২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

অভিযোগবিদ্ধ ব্যবসায়ীরা টাকা ফেরত দেবেন, আশা অর্থমন্ত্রীর

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-08-01 01:10:45 BdST

bdnews24
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল (ফাইল ছবি)

ব্যাংক খাতে কেলেঙ্কারিতে হল-মার্ক, বিসমিল্লাহ গ্রুপের মতো যাদের নাম আলোচিত,  তারা ঋণ শোধ করে ব্যবসায় ফিরে আসবেন বলে আশা করছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বুধবার সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নিজের এই আশার কথা জানান তিনি।

হল-মার্কের অর্থ উদ্ধারের বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, “আমার স্ট্যান্ড পয়েন্ট যা ছিল সেইম স্ট্যান্ড পয়েন্ট এখনও আছে। এগুলো রিকভার করতে হবে, এগুলো আমরা রিকভার করব।
“আপনারা জানেন, এরই মাঝে বিসমিল্লাহ গ্রুপ বলেছে তারা ব্যবসা করবে এবং টাকা-পয়সা শোধ করবে। আমি মনে করি আমরা যে এক্সিট প্ল্যান তৈরি করেছি এবং তা যদি বাস্তবায়ন করতে পারি, তাহলে প্রত্যেক ব্যবসায়ী লাভবান হবে।”

সোনালী ব্যাংক থেকে প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়ে আত্মসাতের অভিযোগ হল-মার্ক গ্রুপের বিরুদ্ধে, এটি বাংলাদেশে ব্যাংক খাতে সবচেয়ে বড় ঋণ কেলেঙ্কারির একটি।

ব্যাংক খাতের আরেক কেলেঙ্কারির ঘটনায় জড়িত বিসমিল্লাহ গ্রুপের বিরুদ্ধে প্রায় ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে।

ঋণ খেলাপিদের নানা সুযোগ দেওয়ার জন্য সমালোচনার মুখে রয়েছেন অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল, এ নিয়ে আদালতও প্রশ্ন তুলেছে। তার আশা, এই সুযোগ নিয়ে ঋণ খেলাপিরা তাদের খেলাপি পরিচয় ঘোচাবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, "আমি বিশ্বাস করি, আমাদের ব্যবসায়ীদের আবার আমাদের মাঝে পাব; তারা আবার আসবে, তারা টাকা-পয়সা শোধ দেবেন। আমাদেরও কষ্ট বাড়াবে না। আমাদেরও তাদের সাথে খারাপ ব্যবহার করতে হবে না, এটা আমি বিশ্বাস করি।"

টাকা বিদেশে না রেখে ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানান তিনি।

ক্রয় কমিটির বৈঠকে চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরের উন্নয়নে ৪৭২ কোটি টাকার প্রস্তাব এবং জ্বালানি দক্ষতা ও সংরক্ষণ বৃদ্ধি কার্যক্রমে অর্থায়ন প্রকল্পের কারিগরি সহযোগিতা দেওয়ার জন্য পরামর্শক হিসেবে নিয়োগে ৫৯ কোটি ৭৬ লাখ ৫৪ হাজার ৯২৯ টাকার মোট দুটি ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়।

শাহ আমানত বিমানবন্দরের উন্নয়নের কাজটি বাস্তবায়ন কাজ পেয়েছে যৌথভাবে মেসার্স মীর আকতার ও সিএএমসিই। এছাড়া জ্বালানি দক্ষতা ও সংরক্ষণ বৃদ্ধি কার্যক্রমে অর্থায়ন প্রকল্পের কারিগরি সহযোগিতা দেওয়ার জন্য পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে জাপানের প্রতিষ্ঠান মিৎসুবিশি রিচার্স ইনস্টিটিউট আইএনসিকে।