সুন্দরবনে বাঘ দ্বিগুণ করতে পরিকল্পনা

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-07-30 00:43:12 BdST

bdnews24
ফাইল ছবি

সুন্দরবনে বাঘের পরিমাণ দ্বিগুণ করতে সরকার পরিকল্পনা নিয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন।

বুধবার বিশ্ব বাঘ দিবস উপলক্ষে এক ভার্চুয়াল সভায় তিনি একথা জানান বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

‘বাঘ বাড়াতে করি পণ, রক্ষা করি সুন্দরবন’ প্রতিপাদ্য নিয়ে উদযাপন হয়েছে বিশ্ব বাঘ দিবস। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

শাহাব উদ্দিন বলেন, “বাঘ সুন্দরবনের রক্ষক। এই বাঘের উপস্থিতির কারণেই সুন্দরবন এত বৈচিত্র্যময় ও আকর্ষণীয়। সুন্দরবনে বাঘ না থাকলে সেখানকার সামগ্রিক ইকোসিস্টেম ধ্বংস হয়ে যাবে।

“কাজেই সুন্দরবন তথা বাংলাদেশকে রক্ষা করতে হলে বাঘ সংরক্ষণের কোনো বিকল্প নেই। এজন্য সুন্দরবনে বাঘের পরিমাণ দ্বিগুণ করতে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হচ্ছে।”

বনমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে সুন্দরবনে প্রায় ১১৪টি বেঙ্গল টাইগার আছে।

বন উজাড় ও অবৈধ শিকারের ফলে বেঙ্গল টাইগার বিশ্বে ‘বিপদাপন্ন’ প্রজাতি হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। বর্তমানে সারা বিশ্বে প্রকৃতিতে বিদ্যমান বন্য বাঘের সংখ্যা প্রায় ৩৮৯০টি।

বাঘের সংখ্যা দ্রুত কমে যাওয়ার প্রবণতা চলমান থাকলে আগামী কয়েক দশকে পৃথিবী থেকে বাঘ হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।”

 সুন্দরবনের বাঘ রক্ষার জন্য বন অধিদপ্তরের বিভিন্ন উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে বনমন্ত্রী বলেন, “আবাসস্থলের উন্নয়ন ও নিয়মিত টহল প্রদান করে বাঘের সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য যথোপোযুক্ত উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে সরকার বাঘের আবাসস্থল উন্নয়ন ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বর্তমানে সুন্দরবনের প্রায় ৫২ শতাংশ এলাকা অভয়ারণ্যের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

“বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে উভয় সুন্দরবনের বাঘ সংরক্ষণ, বাঘ ও শিকারি প্রাণী পাচার বন্ধ, দক্ষতা বৃদ্ধি, মনিটরিং ইত্যাদির জন্য ২০১১ সালে একটি সমঝোতা স্মারক এবং একটি প্রোটোকল স্বাক্ষরিত হয়েছে।”

 শাহাব উদ্দিন বলেন, বাঘ সংরক্ষণের জন্য দ্বিতীয় প্রজন্মের ‘বাংলাদেশ টাইগার অ্যাকশন প্লান ২০১৮-২০২৭’ প্রণয়ন করা হয়েছে। লোকালয়ে বাঘ আসা মাত্র খবরাখবর আদান-প্রদান ও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুন্দরবনের চারপাশের গ্রামগুলোতে বনবিভাগ ও স্থানীয় জনসাধারণের সমন্বয়ে টাইগার রেসপন্স টিম গঠন করা হয়েছে। 

বন ও বাঘ সংরক্ষণের জন্য সুন্দরবনের চারটি রেঞ্জে নিয়মিত ‘স্মার্ট পেট্রোলিং’ কার্যক্রম চলছে বলেও মন্ত্রী জানান।

“বাঘ বাঁচাতে ও বাড়াতে তার বাসস্থান, খাবার ও বাইরের শিকারিদের কবল থেকে মুক্ত করতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।”

 সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহবান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “আসুন আমরা নিজেদের অস্তিত্বের স্বার্থেই সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে সুন্দরবনের রক্ষক বাঘকে বাঁচাই।”

প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমির হোসাইন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনলাইন সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন পরিবেশ উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী, পরিবেশ সচিব জিয়াউল হাসান।