পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

বৃক্ষরোপণে প্রধানমন্ত্রীর পুরস্কার পাচ্ছে ৩০ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-06-06 21:53:35 BdST

bdnews24
বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে শনিবার গণভবনে দুটি গাছ লাগান প্রধানমন্ত্রী। ফাইল ছবি

বৃক্ষরোপণে বিশেষ অবদান রাখায় প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পুরস্কারের জন্য ১৪ জন ব্যক্তি ও ১৬টি প্রতিষ্ঠানকে চূড়ান্তভাবে মনোনীত করেছে সরকার।

রোববার পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী শাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে ‘বৃক্ষরোপণে প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পুরস্কার-২০১৯’ পদক সংক্রান্ত জাতীয় কমিটির সভায় মনোনীতদের বাছাই করা হয়।

উপজেলা, জেলা, বিভাগ পর্যায়ে বিচারের পর জাতীয় কমিটি চূড়ান্তভাবে এই পুরস্কারের মনোনয়ন দেয়।

এবার স্কুল পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ক্যাটাগরিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে সাতক্ষীরার ধানদিয়া ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশন, নরসিংদীর কাজী মফিজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় এবং পটুয়াখালীর শিয়ালী তালেমুন কুরআন নূরানী ও হাফেজিয়া মাদ্রাসা মনোনীত হয়েছে।

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় শ্রেণিতে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে পটুয়াখালীর মৌকরণ বিএলপি ডিগ্রি কলেজ, আছমতআলী খান কলেজ এবং খুলনার আলহাজ মোল্লা জালাল উদ্দিন কলেজ মনোনয়ন পেয়েছে।

স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে বাগেরহাটের রামপাল উপজেলা পরিষদ এবং পাবনার ঈশ্বরদী পৌরসভা মনোনীত হয়েছে।

অধিদপ্তর, পরিদপ্তর, সেক্টর কর্পোরেশন ও প্রতিষ্ঠান শ্রেণিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছে যথাক্রমে খুলনার আরআরএফ এবং পটুয়াখালীর পৌর বিভাগ পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং ঢাকার কেরানীগঞ্জ কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্ৰ।

এনজিও, ক্লাব ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা শ্রেণিতে প্রথম ও দ্বিতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে কুষ্টিয়ার বনায়ন এবং পঞ্চগড়ের বাংলাদেশ স্কাউটস মনোনীত হয়েছে।

‘বন বিভাগ কর্তৃক সৃজিত বাগান’ শ্রেণিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে দিনাজপুরের বীরগঞ্জের সামাজিক বন বিভাগ, সাতক্ষীরার সামাজিক বন বিভাগ যশোর (এসএফএনটিসি) এবং কক্সবাজারের বাঘখালী রেঞ্জের উত্তর বন বিভাগ মনোনীত হয়েছে।

ব্যক্তিগত পর্যায়ে বৃক্ষরোপণ শ্রেণিতে প্রথম ও দ্বিতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে খাগড়াছড়ির উনুচিং মারমা, মুন্সীগঞ্জের পারভীন সিরাজ এবং তৃতীয় পুরস্কারের জন্য যৌথভাবে নাটোরের ইসাক আহমেদ ও মৌলভীবাজারের মেহেদী হাসান কবির মনোনীত হয়েছেন।

‘ব্যক্তি মালিকানাধীন নার্সারি’ শ্রেণিতে প্রথম ও দ্বিতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে সাভারের উত্তরা ভাই ভাই নার্সারি, চট্টগ্রামের ফতেয়াবাদ নার্সারি এবং তৃতীয় পুরস্কারের জন্য যৌথভাবে মৌলভীবাজারের বৃক্ষবন্ধু নার্সারি ও খুলনার সততা নার্সারি মনোনয়ন পেয়েছে।

‘বাড়ীর ছাদে বাগান সৃজন’ শ্রেণিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে ঢাকার কলাবাগানের নাহিদা বারিক, দিনাজপুর সদরের রাখী দে এবং রাজশাহীর ওয়াহিদা ইয়াসমিন মনোনীত হয়েছেন।

‘বৃক্ষ গবেষণা, সংরক্ষণ, উদ্ভাবন’ শ্রেণিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কারের জন্য রাজবাড়ীর ড. আব্দুল হাকিম মন্ডল, চট্টগ্রামের মোকাম্মেল হক খান এবং মৌলভীবাজারের হৃদয় চন্দ্ৰ দেবনাথ মনোনীত হয়েছেন।

১৯৯৩ সাল থেকে চালু হওয়া এই পুরস্কারে প্রথম হলে ৩০ হাজার, দ্বিতীয় হলে ২০ হাজার ও তৃতীয় হলে ১৫ হাজার টাকা দেওয়া হয়।

সামনে পুরস্কারের অর্থমূল্য আরও বাড়ানো হবে জানিয়ে বনমন্ত্রী শাহাব উদ্দীন বলেন, সরকার গত অর্থবছরে দেশে আট কোটির বেশি বৃক্ষরোপণ করেছে, এবারেও আট কোটির ওপরে বৃক্ষরোপণ করা হবে।