পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

করছাড় দিয়ে ডিজেলের দাম আগেরটাই রাখার তাগিদ সিপিডির

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-11-10 22:54:19 BdST

bdnews24

করছাড় দিয়ে হলেও ডিজেল ও কেরোসিনের দাম আগের জায়গায় ফেরত নেওয়ার তাগিদ দিয়েছে সিপিডি।

বুধবার ‘জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি কতটুকু প্রয়োজন ছিল’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন অর্থনীতির স্বার্থে তেলের বাড়ানো দাম প্রত্যাহারের পরামর্শ দিয়ে এমন মত তুলে ধরেন।

একই সঙ্গে বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম কম থাকার সময়কার মুনাফা থেকে এখন ভর্তুকি দিয়ে অন্তত আগামী এক বছর আগের দামে বিপিসি জ্বালানি তেল বিক্রি করতে পারে বলেও যুক্তি দেয় সিপিডি।

সংবাদ সম্মেলনে এছাড়া মহামারীকালে সরকার যে বিপুল প্রণোদনা ও ভর্তুকি দিচ্ছে সেই বিবেচনায়ও জ্বালানি তেলের দাম কম রেখে সাত হাজার কোটি টাকার ভর্তুকি প্রণোদনা হিসেবে ধরতে পারে বলে প্রস্তাব দেওয়া হয়।

ফাহমিদা খাতুন বলেন, ন্যায়ভিত্তিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে জনগণের কাছ থেকে আগের মুনাফা থেকে ভতুর্কি দেওয়া সম্ভব।

“আবার যখন তেলের দাম কমে যাবে, তখন দাম না কমিয়ে সেই টাকা সমন্বয় করতে পারত।“

আর কত ভর্তুকি দেব: অর্থমন্ত্রী

বাসে বাড়তি ভাড়া: অভিযানে ভ্রাম্যমাণ আদালত  

ঢাকার ৩ শতাংশ বাস সিএনজিচালিত, দাবি মালিক সমিতির  

সরকারের কাছে বিকল্প আরেকটি প্রস্তাব তুলে ধরে তিনি বলেন, চলতি অর্থবছরের জন্য সরকারের এ খাত থেকে আমদানি শুল্ক ও মূল্য সংযোজন কর (মূসক) থেকে সাত হাজার ২৬৫ কোটি টাকা কর নেওয়ার লক্ষ্য রয়েছে। এ কর ছাড় দিয়েও তেলের মূল্য বৃদ্ধি থেকে সরকার বিরত থাকতে পারে।

এসব বিবেচনায় দেশের বাজারে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত বাতিল করে আগের দামে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানায় গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি।

সংবাদ সম্মেলনে সিপিডির সম্মানীয় ফেলো অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান, গবেষণা পরিচালক ড. গোলাম মোয়াজ্জেম ও জ্যেষ্ঠ গবেষণা ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান উপস্থিত ছিলেন।

ফাহমিদা বলেন, জ্বালানি তেল দেশের অর্থনীতিসহ জীবনযাত্রার সব ক্ষেত্রে একটি কৌশলগত পণ্য। এটির মূল্য কমানো ও বাড়ানো মানুষের জীবনযাত্রায় প্রভাব ফেলে।

“কোভিড-১৯ অতিমারির প্রভাবে শুরু হওয়া অর্থনীতির নেতিবাচক প্রভাবগুলো এখনও বিরাজমান। অতিমারীর কারণে দেশের দারিদ্র্য হার ৩৫ শতাংশে নেমে যাওয়া বা প্রায় ৩ কোটি ৪০ লাখ মানুষ দারিদ্র্য সীমার নীচে অবস্থান করছে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

“এমন পরিস্থিতিতে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে কৃষি থেকে শুরু করে সকল পণ্যের উৎপাদন খরচ বেড়ে যাবে। কোভিড পরবর্তী অর্থনীতির পুনরুদ্ধারের এ সময়ে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোতে দেশের অর্থনীতি ও সাধারণ মানুষের জীবনযাপনে অসহনীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে।“

এসময় সাধারণ মানুষ সরকারের কাছ থেকে ‘ন্যায্যতা’ পাচ্ছে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ২০১৬ সালের এপ্রিল থেকে ২০২০ সালের এপ্রিল পর্যন্ত সময়ে আন্তর্জাতিক বাজার থেকে সর্বোচ্চ ৪৩ ডলার থেকে ২৩ ডলার পর্যন্ত জ্বালানি তেল আমদানি করে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি)। তখন তেলের দাম না কমিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ মুনাফা করে সংস্থাটি।

তিনি বলেন, অর্থ মন্ত্রণালয়ের হিসাব অনুযায়ী বিগত ২০১৫ সাল থেকে মূল্যবৃদ্ধি পর্যন্ত বিপিসি জ্বালানি তেল বিক্রি করে ৪৩ হাজার ১৩৮ কোটি টাকা মুনাফা করেছে।

বিপিসি বলছে, আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়ায় প্রতিদিন ২০ কোটি টাকার লোকসান হচ্ছে। সে হিসাবে একবছরে ৭ হাজার ৩০০ কোটি টাকা লোকসান হয়।

বাস ভাড়া বাড়ল ২৭%  

ডিজেল-কেরোসিনের দাম: মামলা করার হুঁশিয়ারি ক্যাবের

ডিজেলের দাম বাড়ানো নিয়ে মন্ত্রণালয়ের ব্যাখ্যা  

নির্ধারিত ভাড়ার বেশিই নিতেন বাস মালিকরা, এখন চান আরও বেশি  

এসময় তিনি বিপিসির স্বচ্ছতা ও জবাবদিহীতার পাশাপাশি সক্ষমতা বৃদ্ধির পরামর্শ দেন। তিনি বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনে (বিইআরসি) গণশুনানির মাধ্যমে জ্বালানি তেলের দাম নির্ধারণের প্রস্তাব দেন।

অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, তেলের দাম বাড়ার কারণে সাধারণ মানুষের আয় কমে গেলে সার্বিকভাবে প্রত্যক্ষ কর কমে যাবে। তখন ক্ষতি আরও বেশি হতে পারে।

পরিবহন ভাড়া বাড়ানোর ক্ষেত্রে অন্যায্যতা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, একটি বাসের পরিবহন ব্যয়ে তেলের দামের প্রভাব রয়েছে ৪০ শতাংশ। সে হিসাবে ২৩ শতাংশ তেলের দাম বাড়লে ১০০ টাকায় বাড়তে পারে ১০ টাকা। অর্থাৎ ১০০ টাকার ভাড়া ১১০ টাকা হতে পারে, কোনোওভাবে ১২৭ টাকা হতে পারে না।

গোলাম মোয়াজ্জেমের আশঙ্কা জ্বালানি তেলের মূল্য বাড়ানো প্রতিযোগিতা সক্ষমতা কমিয়ে দিতে পারে।