আবারও ‘মাইলস’ ছাড়ছেন শাফিন?

  • সাইমুম সাদ, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-07-22 20:54:43 BdST

আবারও সংগীতশিল্পী ও গিটারিস্ট শাফিন আহমেদের ‘মাইলস’ ছাড়ার গুঞ্জন ছড়িয়েছে সংগীতাঙ্গনে।

৪০ বছর পূর্তি অংশ হিসেবে প্রায় মাসখানেক ধরে ‘মাইলস’র সদস্যরা আমেরিকার বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে কনসার্টে অংশ নিলেও শাফিন আহমেদ অবস্থান করছেন ঢাকায়; তার অনুপস্থিতিতে মাইলসের লাইনআপে অতিথি গিটারিস্ট হিসেবে পাভেলের যুক্ত হওয়ার খবরও এসেছে বিভিন্ন গণমাধ্যমে।

শাফিনকে ছাড়াই ‘মাইলস’র পারফর্মের ঘটনার জেরে তার ব্যান্ডটি ছাড়ার গুঞ্জন চলছে সংগীতাঙ্গনে। তবে গুঞ্জন নিয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি তিনি।

গুঞ্জনের মধ্যেই ব্যান্ডের বাইরে ‘বাতাসে কার কণ্ঠ’ শিরোনামে একক গানের ভিডিও প্রকাশের খবর দেন তিনি। গত রোজার ঈদে 'মেহেদী মিক্সড টু' অ্যালবামের গানটি অডিও গানটির কথা লিখেছেন স্যামুয়েল হক; গানটির সুর ও সঙ্গীতায়োজন করেছেন মেহেদী।

এর আগে ২০১৭ সালে অক্টোবরেও তিনি একবার ব্যান্ডটি ছাড়ার কয়েকমাস পর দ্বন্দ্ব ভুলে ফের ব্যান্ডে ফিরেছিলেন। ২০১০ সালের শুরুর দিকেও একবার ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে ব্যান্ড থেকে সরে দাঁড়ানোর কয়েকমাস পর ফের ব্যান্ডে ফেরেন।

বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ ব্যান্ডের আরেক সদস্য হামিন আহমেদ; একাধিকবার ফোন করা হলেও কোনো সাড়া মেলেনি তার।

ব্যান্ডের বাকি সদস্যরা যুক্তরাষ্ট্রের কনসার্টে। ছবি: ফেইসবুক

ব্যান্ডের বাকি সদস্যরা যুক্তরাষ্ট্রের কনসার্টে। ছবি: ফেইসবুক

ব্যান্ডের অন্যান্য সদস্যরা জানান, ভিসা জটিলতার কারণে যুক্তরাষ্ট্রে যেতে পারেননি শাফিন। তবে দলের বাকি সদস্যদের ভিসা হলেও শুধু শাফিনের ভিসা না হওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে আয়োজকদের মধ্যেও।

কনসার্টের আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত থাকা প্রতিষ্ঠানের এক কর্মকর্তা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “যতদূর জানি শাফিন আহমেদের ভিসা নিয়ে কোনো ঝামেলা থাকার কথা না। তারপরও উনি কেন যুক্তরাষ্ট্রে গেলেন না সেটা বলা যাচ্ছে না।”

আমেরিকা যেতে না পারার কারণ জিজ্ঞাসা করা হলে শাফিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে সরাসরি কোনো উত্তর না দিয়ে বলেন, “বিষয়টি নিয়ে আয়োজকদের সঙ্গে কথা বলে জানাবো।”

শাফিনকে ছাড়া জুনের দ্বিতীয় সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছেছে ব্যান্ডের বাকি সদস্যরা। ইতোমধ্যে সাতটিরও বেশি শো’তে অংশ নিয়েছেন তারা। এর মধ্যে ১৬ জুন কলম্বাসের ওহিও স্টেট ইউনিভার্সিটির পারফরমেন্স হলে, ২৮ জুন নিউ ইয়র্কে, ২৯ জুন ভার্জিনিয়ার সানবার্গ মিডল স্কুল অডিটোরিয়ামে, ৬ জুলাই মিশিগানে, ২০ জুলাই আরিজোনায়, ২১ জুলাই সান জোসের এভারগ্রিন ভ্যালি হাইস্কুল থিয়েটারে পারফর্ম করেন তারা।

২৭ জুলাই ফ্লোরিডার টাম্পায় কনসার্টে অংশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ট্যুর শেষ করে দেশে ফিরবে ‘মাইলস’। এরপর সেপ্টেম্বরে কানাডা ট্যুরে ৬টির মতো শো করবে। কানাডা ট্যুর শেষে অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়ায় ৫-৬টি শো’তে অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে ব্যান্ডটির।

ছবি: ফেইসবুক থেকে নেওয়া।

ছবি: ফেইসবুক থেকে নেওয়া।

ফরিদ রশিদের হাত ধরে ১৯৭৯ সালে প্রতিষ্ঠিত বাংলা সংগীতের অন্যতম ব্যান্ডটির ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে প্রায় ছয় মাস ধরে নানা আয়োজনের পরিকল্পনা করা হয়েছে।

তিন দেশের ট্যুর শেষে ঢাকার বাইরে চারটি কনসার্ট ও একটি গালা কনসার্টের আয়োজনের কথা জানানো হয়েছে। ঢাকার বাইরের কনসার্টগুলো হবে চট্টগ্রাম, সিলেট, খুলনা ও রাজশাহীতে। ঢাকার গালা ইভেন্টটি আর্মি স্টেডিয়াম অথবা ইন্টান্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় অনুষ্ঠিত হবে।

মাইলসের প্রথম বাংলা গানের অ্যালবাম ‘প্রতিশ্রুতি’ প্রকাশ হয় ১৯৯১ সালে। তার আগে প্রকাশিত হয় দু’টি ইংরেজি গানের অ্যালবাম ‘মাইলস’ ও ‘এ স্টেপ ফারদার’।

মাইল্স’র জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে রয়েছে- ‘চাঁদ তারা সূর্য’, ‘প্রথম প্রেমের মতো’, ‘গুঞ্জন শুনি’, ‘সে কোন দরদিয়া’, ‘ফিরিয়ে দাও’, ‘ধিকি ধিকি’, ‘পাহাড়ি মেয়ে’, ‘নীলা’, ‘কি যাদু’, ‘কতকাল খুঁজব তোমায়’, ‘হৃদয়হীনা’, ‘স্বপ্নভঙ্গ’, ‘জ্বালা জ্বালা’, ‘শেষ ঠিকানা’, ‘পিয়াসী মন’, ‘বলব না তোমাকে’, ‘জাতীয় সঙ্গীতের দ্বিতীয় লাইন’ ও ‘প্রিয়তমা মেঘ’।