পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

বাঁশখালীর সাবেক মেয়রের উপর হামলাকারী দুজন গ্রেপ্তার

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-01-24 18:15:11 BdST

bdnews24

চট্টগ্রামের বাঁশখালী পৌরসভার সদ্য সাবেক মেয়র সেলিমুল হক চৌধুরীর উপর হামলার ঘটনায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

সোমবার কক্সবাজারের রামু উপজেলা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। মো. সিরাজ (৩৫) ও মিনারুল ইসলাম (৩৫) নামে এদুজনই সাবেক মেয়রের দায়ের করা মামলার আসামি।

র‌্যাব-৭ এর চান্দগাঁও ক্যাম্প কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, বিদায়ী মেয়র ও আসামিরা একই এলাকার বাসিন্দা। ব্যক্তিগত আক্রোশের জেরে তারা বিদায়ী মেয়রের উপর হামলা চালায়।

“মেয়রের ওপর আসামিদের আগে থেকেই আক্রোশ ছিল। দায়িত্ব ছাড়ার পর তারা সে সুযোগটি নিয়ে হামলা করেছে।”

গত ১৮ জানুয়ারি রাতে বাঁশখালী পৌরসভার মিয়ারবাজার এলাকায় যুব মহিলা লীগের এক নেত্রীর বাড়িতে দাওয়াতে গিয়ে হামলার শিকার হন সদ্য বিদায়ী মেয়র মুক্তিযোদ্ধা সেলিমুল (৭৫)।

হামলার অভিযোগ এনে বাঁশখালীর বিদায়ী মেয়রের মামলা  

এ ঘটনার পরদিন সেলিমুল বাদী হয়ে সিরাজ, ইলিয়াছ ও মিনারসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে চারজনের বিরুদ্ধে বাঁশখালী থানায় মামলা করেন।

সেলিমুল বাঁশখালী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্বেও আছেন। গত ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত বাঁশখালী পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পাওয়ায় তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি। 

স্থানীয় সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে পরিচিত এস এম তোফাইল হোসাইন নৌকার মনোনয়ন পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।

র‌্যাব কর্মকর্তা মেজর মেহেদী হাসান বলেন, “বিদায়ী মেয়রের মামলার পর র‌্যাব তার ছায়া তদন্ত শুরু করে। অভিযুক্তদের দিকে নজরদারির এক পর্যায়ে সিরাজ ও মিনারুল কক্সবাজারের রামুকে অবস্থান করছে বলে আমরা নিশ্চিত হই। এর পর অভিযান চালিয়ে তাদের সেখান থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।”

সংসদ সদস্যকে ‘গালি’ দেওয়ার কারণে সেলিমুলের উপর হামলা হয়েছে বলে যে কথা আলোচনায় এসেছে, সে বিষয়ে মেজর মেহেদী বলেন, “হামলাকারীদের সাথে সংসদ সদস্যের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। বিষয়টি নিয়ে সেলিমুল হকের সাথেও কথা বলেছি। তিনিও বলেছেন বিষয়টির সাথে সংসদ সদস্যের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।”