প্রযোজকের অনুরোধে তৃণমূলের প্রচারে ছিলাম: ফেরদৌস

  • সাইমুম সাদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-04-17 17:10:37 BdST

ভারতে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিয়ে সে দেশে অবস্থানের অনুমতি হারানোর প্রেক্ষাপট নিয়ে মুখ খুলেছেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস।

দুই বাংলার জনপ্রিয় এই অভিনেতা বলছেন, নিজের ইচ্ছায় নয়, ভারতের এক প্রযোজকের অনুরোধেই তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিয়েছিলেন।

গত রোববার পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালের সমর্থনে প্রচারে অংশ নেন ফেরদৌস।

রোববার নির্বাচনী প্রচারের সরঞ্জামে সজ্জিত একটি হুডখোলা গাড়িতে ফেরদৌসের কয়েকটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। ছবিতে তার পাশে কলকাতার দুই অভিনয়শিল্পী পায়েল সরকার ও অঙ্কুশকেও দেখা যায়।

বিদেশি শিল্পী ফেরদৌসের নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেওয়ার বিষয়ে আপত্তি তোলে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)।  ফেরদৌসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা চেয়ে সোমবার নির্বাচন কর্মকর্তা আরিজ আফতাবের কাছে যান বিজেপি নেতা জয় প্রকাশ মজুমদার ও শিশির বাজোরিয়া।

অভিযোগ আমলে নিয়ে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ফেরদৌসের ভিসা বাতিল করে এ অভিনেতাকে দেশ ছাড়ার নির্দেশের পাশাপাশি তাকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে বলে জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস।

এরপর মঙ্গলবার রাতের ফ্লাইটেই ঢাকায় ফেরেন এই অভিনেতা।

ফেরার আগে সোমবার বিকালে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে ভারতে নিরবাচনী প্রচারে যোগ দেওয়ার কারণ হিসেবে তিনি জানিয়েছিলেন, ‘পরিচিত এক প্রযোজকের’ অনুরোধ রাখতে গিয়ে তিনি দলটির প্রচারে নেমেছিলেন।  

কোনো রাজনৈতিক দলের প্রচারে অংশ নিতে তিনি ভারতে যাননি। বরং সপ্তাহখানেক আগে নির্মল চক্রবর্তীর ‘দত্তা’ নামের একটি চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে অংশ নিতে কলকাতায় যান।

ফেরদৌস বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “বোলপুরে ছবিটির শুটিং চলছিল। আমার এক পরিচিত প্রডিউসারের অনুরোধে তৃণমূলের প্রচারে যোগ দিয়েছিলাম। আর কিছু না।”

বাংলাদেশে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয়ী অভিনেতা ফেরদৌস খ্যাতি পেয়েছিলেন ১৯৯৮ সালে কলকাতার বাসু চ্যাটার্জির ‘হঠাৎ বৃষ্টি'’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে।

বাংলাদেশের মতো পশ্চিমবঙ্গেও জনপ্রিয় ফেরদৌস কলকাতায় এ পর্যন্ত ৫০টিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। ২০০১ সালে ‘মিট্টি’ নামে বলিউডের একটি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেন তিনি।