পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

সিআরবিতে হাসপাতাল হতে দেব না: অনুপম সেন

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-07-20 00:31:47 BdST

চট্টগ্রাম নগরীর সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ করতে বাধা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সমাজবিজ্ঞানী ড. অনুপম সেন।

সোমবার সন্ধ্যায় নাগরিক সমাজ, চট্টগ্রামের আয়োজনে আলোচনা সভা ও প্রদীপ প্রজ্জ্বালন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অনুপম সেন এ ঘোষণা দেন।

সিআরবিতে বেসরকারি হাসপাতাল নির্মাণের উদ্যোগের প্রতিবাদে চলমান কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তিনি বলেন, “সিআরবিতে হাসপাতাল না করার দাবিটি পুরো চট্টগ্রামের।

“এই শহরের এক সময়ের যে প্রাকৃতিক সুন্দর ঐতিহ্যপূর্ণ জায়গা ছিল কোনোটিই এখন আর নেই। এই সিআরবিতে অসংখ্য শতবর্ষী গাছ রয়েছে। এই পুরো অঞ্চলটাই মহানগরীর শ্বাস কেন্দ্র। এখানে রয়েছে শহীদ আবদুর রবের বাসা। শহীদদের জায়গা এই সিআরবি। এইখানে কখনোই প্রফিটের জন্য পিপিপিতে একটা হাসপাতাল করতে দিতে পারি না।”

অনুপম সেন বলেন, “প্রকৃতির সবচেয়ে মনোরম কেন্দ্রে অর্থগৃধ্নু হাসপাতাল করতে কখনোই দেব না। সবাই মিলে প্রতিহত করব। প্রয়োজনে অনশন থেকে শুরু করে যা কিছু করার সবকিছু আমরা করব।”

প্রধানমন্ত্রীকে ‘ভুল বুঝিয়ে’ হাসপাতালের প্রকল্প গ্রহণ হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

“এই আমলা বা রেলওয়ের কর্মকর্তা কর্মচারী, যারা্ উনাকে ভুল বুঝিয়েছেন, আমরা তাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হব।”

কর্মসূচিতে অংশ নেন আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মাহফুজুর রহমান, ডা. এ কিউ এম সিরাজুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. গাজী সালেহ উদ্দিন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর আহমদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ইউনুচ, পরিবেশবিদ ড. ইদ্রিস আলী, নগর আওয়ামী লীগ নেতা শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, পিপলস ভয়েস সভাপতি শরীফ চৌহান, আওয়ামী লীগ নেতা হাসান মনসুর, যুব নেতা নূরুল আজিম রনি।

বোধনের সাধারণ সম্পাদক প্রণব চৌধুরীর সঞ্চালনায় সমাবেশে নাগরিক সমাজ, চট্টগ্রামের পক্ষে বক্তব্য রাখেন বিএফইউজের যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী।

সুজনের জাগরণ যাত্রা

প্রকৃতির বিরুদ্ধে আগ্রাসনের প্রতিবাদে জাগরণ যাত্রা ও নাগরিক সমাবেশ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রশাসক, আওয়ামী লীগ নেতা খোরশেদ আলম সুজন। 

বিকেলে মাথায় সবুজ পাতার ব্যান্ড, জাতীয় পতাকা ও সবুজ পতাকা হাতে বিনয় বাঁশী শিল্পী গোষ্ঠীর শিল্পীদের ঢোলের তালে এবং সানাইয়ের সুরে জাগরণ যাত্রা শুরু হয় বাউবি আঞ্চলিক কেন্দ্রের সামনে থেকে।

পরে সিআরবি সাত রাস্তা মোড়ে অনুষ্ঠিত সমাবেশে নগর আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি সুজন বলেন, “কিছু কুচক্রীমহল অত্যন্ত সুক্ষভাবে সরকারের সাথে জনগণের দূরত্ব সৃষ্টির অপপ্রয়াসে লিপ্ত রয়েছে। এখনই রুখে না দাঁড়ালে এরা সরকারের জন্য বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

“চট্টগ্রামে অনেক হাসপাতাল দরকার। বিশেষত বন্দর পতেঙ্গায় একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল প্রয়োজন। তবে প্রাইভেট হাসপাতালের নামে জনগণের নিঃশ্বাস ফেলার পরিবেশ যাতে নষ্ট না হয় সেদিকে সবার দৃষ্টি রাখা একান্ত প্রয়োজন।”

নাগরিক উদ্যোগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাজি মো. ইলিয়াছের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মাহফুজুর রহমান, নগর আওয়ামী লীগের পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মশিউর রহমান চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের মহাসচিব গোলাম রসুল বাবুল, নগর যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক মাহবুবুল হক সুমন, কাউন্সিলর আব্দুস সালাম মাসুম, নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু।

সিপিবির বিক্ষোভ

জনগণের সম্পদ রেলের জমিতে প্রাইভেট হাসপাতাল নির্মাণের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) চট্টগ্রাম জেলা।

সিআরবিতে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সিপিবি জেলা সাধারণ সম্পাদক অশোক সাহা বলেন, “রেলের জমি জনগণের। হলে জনগণের জন্যে সরকারি হাসপাতাল করা যাবে। তাও অবশ্যই প্রকৃতি পরিবেশ সুরক্ষিত করে। কোনোভাবেই প্রাইভেট নয়।

“বৃটিশবিরোধী সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের স্মৃতিবিজড়িত এই অঞ্চলে পাহাড়, বৃক্ষঘেরা পরিবেশ চট্টগ্রামের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও সুরক্ষা বিধান করে। একে বাণিজ্যিক এলাকা বানালে সবকিছু স্থবির হয়ে যাবে।”

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিপিবি নেতা অমৃত বড়ুয়া, প্রমোদ বড়ুয়া, রেখা চৌধুরী, রাহাতউল্লাহ্ জাহিদ।

নুরুচ্ছাফা ভুঁইয়ার পরিচালনায় সমাবেশে সংহতি জানান শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, রেল শ্রমিক নেতা সাদেক আহমদ চৌধুরী, কৃষক নেতা ফরিদুল ইসলাম, সংস্কৃতি সংগঠক শীলা দাশগুপ্তা, ছাত্র ইউনিয়ন নেতা এনি সেন।