন হাটহাজারী দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার মহাপরিচালক ছিলেন।

মাদ্রাসার একদল শিক্ষার্থীর বিক্ষোভের মুখে বৃহস্পতিবার রাতে ওই মাদ্রাসার মহাপরিচালকের পদ থেকে সরে দাঁড়ান আহমদ শফী।

গুরুতর অসুস্থ শফীকে গভীর রাতেই চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে শুক্রবার বিকালে তাকে হেলিকপ্টার করে ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়।

হাটহাজারী মাদ্রাসার কর্তৃত্ব হারালেন আহমদ শফী  

তার মরদেহ চট্টগ্রাম নিয়ে আসা হচ্ছে এবং শনিবার বাদ জোহর জানাজা শেষে হাটহাজারী মাদ্রাসার নিজস্ব কবরস্থানে দাফন করার কথা রয়েছে।

হেফাজতে ইসলামের আমির আহমদ শফীর জন্ম রাঙ্গুনিয়ায়। এছাড়া ফটিকছড়ি ও পটিয়া উপজেলায় কয়েকটি বড় কওমি মাদ্রাসা রয়েছে।

সে কারণেই হাটহাজারীর সাথে এ তিন উপজেলায় অনভিপ্রেত ঘটনা এড়াতে বিজিবি মোতায়েন করা হচ্ছে।