পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

বাস চালককে পিটিয়ে হত্যা, মাইক্রোবাসের ৩ আরোহী গ্রেপ্তার

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-11-29 15:26:39 BdST

bdnews24
নিহত বাস চালক আব্দুর রহিম

চট্টগ্রামে এক মাইক্রোবাসের আরোহীদের পিটুনিতে এক বাস চালক মারা যাওয়ার ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার ভোর রাতে নগরীর বায়েজিদ থানার আমিন কলোনী থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে ওসি মো. কামরুজ্জামান জানান।

 গ্রেপ্তার তিন জন হলেন- মো. আনোয়ার হোসেন (২৯), মো. মোর্শেদ (১৯) ও মো. রবিউল (২৩)। তারা পরস্পরের আত্মীয়।

গত ২৬ নভেম্বর সন্ধ্যায় আমিন জুট মিলে এলাকায় হাটহাজারি থেকে শহরের দিকে আসা এক বাস চালককে মারধর করেন মাইক্রোবাস আরোহীরা। তাদের অভিযোগ ছিল, দুর্ঘটনা ঘটতে পারে জেনেও ওই বাসকে মাইক্রোবাসের দিকে চাপিয়ে আনছিলেন চালক।

পিটুনিতে আহত বাস চালক আব্দুর রহিমকে (৪৬) হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় পরিবহন শ্রমিকদের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। পরদিন তারা হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে হাটহাজারি ও অক্সিজেন এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়।

ওসি মো. কামরুজ্জামান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, অভিযোগ পেয়েই পুলিশ ওই মাইক্রোবাস আরোহীদের সন্ধানে কাজ শুরু করে। হাটহাজারি থানার চৌধুরী হাট থেকে নগরীর মুরাদপুর পর্যন্ত ৭০টি সিসি ক্যামেরার ভিডিও সংগ্রহ করে অভিযুক্তদের শনাক্তে কাজ করা হয়। পরে ভোর রাতে গ্রেপ্তার করা হয় তিনজনকে।

সেদিন আসলে কী ঘটেছিল, তাও এই তদন্তের মধ্য দিয়ে জানতে পারে পুলিশ।

ওসি কামরুজ্জামান জানান, আনোয়ার, মোর্শেদ ও রবিউল গত ২৬ নভেম্বর সন্ধ্যায় তাদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ফটিকছড়ি থেকে চট্টগ্রাম নগরীর আমিন কলোনীতে তাদের বাসায় ফিরছিলেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ নম্বর গেইট পাড় হওয়ার পর হাটহাজারি থেকে শহরের দিকে আসা দ্রুতযান পরিবহনের একটি বাস (চট্ট মেট্রো জ- ১১-১৫৮৫) ওই মাইক্রোবাসকে ‘চাপ’ দেয়।

এরপর চৌধুরীহাট পেট্রোলপাম্প এলাকায় চট্ট মেট্রো জ- ১১- ১৬৬২ নম্বরের অন্য একটি বাস দেখে মাইক্রোবাসের আরোহীদের ধারণা হয়, এটাই বোধহয় সেই বাস। সেই সন্দেহ থেকে তারা বাসটির গতি রোধ করে চালককে নামিয়ে মারধর করেন।

এতে বাসের চালক আনোয়ার হোসেন বাচা অজ্ঞান হয়ে পড়েন। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করে তোলে। 

ওসি বলেন, “মাইক্রোবাস আরোহীরা তাদের ভুল বুঝতে পেরে সেখান থেকে দ্রুত সরে পড়ে। বালুছড়া এলাকায় এসে তারা আসল বাসটি দেখে পিছু নেয়। আমিন জুট মিলের উত্তর গেইটে পৌঁছে তারা বাসটির গতিরোধ করেন এবং চালক আব্দুর রহিমকে বাস থেকে নামিয়ে মারধর করেন।”

আহত চালক রহিম বাকলিয়া থানার রাহাত্তার পুল এলাকায় নিজের বাসায় চলে যান। কিন্তু অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের সদস্যরা রাতেই তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক রহিমকে মৃত ঘোষণা করেন।