পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

চট্টগ্রামের ৪ থানায় পুলিশের ‘বডি ওর্ন’ ক্যামেরা

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-07-24 19:12:07 BdST

কাজের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা আনার লক্ষ্যে দেশে প্রথমবারের মতো চট্টগ্রাম নগর পুলিশের থানা পর্যায়ের সদস্যরা শরীরে বহনযোগ্য বা ‘বডি ওর্ন’ ক্যামেরার ব্যবহার শুরু করেছেন।

শনিবার বন্দর নগরীর চারটি থানার পুলিশ সদস্যেদের পোশাকের সঙ্গে এ ধরনের ক্যামেরা লাগানো হয়। ঢাকা ও সিলেটে কেবল ট্রাফিক বিভাগের সদস্যরা আগে থেকেই এ ধরনের ক্যামেরা ব্যবহার করে আসছেন।

পরীক্ষামূলকভাবে চট্টগ্রামের কোতোয়ালী, ডবলমুরিং, পাঁচলাইশ ও পতেঙ্গা থানায় সাতটি করে এসব ‘বডি ওর্ন’ ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। থানার উপ-পরিদর্শকরা এসব ক্যামেরা ব্যবহার করবেন।

চট্টগ্রাম নগর পুলিশ কমিশনার সালেহ মো. তানভীর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি পরীক্ষামূলকভাবে থানা পর্যায়ে চট্টগ্রামে এ ক্যামেরার ব্যবহার শুরু করা হয়েছে।

“এ ক্যামেরা ব্যবহারের ফলে পুলিশের কার্যক্রম রেকর্ড থাকবে। তাদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা যাবে। আমরাও সহজে তাদের কাজগুলো যাচাই করতে পারব।”

এ ক্যামেরাগুলোতে ‘জিপিআরএস’ সিস্টেমের আওতায় আনা হবে এবং ফলাফল ভালো আসলে পরবর্তীতে সব থানায় এসব ক্যামেরা দেওয়া হবে বলে জানান পুলিশ কমিশনার।

ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন জানান, এসব ক্যামেরার মাধ্যমে অডিও, ভিডিও এবং স্থিরচিত্র ধারণ করা যাবে। পুলিশ সদস্যদের পোশাকের সঙ্গে বুকে কিংবা ঘাড়ে এসব ক্যামেরা রাখা হয়।

তিনি বলেন, “অভিযানে কিংবা চেকপোস্টে সাধারণ লোকজনের সঙ্গে পুলিশের ভুলবোঝাবুঝি হয়। যে কোনো ঘটনার জন্য এককভাবে পুলিশকে দায়ী করা হয়ে থাকে। এসব ক্যামেরার ব্যবহার শুরুর পর সেটা অনেকাংশে রোধ হবে।

“এটি ভ্রাম্যমান সিসি ক্যামেরার কাজ করবে এবং নানামুখী ব্যবহার করা যাবে। কোনো অভিযানে গেলে আসামি শনাক্ত থেকে শুরু করে পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি সবকিছুই এ ক্যামেরায় ধারণ হয়ে যাবে।”

ক্যামেরাগুলো ‘জিপিআরএস’ সিস্টেমের আওতায় আসার পর পুলিশ কর্মকর্তাদেরও সদর দপ্তর থেকে তদারকি করা যাবে বলেও মনে করেন ওসি মহসিন।

কোতোয়ালী থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বলেন, “পুলিশ কী করছে, কোথায় যাচ্ছে সবকিছুই এসব ক্যামেরায় ধারণ হবে। যাতে করে পুলিশের কাজের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে।”

পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসলে তার তদন্তে এ ক্যামেরা ভূমিকা রাখবে জানিয়ে তিনি বলেন, “পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নেওয়ার সুযোগ আসবে এবং উভয় পক্ষের আচরণও বোঝা যাবে এসব ক্যামেরায় ধারণ করা চিত্রে।”