২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

বাদল দিনের গান গাইলেন অবনী

  • গ্লিটজ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-07-21 19:55:25 BdST

bdnews24

সম্প্রতি জি সিরিজ থেকে প্রকাশিত হয়েছে অবনী মাহবুবের কণ্ঠে রবীন্দ্রসংগীত ‘বাদল দিনের প্রথম কদম ফুল’।

বর্ষা উপলক্ষে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জনপ্রিয় গান ‘বাদল দিনের প্রথম কদম ফুল’ নিয়ে এলেন অবনী মাহবুব। নতুন আঙ্গিকে গানটির সংগীতায়োজন করেছেন কলকাতার সংগীত পরিচালক সৌরভ চক্রবর্তী। গানটির মিউজিক ভিডিও চিত্রায়িত হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনের সিডার ক্রিকে।

সম্প্রতি জি সিরিজ থেকে প্রকাশিত হয়েছে মিউজিক ভিডিও টি। চলতি বছর থেকে প্রতি তিনমাস পরপর জি সিরিজ থেকে প্রকাশিত হচ্ছে এ শিল্পীর কণ্ঠে রবীন্দ্রসংগীত। দীর্ঘদিন সংগীত চর্চার পর নিজেকে প্রকাশ করতে শুরু করেছেন অবনী। প্রকাশের জন্য রবীন্দ্রনাথের জনপ্রিয় গানগুলোকেই বেছে নিয়েছেন তিনি।

ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে ‘তুমি রবে নীরবে’, ‘কোন কাননের ফুল’ দু’টিও।

গানে নিজের আত্মপ্রকাশ প্রসঙ্গে অবনী বললেন, “আমি রবীন্দ্রনাথের সুর ও বানী মনে ধারণ করে বেড়ে উঠেছি। সে টান থেকেই প্রথমেই রবীন্দ্রনাথের প্রিয় গানগুলোর মাধ্যমেই শ্রোতাদের সামনে নিজেকে হাজির করছি। দেশে এখন বর্ষাকাল চলছে। রবীন্দ্রনাথের এ গানটি আমার খুব প্রিয় একটি গান। চেষ্টা করেছি নতুন আঙ্গিকে গানটি শ্রোতাদের সামনে উপস্থাপন করার।”

 

রবীন্দ্রনাথের জনপ্রিয় গানগুলোকেই কেন বেছে নেয়া?

এমন প্রশ্নের উত্তরে অবনী বলেন, “আমি যখন স্টেজ পারফর্ম করি বা বিভিন্ন জায়গায় গাইতে যাই, মানুষের কাছে রবীন্দ্রনাথের প্রচলিত জনপ্রিয় গানগুলোর অনুরোধই বেশি আসে। একটু অচেনা গানগুলোর সঙ্গে শ্রোতারা খুব একটা কানেক্ট করতে চান না। তাই নতুন শিল্পী হিসেবে খুব একটা ঝুঁকি নিতে চাইনি। শ্রোতাদের কাছে নিজের কণ্ঠ পৌঁছে দিতে চেয়েছি।  শ্রোতারা যদি আমাকে গ্রহণ করেন, অবশ্যই রবীন্দ্রনাথের অপ্রচলিত কিছু গানও গাওয়ার ইচ্ছা আছে। পাশাপাশি ট্র্যাডিশনাল টোন থেকে পুরোপুরি বেরিয়ে কন্টেম্পরারি ভঙ্গিতে কিছুটা নীরিক্ষারও ইচ্ছা আছে সামনের গানগুলোতে।”

তবে শুধু রবীন্দ্রসংগীতই নয়, অচিরেই প্রকাশিত হতে যাচ্ছে অবনীর কণ্ঠে লোকগানও। পাশপাশি নিজের মৌলিক গানেরও প্রস্তুতি চলছে তার।

অবনী জানান, শৈশব থেকেই গান শেখা শুরু তার। বয়স যখন পাঁচ তখন থেকেই সুরের সঙ্গে বসবাস। মায়ের হাত ধরে গানের স্কুল। ভোরে ঘুম ভেঙে রেওয়াজ। সুরের প্রতি প্রেমটা তার তখন থেকেই। বিশেষ করে রবীন্দ্রসংগীতের প্রতি ভালো লাগা থেকেই শিক্ষকের পরামর্শে ছায়ানট সঙ্গীত বিদ্যায়তনে ভর্তি হওয়া। টানা নয়বছর সেখানেই রবীন্দ্রনাথের সুর ও বানীর সঙ্গে সখ্যতা। এখন পেশায় স্থপতি তিনি। বসবাস করছেন অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনে। রবীন্দ্রনাথের গানের পাশাপাশি লোক গান চর্চা করছেন নিয়মিত। গাইছেন প্রবাসীদের আমন্ত্রণে বিভিন্ন গানের অনুষ্ঠানে। শ্রোতাদের অনুপ্রেরণা ও অনুরোধেই নিজেকে প্রকাশের পথে যাত্রা শুরু তার।