সঙ্কটের বাজেটেও উন্নয়ন বরাদ্দে থাকছে ২ লাখ কোটি টাকার বেশি

  • জাফর আহমেদ, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-12 23:34:39 BdST

bdnews24
নির্মাণাধীন পদ্মা সেতু, ফাইল ছবি

উন্নয়ন কাজে চলতি অর্থবছরে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় করার পরিকল্পনা হয়েছিল, কোভিড-১৯ সঙ্কটেও আগামী অর্থবছরে তার প্রায় সমান অর্থ খরচ করতে চাইছে সরকার।

আসন্ন ২০২০-২১ অর্থ বছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব রেখে খসড়া চূড়ান্ত করেছে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়।

পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মো. নূরুল আমিন জানান, মঙ্গলবার পরিকল্পনা কমিশনের বর্ধিত সভায় এডিপির ওই খসড়া অনুমোদন পেয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে আগামী ১৯ মে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় প্রস্তাবটি চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে।

চলতি অর্থবছরের মূল এডিপির আকার ছিল ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকা। তবে গত মার্চ মাসে এনইসি সভায় তা সংশোধন করে ১ লাখ ৯২ হাজার ৯২১ কোটি টাকায় নামিয়ে আনা হয়।

শতকরা হিসেবে আগামী অর্থবছরে এডিপিতে বরাদ্দ গতবারের মূল বরাদ্দের চেয়ে ১.১ শতাংশ এবং সংশোধিত বরাদ্দের চেয়ে ৬ শতাংশ বেশি হচ্ছে।

করোনাভাইরাস ঠেকাতে দেশব্যাপী লকডাউন থাকায় এবার অর্থবছরের শেষ কয়েক মাসে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের বাস্তবায়ন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দারুণভাবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এর আগে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেছিলেন, “বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্পগুলোই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। কারণ বড় প্রকল্পগুলোতে বিদেশি বিষেজ্ঞরা কাজ করেন।”

পরিকল্পনা বিভাগের সচিব জানান, আগামী অর্থবছরের জন্য যে পরিকল্পনা করা হয়েছে, তার মধ্যে আভ্যন্তরীণ সম্পদ থেকে যোগান দেওয়া হবে ১ লাখ ৩৪ হাজার ৬৪৫ কোটি টাকা, যা মোট বরাদ্দের প্রায় ৬৬ শতাংশ। আর বাকি ৭০ হাজার ৫০২ কোটি টাকা বা প্রায় ৩৪ শতাংশের যোগান বৈদেশিক সম্পদ থেকে আসবে বলে ধরা হচ্ছে।

আগামী অর্থবছরের জন্য স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান ও করপোরেশেনের জন্য ৯ হাজার ৪৬৬ কোটি টাকার বরাদ্দ ধরে প্রস্তাব সাজানো হয়েছে। চলতি অর্থবছরে এই খাতে বরাদ্দ ছিল ১২ হাজার ৩৯৩ কোটি টাকা। অর্থাৎ বরাদ্দ কমেছে ২ হাজার ৯২৭ কোটি টাকা।

পরিকল্পনা কমিশনের ঊর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তা জানান, আগামী এডিপিতে পরিবহন খাতে সর্বোচ্চ ৫২ হাজার ১৮৩ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। বিদ্যুৎ খাতে দেওয়া হচ্ছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৪ হাজার ৮০৩ কোটি টাকা। তৃতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ রয়েছে শিক্ষা খাতে ২৩ হাজার ৪৩৯ কোটি টাকা।

এছাড়া স্বাস্থ্য খাতে ১৩ হাজার ৩৩ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে, যা চলতি অর্থবছরের সংশোধিত এডিপিতে ১০ হাজার ১০৯ কোটি টাকা ছিল।

কৃষি খাতের জন্য এবার বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৮ হাজার ৪২৪ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরের সংশোধিত এডিপিতে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ৬ হাজার ৬০৯ কোটি টাকা।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার পরিকল্পনা কমিশনের বর্ধিত সভায় পরিকল্পনা সচিব ছাড়াও আইএমইডি সচিব ও পরিকল্পনা বিভাগের সকল সদস্য এবং পরিকল্পনা বিভাগের প্রধান উপস্থিত ছিলেন।

সচিব নূরুল আমিন বলেন, আগামী ১৯ মে এনইসি সভায় প্রধানমন্ত্রী সশরীরে উপস্থিত থাকবেন না ভার্চুয়াল বৈঠক হবে তা এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী সব ব্যবস্থা হবে।