সেবা না দিলে প্রয়োজনে ক্লিনিক বন্ধ: সুজন

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-11-23 20:35:53 BdST

bdnews24

কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা বাড়লে বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিকে যদি রোগীরা সেবা না পায়, সেক্ষেত্রে সেগুলো বন্ধ করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

কোভিড-১৯ এর ‘দ্বিতীয় ঢেউ’ মোকাবেলার প্রস্তুতি ও করণীয় নির্ধারণে সোমবার অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল এক বৈঠকে তিনি এই হুঁশিয়ারি দেন।

সুজন বলেন, “করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে আমাদের সবাইকে যার যার অবস্থান থেকে এগিয়ে আসতে হবে। প্রাইভেট হাসপাতাল-ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ যাতে রোগীদের সাথে আমানবিক আচরণ না করে।

“এবার যদি কোনো রোগী প্রাইভেট হাসপাতাল, ক্লিনিক থেকে চিকিৎসা সেবা পেতে ব্যর্থ হন, তাহলে সেসব হাসপাতালের ট্রেড লাইসেন্স বাতিল করাসহ প্রয়োজনে বন্ধ করে দেওয়া হবে।”

নগরীর প্রাইভেট হাসপাতাল ও ক্লিনিক মালিকদের সঙ্গে এ নিয়ে আলাপ করবেন বলে জানান প্রশাসক সুজন।

বৈঠকে তিনি বলেন, “মার্চে যখন প্রথম করোনার প্রকোপ দেখা দেয়, তখন আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার তেমন প্রস্তুতি ছিলো না। পরবর্তীতে আমরা করোনা মোকাবেলায় আমাদের প্রস্তুতি শুরু করি।

“ইতোমধ্যে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেনারেল হাসপাতালে পর্যাপ্ত শয্যার ব্যবস্থা আছে। প্রকোপ যদি বেশি বাড়ে সেক্ষেত্রে আমরা আমাদের মেমন জেনারেল হাসপাতালেও (ইউনিট-২) করোনা চিকিৎসার ব্যবস্থা করবো। আইসোলেশন সেন্টারগুলোকে প্রয়োজনে আবার চালু করবো। কারণ এসব সেন্টারের যাবতীয় সরঞ্জাম আমাদের আছে।”

বৈঠকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার, সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মুহাম্মদ হুমায়ুন কবির, চট্টগ্রাম জেলার সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ওমর ফারুক, চট্টগ্রাম মাধ্যমিক উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক গাজী গোলাম মওলা, চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. অসীম কুমার নাথ, সমাজ কল্যাণ অধিপ্তরের পরিচালক নুসরাত সুলতানা, সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আলী অংশগ্রহণ করেন।