১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫

সার্ক উৎসবে সেরা চলচ্চিত্র তৌকীরের ‘হালদা’

  • পি কে বালাচন্দ্রন, শ্রীলঙ্কা প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2018-05-28 02:53:48 BdST

bdnews24
রুম্মান রশীদ খানের ফেইসবুক থেকে নেওয়া ছবি

অষ্টম সার্ক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা চলচ্চিত্রসহ চারটি বিভাগে পুরস্কার জিতেছে তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ‘হালদা’।

রোববার কলম্বোয় উৎসবের শেষ দিনে পুরস্কার ঘোষণা করা হয়। বিচারকদের রায়ে ‘হালদা’ সেরা চলচ্চিত্রের পাশাপাশি সেরা চিত্রগ্রাহক, সেরা সম্পাদক ও সেরা আবহ সংগীতের পুরস্কার জিতেছে।

২০১৭ সালে সার্ক চলচ্চিত্র উৎসবের সর্বশেষ আসরেও অভিনেতা থেকে পরিচালনায় আসা তৌকীরের ‘অজ্ঞাতনামা’ সেরা চিত্রনাট্যের পুরস্কার জিতেছিল।

গত বছর ডিসেম্বরে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘হালদা’ চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছে বাংলাদেশের প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন কেন্দ্র হালদা নদীকেন্দ্রিক জেলে জীবনের বিপন্নতা নিয়ে।

হালদায় মা মাছের সংখ্যা কমে যাওয়ায় জীবিকার খোঁজে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাগর পাড়ি দেন জেলেরা। মনু মিয়ার (ফজলুর রহমান বাবু) জীবন বাঁচানোয় বদিউজ্জামানের (মোশাররফ করিম) ঠাঁই হয় হালদা তীরে। সেখানেই মনু মিয়ার মেয়ে হাসুর (তিশা) সঙ্গে দেখা হয় বদিউজ্জামানের।

এরপর গল্প এগোতে থাকে হালদা ও হাসুর পরিবারকে ঘিরে। হালদা তীরের জনপদের মাইজভান্ডারি গান, নাট্টো পোয়ার গান, বলি খেলা, নৌকা বাইচ, হালদায় ডিম সংগ্রহ এসব দৃশ্যও উঠে আসে।

এই চলচ্চিত্র নিয়ে তৌকীর বলেছেন, “নদী যেমন বিপন্ন তেমনি আমাদের নারীরা এখনও সমাজে নিগৃহীত। হালদা- নদী ও নারীর গল্প।”

সার্ক উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে দর্শকের প্রশ্নের জবাবে তৌকীর আহমেদ বলেন, প্রথমে তিনি শুধু মাছ ও জেলেদের নিয়ে এই চলচ্চিত্র নির্মাণের কথা ভেবেছিলেন। তবে দ্রুতই উপলব্ধি করেন, এ রকম হলে ওই সিনেমা কেউ দেখবে না। এরপর তিনি ‘হালদায়’ জেলে পরিবারের নারীর দুঃখগাথা তুলে আনার সিদ্ধান্ত নেন।

এই চলচ্চিত্রে গান রাখার তেমন সুযোগ না থাকলেও দর্শক টানতে চার-পাঁচটি গান রাখেন বলে জানান তিনি।

এর ব্যাখ্যায় তৌকীর বলেন, “প্রযোজক টাকা হারান, তা আমি চাইনি। গানগুলো থাকায় সিনেমাটি ভালো চলেছে এবং প্রযোজক টাকা তুলতে পেরেছেন।”

‘হালদা’ চলচ্চিত্রের জন্য এই আসরে পুরস্কারপ্রাপ্ত অন্যরা হলেন- চিত্রগ্রাহক এনামুল সোহেল, সম্পাদক অমিত দেবনাথ এবং আবহ সঙ্গীতে তৌকীর আহমেদ, পিন্টো ঘোষ ও সানজিদা মাহমুদা নন্দিতা।

সহকর্মীদের পক্ষে পুরস্কারগুলো গ্রহণ করেন তৌকীর।

মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া সার্ক চলচ্চিত্র উৎসবে মোট ২৬টি চলচ্চিত্র দেখানো হয়। ইংরেজি সাবটাইটল না থাকায় আফগানিস্তান ও নেপালের কোনো চলচ্চিত্র এবারের আসরে ছিল না বলে সার্ক কালচারাল সেন্টারের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।