পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাককে স্মরণ করল আনোয়ারা

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-07-22 22:43:54 BdST

জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানকে ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধি দেওয়ার প্রস্তাবক রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাককে স্মরণ করল তার জন্মস্থান আনোয়ারা।

বৃহস্পতিবার উপজেলার বন্দর বধ্যভূমিতে আনোয়ারা সাহিত্য পরিষদ (আসাপ) এই স্মরণসভার আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী চৌধুরী বলেন, “প্রচারবিমুখ বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাক নীরবে মানুষের উপকার করে গেছেন। দেশ ও জাতির জন্য উনার অবদান অপরিসীম।”

আলোচনার প্রধান বক্তা গবেষক জামাল উদ্দিন বলেন, “রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাক এতোটা প্রচারবিমুখ ছিলেন, তিনি যে বঙ্গবন্ধু উপাধির প্রবক্তা, এ কথাটাও বলতে চাইতেন না। ২০০৬ সালে প্রকাশিত আমার গবেষণাগ্রন্থ ‘দেয়াঙ পরগণার ইতিহাসে’ এই কৃতিত্বের কথা তথ্য সহকারে লেখার মধ্য দিয়ে বিষয়টি আলোয় আসে।” 

স্বাগত বক্তব্যে চট্টগ্রাম সমিতি-ঢাকার সাবেক দপ্তর সম্পাদক শহীদুল ইসলাম শহীদ বলেন, “রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাক ষাটের দশকে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের কনিষ্ঠ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগে ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-দপ্তর সম্পাদক হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের আগে-পরে ছাত্রনেতা হিসেবে কৃতিত্বপূর্ণ অবদান রাখেন।

“তিনি বিভিন্ন মেয়াদে চট্টগ্রাম সমিতি ঢাকার সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতির গুরুদায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ঢাকায় অবস্থানরত আনোয়ারাবাসী তথা চট্টগ্রামবাসী বহু মানুষকে নানাভাবে সহযোগিতা করেছেন।”

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাক। ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাক। ফাইল ছবি

আনোয়ারা সাহিত্য পরিষদের সভাপতি এইচ এম ফজল আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মোরশেদ হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন বারশত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ কাইয়ুম শাহ, রাঙামাটির রাজস্থলী থানার ওসি (ইনচার্জ) মফজল আহমদ খান, আনোয়ারা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এম. আনোয়ারুল হক ও ঢাকাস্থ আনোয়ারা সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান।

এছাড়া সাংবাদিক রফিক আহমদ খান ও জাহাঙ্গীর আলম, কর্ণফুলী থানা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রামচন্দ্র দাশ চন্দন, সংগঠক ছলিম আল আনোয়ার, সাংবাদিক এইচ এম মহিউদ্দীন মনজুর ও সংগঠক আসহাব উদ্দিন মালেকী বক্তব্য দেন এই স্মরণ সভায়।

ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৪ জুলাই মারা যান রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাক। তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর।

তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগের ঢাকা কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক থাকা অবস্থায় ১৯৬৮ সালের ৩ নভেম্বর সংগঠনের প্যাডে তিনি প্রথম ‘বঙ্গবন্ধু’ শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন।

এরপর ১৯৬৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি রেসকোর্স ময়দানে শেখ মুজিবুর রহমানকে ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সেখানে বাংলার মহানায়ক শেখ মুজিবকে ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধিতে ভূষিত করেন ডাকসুর তৎকালীন ভিপি তোফায়েল আহমেদ।